জন স্টিথ পেম্বারটন (জুলাই ৮, ১৮৩১ – আগস্ট ১৬, ১৮৮৮) হলেন একজন আমেরিকান ঔষধ প্রস্তুতকারক। তিনি কোকা-কোলা পানীয়ের আবিষ্কারের জন্য বিশ্বজুড়ে পরিচিত।

জন পেম্বারটন
John Pemberton.jpg
জন স্টিথ পেম্বারটন
জন্ম(১৮৩১-০৭-০৮)৮ জুলাই ১৮৩১
মৃত্যু১৬ আগস্ট ১৮৮৮(1888-08-16) (বয়স ৫৭)
সমাধিলিনউড সমাধিস্থল, কলম্বাস, জর্জিয়া, যুক্তরাষ্ট্র
শিক্ষারিফর্ম মেডিকেল কলেজ অফ জর্জিয়া
পেশাঔষধ প্রস্তুতকারক
পরিচিতির কারণকোকা-কোলার আবিষ্কর্তা
দাম্পত্য সঙ্গীআন এলিজা ক্লিফোর্ড লুইস
সন্তানচার্লস নি পেম্বারটন
পিতা-মাতাজেমস পেম্বারটন (বাবা)
মার্থা ল. গান্ট (মা)

কোকা-কোলা আবিষ্কারসম্পাদনা

১৮৬৫ সালের এপ্রিল মাসে, কলম্বাসের যুদ্ধে জন পেম্বারটন তার বুকে তরবারির আঘাত পান। এই ক্ষতর ব্যাথা থেকে বাঁচতে তিনি মরফিনে আসক্ত হয়ে পড়েন।[১][২][৩] ১৮৬৬ সালে, তার এই আসক্তি থেকে বাঁচার জন্য তিনি নানান পরীক্ষা-নিরিক্ষা শুরু করেন। তিনি ব্যাথানাশক ঔষুধ নিয়েও পরীক্ষা শুরু করেন যা ছিল আফিমমুক্ত এবং মরফিনের মতো কার্যকরী।[৪][৫][৬] এরপর আরো নানান পরীক্ষার পর জন পেম্বারটন কোকা-কোলার ফর্মুলা আবিষ্কার করেন।

মৃত্যুসম্পাদনা

 
জর্জিয়াতে জন পেম্বারটনের সমাধিস্থল

জন পেম্বারটন পাকস্থলির ক্যান্সারে মারা গিয়েছিলেন। তখন তার বয়স ছিল ৫৭ বছর। এছাড়া তিনি তখন দারিদ্র্যতায় ভুগছিলেন এবং মরফিনে আসক্ত ছিলেন। মৃত্যুর পর তার দেহ কলম্বাস, জর্জিয়াতে ফেরত আনা হয়। সেখানে লিনউড সমাধিস্থলে তাকে দাফন করা হয়। তার সমাধিতে তার কনফিডারেট আর্মির সাফল্যগাথা বর্ণণা করা হয়েছে। তার মৃত্যুর পর তার ছেলে চার্লস তার বাবার ফর্মুলায় ব্যবসা চালাতে থাকেন। কিন্তু ছয় বছর পর চার্লস পেম্বারটনও মারা যান।[৭]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা