প্রধান মেনু খুলুন

ডুডলি স্টুয়ার্ট জন মুর, সিবিই (ইংরেজি: Dudley Stuart John Moore; ১৯ এপ্রিল ১৯৩৫২৭ মার্চ ২০০২) ছিলেন একজন ইংরেজ অভিনেতা, কৌতুকাভিনেতা, সঙ্গীতজ্ঞ ও সুরকার। তিনি জ্যাজ ও ধ্রুপদী সজ্ঞীতজ্ঞ ও সুরকার এবং হলিউড চলচ্চিত্রে অভিনয় করে খ্যাতি অর্জন করেন।[১]

ডুডলি মুর

Dudley Moore.jpg
১৯৯১ সালে একাডেমি পুরস্কার আয়োজনে মুর
স্থানীয় নাম
Dudley Moore
জন্ম
ডুডলি স্টুয়ার্ট জন মুর

(১৯৩৫-০৪-১৯)১৯ এপ্রিল ১৯৩৫
চেরিং ক্রস, লন্ডন, ইংল্যান্ড
মৃত্যু২৭ মার্চ ২০০২(2002-03-27) (বয়স ৬৬)
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল১৯৬১-১৯৯৮
দাম্পত্য সঙ্গীসুজি কেন্ডাল
(বি. ১৯৬৮; বিচ্ছেদ. ১৯৭২)

টিউজডে ওয়েল্ড
(বি. ১৯৭৫; বিচ্ছেদ. ১৯৮০)

ব্রোগান লেন
(বি. ১৯৮৮; বিচ্ছেদ. ১৯৯১)

নিকোল রথসচাইল্ড
(বি. ১৯৯৪; বিচ্ছেদ. ১৯৯৮)
সন্তান

তিনি যুক্তরাজ্যে হাস্যরসাত্মক রিভিউ বিয়ন্ড দ্য ফ্রিঞ্জ-এর চারজন রচয়িতা ও পরিবেশকদের মধ্যে একজন হিসেবে প্রসিদ্ধি লাভ করেন। এই দলের অপর এক সদস্য পিটার কুকের সাথে তিনি নট অনলি... বাট অলসো টেলিভিশন ধারাবাহিকে অভিনয় করেন। তারা দুইজন সত্তরের দশকের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত এই ধারাবাহিক কাজ করেন। তিনি পিটার কুকের সাথে গুড মর্নিং টিভি অনুষ্ঠানে অভিনয়ের জন্য ১৯৭৫ সালে একটি গ্র্যামি পুরস্কার অর্জন করেন। এই সময়ে মুর লস অ্যাঞ্জেলেসে বসবাস শুরু করেন এবং চলচ্চিত্রে মনযোগী হন।

হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবে তার একক কর্মজীবন শুরু করার পরতার অভিনীত কয়েকটি হলিউড চলচ্চিত্র হিট তকমা লাভ করে, তন্মধ্যে রয়েছে ফাউল প্লে (১৯৭৮), টেন (১৯৭৯), ও আর্থার (১৯৮১)। আর্থার চলচ্চিত্রে জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন এবং সেরা সঙ্গীতধর্মী বা হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র অভিনেতা বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার লাভ করেন। তিনি মিকি অ্যান্ড মড (১৯৮৪) চলচ্চিত্রে অভিনয় করে অপর একটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার লাভ করেন।

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

মুর ১৯৩৫ সালের ১৯ এপ্রিল মধ্য লন্ডনের চেরিং ক্রস হাসপাতালে জন্মগ্রহণ করেন। তাত পিতা জন মুর ছিলেন রেলওয়ের বৈদ্যুতিক কর্মকর্তা এবং তার মাতা আডা ফ্রান্সিস (প্রদত্ত নাম: হিউজ) ছিলেন একজন অফিস সহকারী। তার পিতা স্কটিশ ছিলেন। তিনি গ্লাসগোর অধিবাসী ছিলেন। মুর এসেক্সের ড্যাগেনহামে বেড়ে ওঠেন।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Dudley Moore - British actor, comedian, and musician"এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৭ আগস্ট ২০১৮ 
  2. "Obituaries: Dudley Moore"দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ (ইংরেজি ভাষায়)। ২৮ মার্চ ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ২৭ আগস্ট ২০১৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা