প্রধান মেনু খুলুন

ডন (ইংরেজি: Dawn, অনুবাদ 'প্রভাত') হচ্ছে পাকিস্তানের সবচেয়ে পুরাতন এবং সবচেয়ে বেশী পঠিত এবং জনপ্রিয় ইংরেজি পত্রিকা। দেশটির অন্যতম তিন বৃহৎ ইংরেজি পত্রিকাগুলোর মধ্যে ডন সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় এবং এটি 'ডন গ্রুপ অব নিউজপেপার্স' নামে একটি শিল্পপ্রতিষ্ঠান চালায়। পত্রিকাটি 'পাকিস্তান হেরাল্ড পাবলিকেশন্স' দ্বারা প্রকাশিত হয় এবং হেরাল্ড নামে পত্রিকাটির আলাদা একটি ম্যাগাজিন আছে যা প্রতিদিন বের হয় পত্রিকাটির সঙ্গেই, আরো ম্যাগাজিন হলো 'স্পাইডার' (মাসিক) এবং 'অরোরা' (দৈনিক)।

ডন
DAWN
ডন পত্রিকার লোগো.png
ধরনদৈনিক পত্রিকা
ফরম্যাটবড় কাগজ
মালিকডন গ্রুপ অব নিউজপেপার্স
প্রকাশকখাজা কলিম আহমেদ
সম্পাদকজাফর আব্বাস
প্রতিষ্ঠাকাল২৬ অক্টোবর ১৯৪১
দিল্লি
রাজনৈতিক মতাদর্শউদার, মধ্যমপন্থী এবং প্রগতিবাদী[১]
সদরদপ্তরকরাচী, পাকিস্তান
দাপ্তরিক ওয়েবসাইটdawn.com

ডন পত্রিকাটির প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন পাকিস্তান রাষ্ট্রের জনক মুহাম্মদ আলী জিন্নাহ। তিনি বর্তমান ভারতের দিল্লিতে ১৯৪১ সালের ২৬ অক্টোবর তার রাজনৈতিক দল 'মুসলিম লীগ' এর প্রকাশনা হিসেবে পত্রিকাটি বের করেন। জনগণের জন্য প্রথমবারের মত পত্রিকাটি ১২ অক্টোবর ১৯৪২ এ বের হয় এবং ওটি 'লতিফি প্রেস' (দিল্লি) বের করেছিলো।[২][৩][৪]

পাকিস্তানের স্বাধীনতাপূর্ব ইতিহাসসম্পাদনা

 
মুহাম্মদ আলী জিন্নাহ, ডন পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা

১৯৪১ সালে সর্বপ্রথম ডন একটি সাপ্তাহিক পত্রিকা হিসেবে দিল্লী শহরে বের হয়েছিলো। জিন্নাহর নির্দেশে এই ডন দিল্লীতে নিখিল ভারত মুসলিম লীগ এর মূল প্রকাশনামাধ্যম হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে, ইংরেজি ভাষায় পুরো মুসলিম লীগের কণ্ঠস্বর হিসেবেও পত্রিকাটি পরিচিতি পেয়ে যায়, পাকিস্তানের জন্মের পথ ত্বরান্বিত করার জন্য একটি বার্তামাধ্যম হয়ে গিয়েছিলো এই পত্রিকাটি। জিন্নাহ এই ডন সম্বন্ধে বলেনঃ

"ডন ভারতের মুসলমানদের চিত্র তুলে ধরবে এবং সর্বভারতীয় মুসলিম লীগের একটি বার্তাসংস্থা হিসেবে কাজ করবে এটি। নিখিল ভারত মুসলিম লীগের অর্থনৈতিক, শিক্ষাসংক্রান্ত, সামাজিক এবং রাজনৈতিক সংক্রান্ত সকল ধরণের খবর দেবে এই ডন।"[৫]

১৯৪৪ সালের অক্টোবর মাসে ডন দৈনিক পত্রিকায় রূপ নেয়, এটির তখনকার সম্পাদক ছিলেন পথান জোসেফ, এই বছরেই জোসেফ ডন এর চাকরি থেকে পদত্যাগ করেন পাকিস্তান আন্দোলন এর ব্যাপারে জিন্নাহ এর মতের বিরোধিতা করে। আলতাফ হোসেন নতুন সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন এবং তিনি পাকিস্তান রাষ্ট্রের জন্মের গোঁড়া সমর্থক ছিলেন, ডন পত্রিকা তার নির্দেশে পাকিস্তান রাষ্ট্রের জন্মের জন্য জোর প্রচারণা চালাতে থাকে, ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস ডন পত্রিকার এহেন কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করা শুরু করেছিলো কারণ তারা দেখছিলো যে ভারতে হিন্দু-মুসলিম বিদ্বেষ এবং সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হতে পারে, তাছাড়া লর্ড লুই মাউন্টব্যাটেন যিনি তৎকালীন ভারতের ভাইসরয় এবং গভর্নর জেনারেল ছিলেন ডন এর প্রচারণায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন।

১৯৪৭ সালের ১৫ই আগস্ট করাচীতে আলতাফ হোসেন তার কর্মচারী নিয়ে ডন পত্রিকার নতুন করে যাত্রা শুরু করেন স্বাধীন পাকিস্তান ভূখণ্ডে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Durrani, Ammara (২০০৯), "Pride and Proliferation: Pakistan's Nuclear Psyche After A. Q. Khan", South Asian Cultures of the Bomb: Atomic Publics and the State in India and Pakistan (ইংরেজি ভাষায়), ইন্ডিয়ানা বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস, পৃষ্ঠা 103 
  2. Jinnah, Mahomed Ali (১৯৭৬)। Plain Mr. Jinnah (ইংরেজি ভাষায়)। 1। Royal Book Company (on GoogleBooks website)। পৃষ্ঠা 236। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৭ 
  3. "Our International Business Representatives" (ইংরেজি ভাষায়)। Dawn Media Group। ৩০ জুন ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৭ 
  4. "The Inside Pages: An Analysis of the Pakistani Press" (পিডিএফ) (ইংরেজি ভাষায়)। Center for Strategic and International Studies। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৭ 
  5. Aqeel-uz-zafar Khan। "Jinnah and the Muslim press"। JANG Newspaper Group। ১০ জানুয়ারি ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৭