নীনা কুলকার্নী

ভারতীয় অভিনেত্রী

নীনা কুলকার্নী হলেন একজন ভারতীয় অভিনেত্রী। তিনি ১৯৭০-এর দশকে মারাঠি পেশাদার মঞ্চ এবং পরীক্ষামূলক হিন্দি মঞ্চে ফ্যাশন অনুষ্ঠান ও একই সাথে মডেলিংয়ের পাশাপাশি তাঁর অভিনয় জীবন শুরু করেছিলেন। তিনি তাঁর প্রথম গুরু এবং পরে পতি সত্যদেব দুবের সাথে সাক্ষাৎ করেছিলেন এবং তাঁর নির্দেশনায় বেশ কয়েকটি হিন্দি প্রযোজনার অংশ হয়েছিলেন। মোহন রাকেশের আধে আধুরে, শঙ্কর শেশের মায়াবী সরোবর এবং উইলি রাসেলের এডুকেটিং রিতা তাঁর কয়েকটি উল্লেখযোগ্য নাটক।[১]

নীনা কুলকার্নী
Neena Kulkarni.jpg
জন্ম
পেশাঅভিনেত্রী
কর্মজীবন১৯৭৭–বর্তমান

কর্মজীবনসম্পাদনা

অভিনয়সম্পাদনা

ডক্টর বিজয়া মেহতা ১৯৭৮ সালে অনিল বার্ভের হামিদাবাই চি কোঠিতে শাব্বো চরিত্রে অভিনয় করার জন্য তাঁকে বেছে নিয়েছিলেন এবং এভাবেই মহাসাগরসাবিত্রী নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে মারাঠির অসাধারণ মঞ্চ জগতের বাইয়ের সাথে তাঁর দীর্ঘ যাত্রা শুরু হয়েছিল। তিনি বর্তমানে বাই-কে তাঁর কর্মশালায় সহায়তা করে চলেছেন। মহাসাগর, অকস্মাত, ধ্যানী মণি, ভবত সাবিত্রী, দেহবান, প্রেম পত্র এবং চাপা কাটা তাঁর সফল পুরস্কারপ্রাপ্ত কয়েকটি (নাট্য দর্পণ, রাজ্য পুরস্কার, নাট্য পরিষদের স্বীকৃতি) মারাঠি নাটক।

তিনি ২০১১ সালে মহাসাগর নামক একটি নাটক পরিচালনা করেছিলেন। অতঃপর তিনি এডুকেটিং রিতা, মহাত্মা ভার্সাস গান্ধী এবং ওয়েডিং অ্যালবাম নামক বেশ কয়েকটি ইংরেজি নাটক পরিচালনা করেছেন। সাওয়াত মাঝি লড়কী (সেরা অভিনেত্রী বিভাগে রাষ্ট্রীয় পুরস্কার লাভ), আই, উত্তরায়ণ, শেভরি (যার জন্য তিনি প্রযোজক হিসাবে জাতীয় পুরষ্কার এবং পিআইএফএফ পুরষ্কার জিতেছেন) সারি ভর সারি (সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে রাজ্য পুরস্কার জয়লাভ) এবং বায়োস্কোপ: দিল-ই-নাদান (সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ) তাঁর অভিনীত উল্লেখযোগ্য কিছু চলচ্চিত্র। বাদল, নায়ক, পহেলি, গুরু, হাঙ্গামা, রণ, ফির ভি দিল হ্যায় হিন্দুস্তানি, মেরে ইয়ার কি শাদী হ্যায়, হাসি তো ফাসি এবং ঘায়েল নামক বেশ কয়েকটি হিন্দি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।[২] তিনি লোকসত্তার একজন নিয়মিত কলাম লেখক, কলামটির নাম অন্তরঙ্গ। তিনি ৩ বছর ধরে এই কলামে লিখেছিলেন এবং একই নামে একটি বইও প্রকাশ করেছেন।

বিজ্ঞাপনসম্পাদনা

তাঁর অভিনীত বিজ্ঞাপনগুলোর মধ্যে রয়েছে ক্যাডবেরি, সার্ফ, প্যারাসুট, পেটিএম, মাদার ডেইরি এবং ম্যাগি মসলা। তাঁর সর্বশেষ টেলিভিশন অনুষ্ঠান হচ্ছে ইয়ে হ্যায় মহব্বতে (যে অনুষ্ঠানটি কিছু দিন পূর্বে তার ৬ বছর পূর্ণ করেছে); যেখানে তিনি মাধবী আইয়ার চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তাঁর অভিনীত আন্তর্জাতিক কাজকর্মের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে: দ্য বেস্ট এক্সোটিক মেরিগোল্ড হোটেল, রানী (ফরাসী ভাষার চ্যানেল ফ্রান্স ডিউক্সে প্রচারিত একটি ৮ খণ্ডের টেলিভিশন ধারাবাহিক), নোসেস এবং ফরাসি চলচ্চিত্র (যেটি লুক্সেমবুর্গে ধারণ করা হয়েছে), যেটি ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে প্যারিসে প্রদর্শন করা হয়েছে। অতঃপর তিনি ব্রিথ নামক একটি ওয়েব অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ডিজিটাল অনুষ্ঠান জগতে পদার্পণ করেন এবং তার অভিনীত কাডলিমা বহু সমালোচকদের কাছ থেকে প্রশংসা কুড়িয়েছিল। তার সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত স্বল্পদৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্রের নাম হচ্ছে দেবী

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Pawar, Yogesh (২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭)। "I haven't stopped hungering: Neena Kulkarni on her 40 year long career"DNA India 
  2. "Neena Kulkarni: Movies, Photos, Videos, News, Biography & Birthday | eTimes"timesofindia.indiatimes.com 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা