নিৰ্ভয়া তহবিল

নির্ভয়া তহবিল (ইংরেজি: Nirbhaya Fund) হল ২০১৩ সালের কেন্দ্রীয় বাজেটে ভারত সরকারের ঘোষণা করা ১০০০ কোটি ভারতীয় টাকার একটি আর্থিক তহবিল। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম আশা করেছিলেন যে এই তহবিল ভারতীয় মহিলাদের সম্মান ও সুরক্ষা নিশ্চিত করার কার্যসূচীকে সহায়তা করবে। নির্ভয়া নামটি ছিল ২০১২ সালের দিল্লীতে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার এক ভুক্তভোগীর ছদ্মনাম। মহিলা ও শিশু বিকাশ মন্ত্রণালয় ও অন্যান্য মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিয়েছিল এই তহবিলের অর্থ কোথায় খরচ হবে। এই তহবিলের একটি প্রয়োগ হল হিংসার বলি হওয়া মহিলাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য 'ওয়ান স্টপ সেন্টার' স্থাপন করা।

রায়পুরের ওয়ান স্টপ সেন্টার
লক্ষ্ণৌর ওয়ান স্টপ সেন্টার
নির্ভয়া তহবিল থেকে আর্থিক সাহায্যপ্রাপ্ত রায়পুর ওয়ান স্টপ সেন্টার (উপরে) ও লক্ষ্ণৌর ওয়ান স্টপ সেন্টার (নিচে), যথাক্রমে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে ভারতের রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দের কাছ হতে নারী শক্তি পুরস্কার গ্রহণ করার মুহূর্ত

ইতিহাসসম্পাদনা

মহিলা ও কন্যা সন্তানদের সশক্তিকরণ, সম্মান ও সুরক্ষার জন্য ১০০০ কোটি টাকার সরকারি অবদানের সঙ্গে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী তাঁর ২০১৩ সালের বাজেট ভাষণে নির্ভয়া তহবিল গঠনের ঘোষণা করেছিলেন।[১] এই তহবিলটি সরকারের অর্থ মন্ত্রক কর্তৃক পরিচালিত হয়।[২][৩]

তহবিলের ব্যবহারসম্পাদনা

বিভিন্ন মন্ত্রণালয় মহিলাদের সম্মান ও সুরক্ষা বৃদ্ধি করার জন্য এই তহবিল ব্যবহার করার জন্য প্রকল্পের প্রস্তাব দিয়েছিল। প্রস্তাব দাখিল করা মন্ত্রণালয়সমূহ ছিল তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়, সড়ক পরিবহণ মন্ত্রণালয়, রেল মন্ত্রণালয় ও গৃহ মন্ত্রণালয়। গৃহ মন্ত্রণালয় নির্ভয়া তহবিলের অধীনে মোট ১৯৪.৪৪ কোটি টকা ব্যয়পূর্বক লক্ষ্ণৌর জন্য একটি সুরক্ষিত শহর প্রকল্প অনুমোদন করে।[৪]

২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে নগর উন্নয়ন মন্ত্রণালয় রাজ্যসমূহকে নির্ভয়া তহবিলের তত্ত্বাবধানে নতুন পরিকল্পনার প্রস্তাব ও রূপায়ণ করার জন্য বলেছিল।[৫][৬][৭]

এই তহবিল সমগ্র দেশে 'ওয়ান স্টপ সেন্টার' বা 'সখী' সৃষ্টি করার জন্য ব্যবহার করা হয়েছিল। এই সেন্টারে হিংসার বলি হওয়া মহিলাদের আর্থিক, সামাজিক ও আইনগত সেবা প্রদান করা হয়।[৮] ২০১৩ সালের এক পরামর্শ অনুসারে প্রথমে প্রতিটি ভারতীয় রাজ্যে কমপক্ষে একটি করে ওয়ান স্টপ সেন্টার স্থাপনের প্রস্তাব করা হয়েছিল।[৯] নির্ভয়া তহবিল থেকে আর্থিক সাহায্যপ্রাপ্ত রায়পুর ও লক্ষ্ণৌ ওয়ান স্টপ সেন্টারকে মহিলা সশক্তিকরণের জন্য অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপে যথাক্রমে ২০১৮ ও ২০১৯ সালের আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে নারী শক্তি পুরস্কার প্রদান করা হয়েছিল।[১০]

তথ্য উৎসসম্পাদনা

  1. "Nirbhaya Fund" (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)। ২৬ এপ্রিল ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মার্চ ২০১৪ 
  2. "Nirbhaya Fund"। ১৩ ডিসেম্বর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মার্চ ২০১৪ 
  3. "Uttar Pradesh: Centre approves Rs 194.44 crore Safe City Project for Lucknow"। ১ নভেম্বর ২০১৮। 
  4. "Three Proposals of Different Ministries Approved in-Principle by the Ministry of Finance to Utilise the Resources in the Nirbhaya Fund to Enhance the Safety and Security of Women"। ১৬ ডিসেম্বর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মার্চ ২০১৪ 
  5. Ramachandran, Smriti Kak (২৪ নভেম্বর ২০১৩)। "No new buses if there is no safety for women: Centre"The Hindu – www.thehindu.com-এর মাধ্যমে। 
  6. "Nirbhaya Fund of Rs1,000 crore for women's safety announced"DNA India। ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৩ 
  7. "Budget 2013 announces Nirbhaya Fund for women's safety"business today.। ১ মার্চ ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৩ 
  8. "One Stop Centre Scheme - M.I.C.S. IAS LUCKNOW"M.I.C.S. IAS LUCKNOW (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-১২-০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১১ 
  9. "One Stop Centre Scheme" (PDF)Ministry of Women and Child Development 
  10. "Nari Shakti Puraskar - Gallery"narishaktipuraskar.wcd.gov.in। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১১