প্রধান মেনু খুলুন

জোনাথন "জনি" লি মিলার (ইংরেজি: Jonathan "Jonny" Lee Miller), যিনি জনি লি মিলার (জন্ম: ১৫ নভেম্বর, ১৯৭২) নামে সমধিক পরিচিত, একজন ইংরেজ অভিনেতা

জনি লি মিলার
Jonny Lee Miller Comic-Con 2012 (cropped).jpg
২০১২ সালে সান ডিয়াগো কমিক কন ইন্টারন্যাশনাল অনুষ্ঠানে মিলার
জন্ম
জোনাথন লি মিলার
জাতীয়তাব্রিটিশ,আমেরিকান
যেখানের শিক্ষার্থীটিফিন স্কুল
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল(১৯৮৩-বর্তমান)
দাম্পত্য সঙ্গীঅ্যাঞ্জেলিনা জোলি (১৯৯৬-১৯৯৯)
মিশেল হিক্স (২০০৮-বর্তমান)
সন্তান
আত্মীয়বার্নার্ড লি (পিতামহ)

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

দক্ষিণপশ্চিম লন্ডনের কিংসটন আপন এভন-এ জনি লি মিলারের জন্ম। তার মায়ের নাম অ্যান লি ও বাবা অ্যালান মিলার। মিলারের মা একটি নাটক প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন এবং লস্ট এন্ড ফাউন্ড-এর মতো বহু চলচ্চিত্রে তাকে অভিনয় করতে দেখা গেছে। এছাড়া বাবা অ্যালান মিলার প্রথমে একজন মঞ্চ অভিনেতা হিসেবে তার পেশাজীবন শুরু করলেও পরবর্তীকালে তিনি বিবিসি'র মঞ্চ ব্যবস্থাপকরূপে কাজ করেন।[১] প্রথম দিকের জেমস বন্ডের ছবিগুলোতে এম চরিত্রে অভিনয় করে মিলারের দাদা বার্নাড লি বেশ জনপ্রিয় হয়েছিলেন। মিলার একবার বলেছিলেন, ছোটবেলায় তার বোনের সাথে টেলিভিশন কেন্দ্রে টপ অফ দ্য পপ্‌সব্লু পিটার নামে দুটো অনুষ্ঠানের নির্মাণ দেখাটা এখন পর্যন্ত তার অন্যতম একটি পছন্দের স্মৃতি।[২] তিনি পড়াশোনা করেছেন কিংসটন আপন এভনের টিফিন স্কুলে, এবং সেখানেই তার প্রথম অভিনয়ের অভিজ্ঞতা হয়। তিনি বিদ্যালয়ের টিফিন সুইং ব্যান্ড-এ কাজ করতেন।[৩] ১৭ বছর বয়সে অভিনয়ের টানে মিলার স্কুল ছাড়েন।[৪]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

২৮ মার্চ, ১৯৯৬ সালে জোলি অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলির সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। আঠারো মাস পর থেকে তারা আলাদা বসবাস করতে শুরু করেন,[৫] এবং ৯ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৯ তাদের বিচ্ছেদ ঘটে। ২০০৬ সালে তিনি অভিনেত্রী ও মডেল মিশেল হিক্সের সাথে প্রেম শুরু করেন।[৬] জুলাই ২০০৮-এ তারা মালিবুতে বিয়ে করেন, কারণ তারা তাদের প্রথম সন্তানটি আশা করছিলেন। তাদের সন্তান বাস্টার টিমোথি মিলারের জন্ম হয় ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলসে, ৩ ডিসেম্বর, ২০০৮-এ। জন্মের সময় তার ওজন ছিলো ৯ পাউন্ড। মিলারের বর্তমান ও সাবেক স্ত্রী'র জন্মদিন অভিন্ন, ৪ জুন; কিন্তু জন্মসালটি ভিন্ন।

মিলার চেলসি ফুটবল ক্লাবের একজন সমর্থক।[৭] তিনি একজন ম্যারাথন দৌড়বিদ, এবং প্রায় সময়ই তিনি দাতব্য প্রতিষ্ঠান ম্যানকাপ-কে আর্থিক সহায়তা দেন। ২০০৮ সালের লন্ডন ম্যারাথনে তিনি ৩ ঘণ্টা ১ মিনিট ৪০ সেকেন্ড দৌড়েছিলেন। ২০০৬ সালে তিনি ম্যারাথন ডেস স্যাবেল্‌স-এ দৌড়ানোর জন্য চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেছিলেন, কিন্তু টেলিভিশন ধারাবাহিক স্মিথ-এর সাথে এক চুক্তিপত্রের বাধার দরূণ তিনি দৌড়ানো বাদ দিতে হয়। অবশেষে তিন পর্ব চলার পর টিভি ধারাবাহিকটির সাথে মিলারের চুক্তিটি বাতিল হয়ে যায়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা