প্রধান মেনু খুলুন

তালমা নদী

বাংলাদেশের নদী

তালমা নদী বাংলাদেশ-ভারতের একটি আন্তঃসীমান্ত নদী[১] নদীটির দৈর্ঘ্য বাংলাদেশ অংশে ২০ কিলোমিটার। এই নদীর গড় বিস্তৃতি প্রায় ৪৫ মিটার। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড বা "পাউবো" কর্তৃক তালমা নদীর প্রদত্ত পরিচিতি নম্বর উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী নং ৫১।[২][৩]

তালমা নদী
দেশসমূহ বাংলাদেশ, ভারত
রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ
অঞ্চল রংপুর বিভাগ
জেলাসমূহ পঞ্চগড় জেলা, জলপাইগুড়ি জেলা
উত্স জলপাইগুড়ি জেলা
মোহনা করতোয়া
দৈর্ঘ্য ২৮ কিলোমিটার (১৭ মাইল)

প্রবাহসম্পাদনা

তালমা নদী জলপাইগুড়ি জেলার বৈকুণ্ঠপুর জঙ্গলের পাহাড় থেকে উৎপন্ন হয়ে পঞ্চগড়ের ভিতরগড় অঞ্চলে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। এই নদী বাংলাদেশে প্রায় ২০ কিলোমিটার প্রবাহিত হয়ে পঞ্চগড় শহরের প্রায় ১০ কিলোমিটার পূর্ব দিকে কাজলদীঘির নিকটবর্তী করতোয়া নদীতে পড়েছে। প্রায় দেড় হাজার বছর পূর্বে পৃথ্বু রাজা ভিতরগড়ের উত্তর প্রান্তে একটি পাথরের বাঁধ, বীর বাঁধ, নির্মাণ করে এর গতিপথ নিয়ন্ত্রণ করেছিলেন। বর্তমানে পঞ্চগড় জেলার সদর উপজেলার ভিতরগড় সীমান্ত ফাঁড়ির বিপরীতে তালমা নদীতে ভারত বাঁধ নির্মাণ করেছে।[৩]

অন্যান্য তথ্যসম্পাদনা

এই নদী থেকে নুড়ি আহরণ করে অনেকেই জীবিকা নির্বাহ করে। এছাড়া ১৯৪৭ সালের পর থেকে প্রতি বছর এই নদীতীরে একটি নির্দিষ্ট সময়ে মেলা হয়। তখন বাংলাদেশ ও ভারতের পার্শ্ববর্তী কয়েকটি গ্রামের লোকজন উপচে পড়ে সেই মেলায়।[৩]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "আন্তঃসীমান্ত_নদী"বাংলাপিডিয়া। ১৬ জুন ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১৪ 
  2. মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক (ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। "উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী"। বাংলাদেশের নদনদী: বর্তমান গতিপ্রকৃতি (প্রথম সংস্করণ)। ঢাকা: কথাপ্রকাশ। পৃষ্ঠা ১২০। আইএসবিএন 984-70120-0436-4 
  3. ড. অশোক বিশ্বাস, বাংলাদেশের নদীকোষ, গতিধারা, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ২০১১, পৃষ্ঠা ২১৫।