প্রধান মেনু খুলুন

নবগ্রহ

৯টি জ্যোতির্বিজ্ঞানসংক্রান্ত দেবতাদের দল
নবগ্রহ, রাজা রবি ভার্মার আঁকা চিত্র

"নবগ্রহ " গ্রহ (সংস্কৃত: ग्रह "seizing, laying hold of, holding",[১]) বা নবগ্রহ (সংস্কৃত: नवग्रह, lit. nine planets) হল হিন্দু জ্যোতিষশাস্ত্রের কিছু পরিচিত প্রতীক ৷ এই নয়টি প্রতীক যা , সৌরজগতের গ্রহসমূহের সাথে তুলনীয় ৷ যেমন :সূর্যদেব(সূর্য), চন্দ্রদেব(চন্দ্র), মঙ্গলদেব(মঙ্গল), বুধদেব(বুধ), বৃহস্পতি(বৃহস্পতি গ্রহ), শুক্র(শুক্র গ্রহ), এবং শনিদেব(শনি), রাহুকেতু

পরিচ্ছেদসমূহ

সূর্যসম্পাদনা

 
সূর্য তার সাত অশ্বের রথে

সূর্য (সংস্কৃত: सूर्य, Sūrya, "সর্বোচ্চ আলোক"[২]) নবগ্রহের মধ্যে প্রধান। তিনি ঋষি কশ্যপের পুত্র ৷ তার কেশ এবং বাহু স্বর্ণের ৷ তার রথ সাতটি ঘোড়া দ্বারা চালিত হয় যা সাতটি চক্রকে প্রতিকায়িত করে। তার সম্মানার্থে সপ্তাহের একটি দিন হল রবিবার ৷ এনার সন্তানরা হলেনঃ— কর্ণ, যম, যমুনা, শনি, ভদ্রা, তাপ্তি, সুগ্রীব প্রমুখ।

চন্দ্রসম্পাদনা

 
চন্দ্র তার রথের উপর উপবিষ্ট (১৯শতকের আঁকা চিত্র)

চন্দ্র (Telugu: Soma, Tamil: Tiṅkaḷ) একজন দেবতা ৷ তিনি সুদর্শন, সুপুরূষ, দ্বি-বাহুযুক্ত ও তার এক হাতে অস্ত্র ও অন্য হাতে পদ্ম ৷ তিনি তার দশটি ঘোড়ার শ্বেত রথে চড়ে রাত্রে আকাশ উদিত হন ৷ [৩] তার সম্মানার্থে সপ্তাহের একটি দিন হল সোমবার

মঙ্গলসম্পাদনা

 
মঙ্গল তার বাহনের পিঠে উপবিষ্ট

"মঙ্গল" (সংস্কৃত: मंगल, কন্নড়: ಮಂಗಳ, তেলুগু : మంగళ,(Angaraka), তামিল: செவ்வாய், cevvāi) হলেন ভূমির পুত্র ৷ [৪] তিনি যুদ্ধের দেবতা এবং অবিবাহিত ৷ তাকে পৃথিবী বা ভূমির পুত্র বলা হয়। তার দেহে বিজয় এবং গর্বের চিহ্ন বর্তমান, তার চতুর্বাহু ৷ তার সম্মানার্থে সপ্তাহের একটি দিন হল মঙ্গলবার ৷

পরিচিতি বুধ'কে ভারতীয় গ্রন্থে একজন দেবতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, প্রায়শই তাকে চন্দ্র এবং তারার ( বৃহস্পতির পত্নী) পুত্র হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এবং তিনি বিকল্পভাবে দেবী রোহিণী এবং চন্দ্রদেবের পুত্র হিসেবে বর্ণিত হন। [২] তার শরীর কিয়দ পিঙ্গল বর্ণের কিংবা সবুজাভ, পিঙ্গল পোশাক পরিহিত। আগুন ও বাতাসের তৈরি তার রথ টেনে নেয় আটটি বাতাসের তৈরি ঘোড়া। [১] কিছু অন্য গ্রন্থানুযায়ী, দেবগুরু বৃহস্পতির বহু শিষ্য ছিল। চন্দ্রও ছিলেন ওনার এক শিষ্য। চন্দ্রকে তো সুন্দর মানা হতই বরং সৌন্দর্যের অপর নাম চন্দ্র ছিল। এদিকে দেবাচার্য বৃহস্পতির স্ত্রী তারা ছিলেন পরম সৌন্দর্যের অধিকারিণী। এই দেখে তারাদেবী চন্দ্রের প্রতি মোহিতা হন এবং ওনার স্ত্রী হয়ে যান। বৃহস্পতির বহু বোঝানোর সত্ত্বেও তিনি তার কথা শুনতে রাজি হননা। এই দেখে বৃহস্পতি ও চন্দ্রের মধ্যে মহামারি যুদ্ধের সূচনা ঘটে যাকে তারকাম্যং যুদ্ধও বলে। এবার শত্রুর শত্রুকে মিত্র ভেবে অসুরগুরু শুক্রাচার্য চন্দ্রের পক্ষে হয়ে যান। যেহেতু বৃহস্পতি ছিলেন দেবগুরু, তাই সমগ্র দেবতা ওনারই পক্ষই স্বীকার করলেন। যুদ্ধটির ফলে নেমে আসে প্রলয়। এবার সৃষ্টির রচয়িতা ব্রহ্মা আর চুপ থাকতে পারলেন না। উনি হস্তক্ষেপ করে তারাকে জিজ্ঞাসা করলেন যে যেই শিশুটির তারা জন্ম দিয়েছেন, সে কার পুত্র — চন্দ্রের না বৃহস্পতির ? বহু জিজ্ঞাসা করার পর তারাদেবী স্বীকার করলেন যে এই শিশুটি চন্দ্রের পুত্র। চন্দ্র প্রসন্ন হয়ে শিশুটির নাম রাখলেন বুধ। বুধের গাম্ভীর্যপূর্ণ বুদ্ধির জন্য এনার এই নাম। পরবর্তীকালে চন্দ্রদেব বুধের দায়িত্ব সঁপে দেন ওনার প্রিয় পত্নী রোহিণীকে। তাই বুধদেবকে রৌহিণেয়ও বলা হয়।

