ডেভিড রাসেল ল্যাঞ্জ (৪ অগাস্ট ১৯৪২ – ১৩ অগাস্ট ২০০৫) একজন নিউজিল্যান্ডের রাজনীতিবিদ যিনি ১৯৮৪ থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের ৩২তম প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।[১]

মাননীয়

ডেভিড ল্যাঞ্জ
David Lange (cropped).jpg
নিউজিল্যান্ডের ৩২ন্ড প্রধানমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
২৬ জুলাই ১৯৮৪ – ৮ অগাস্ট ১৯৮৯
সার্বভৌম শাসকদ্বিতীয় এলিজাবেথ
গভর্নর-জেনারেলডেভিড বিটি
পল রিভস
ডেপুটিজেফ্রি পামার
পূর্বসূরীরবার্ট মুলদুন
উত্তরসূরীজেফ্রি পামার
৩৫থ শিক্ষামন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
২৪ অগাস্ট ১৯৮৭ – ৮ অগাস্ট ১৯৮৯
পূর্বসূরীরাসেল মার্শাল
উত্তরসূরীজিওফ্রে পামার
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম(১৯৪২-০৮-০৪)৪ আগস্ট ১৯৪২
ওটাহুহু, অকল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড
মৃত্যু১৩ আগস্ট ২০০৫(2005-08-13) (বয়স ৬৩)
মিডলমোর, অকল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড
মৃত্যুর কারণরেনাল ব্যর্থতা এবং ডায়াবেটিস থেকে জটিলতা
সমাধিস্থলওয়াইকারকা কবরস্থান
রাজনৈতিক দলশ্রম
দাম্পত্য সঙ্গীনাওমি জয় ক্র্যাম্পটন (বি. ১৯৬৮; ডিভোর্সড ১৯৯১)
মার্গারেট পোপ (বি. ১৯৯২)
সন্তান
পিতামাতারায় ল্যাঞ্জ
ফোবি ফিশ ল্যাঞ্জ
আত্মীয়স্বজনপিটার ল্যাঞ্জ (ভাই)
মাইকেল বাসেট (তৃতীয় কাজিন)
জীবিকাআইনজীবী
পুরস্কাররাইট লাইভলিভের পুরষ্কার
স্বাক্ষর

পেশায় একটি আইনজীবী, ল্যাঙ্গ ১৯৭৭ সালের মাঙ্গের উপ-নির্বাচন তে প্রথমবার নিউজিল্যান্ড সংসদ এ নির্বাচিত হয়েছিলেন। শীঘ্রই তিনি বুদ্ধি কাটানোর জন্য খ্যাতি অর্জন করেছিলেন (কখনও কখনও নিজের বিরুদ্ধে পরিচালিত) এবং স্পষ্টতই। ল্যাঙ্গ ১৯৮৩ সালে লেবার পার্টি এবং বিরোধী দলের নেতা এর নেতা হন, সফল বিল রোলিং[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "David Lange dies at 63" (English ভাষায়)। The Age। আগস্ট ১৪, ২০০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৩-১০ 
  2. "About David"David Lange Memorial Trust (English ভাষায়)। ২০১০-০৫-২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৩-১০