বৃহস্পতি/দেবগুরুসম্পাদনা

শনিসম্পাদনা

শনি (সংস্কৃত: शनि, কন্নড়: ಶನಿ , তামিল: சனி, Caṉi, তেলুগু: శని) নবগ্রহের একটি অন্যতম গ্রহ, শনি গ্রহকে গ্রহরাজ-ও মহাগ্রহ বলা হয়ে থাকে। শনিদেব হিন্দুধর্ম মতে একজন দেবতা। শনি উগ্র দেবতা বলে কুখ্যাত। জ্যোতিষীদের মতে শনির কুদৃষ্টি অশুভ ফল নিয়ে আসে। সৌরজগতের শনি গ্রহ ও সপ্তাহের শনিবার দিনটি শনিদেবের নামে নামকরণ করা হয়। শনিদেব কে শনিশ্চর বা শনৈশ্চর নামেও ডাকা হয়।

শুক্র/দৈত্যগুরুসম্পাদনা

শুক্র (সংস্কৃত: शुक्र, উচ্চারণ: Śukra) যে শব্দের অর্থ "নির্মল, স্বচ্ছ, উজ্জ্বল, একজন প্রাচীন ঋষিদেবতা যিনি বৈদিক পুরাণ অনুসারে অসুর বা দৈত্যদের গুরু। তার সম্মানার্থে সপ্তাহের একটি দিন হল শুক্রবার।

রাহুসম্পাদনা

রাহু( ), হিন্দু জ্যোতিষ অনুসারে,স্বরভানু নামে এক অসুরের কর্তিত মুন্ড, যে গ্রহণের সময় সূর্য বা চন্দ্রকে গ্রাস করে। একে আটটি শ্যামবর্ণ ঘোড়ায় টানা রথে আরূঢ় স্কন্ধহীন সর্পরূপে চিত্রিত করা হয়। বৈদিক জ্যোতিষশাস্ত্রে, একে নবগ্রহের মধ্যে একটি স্থান দেওয়া হয়েছে। দিবাভাগে রাহুকাল নামক মুহূর্তকে (২৪ মিনিট) অশুভ বলে গণ্য করা হয়।[৫]

কেতুসম্পাদনা

কেতু( ), হিন্দু জ্যোতিষ অনুসারে, এটি একটি অবরোহী লুনার নোড। পুরাণ অনুসারে, ইহা স্বরভানু নামক এক অসুরের কর্তিত ধড়(দেহ); সমুদ্র মন্থনের সময় ভগবান বিষ্ণু আপন সুদর্শন চক্রের মাধ্যমে এর মুন্ড ছিন্ন করে দেন। বৈদিক জ্যোতিষশাস্ত্রে, একে নবগ্রহের মধ্যে একটি স্থান দেওয়া হয়েছে। এটি একটি ছায়া গ্রহ। [৬]

মন্দিরসম্পাদনা

 
Navagraha sculpture from Bihar, India, 10th century, now at the San Diego Museum of Art
 
Navagraha statues from Konark, Odisha at British Museum

তথ্যসূত্রঃসম্পাদনা

  1. Sanskrit-English Dictionary by Monier-Williams, (c) 1899
  2. Wilhelm, Ernst. Graha Sutras, Kala Occult Publishers, p.49. আইএসবিএন ০-৯৭০৯৬৩৬-৪-৫
  3. Mythology of the Hindus By Charles Coleman p.132
  4. Gopal, Madan (১৯৯০)। K.S. Gautam, সম্পাদক। India through the ages। Publication Division, Ministry of Information and Broadcasting, Government of India। পৃষ্ঠা 75। 
  5. Gopal, Madan (১৯৯০)। K.S. Gautam, সম্পাদক। India through the ages। Publication Division, Ministry of Information and Broadcasting, Government of India। পৃষ্ঠা 77। 
  6. [১]

বহিঃসংযোগসম্পাদনা