ছিংতাও

পূর্ব চীনের শানতুং প্রদেশের জেলা-স্তরের নগরী

ছিংতাও (চীনা: 青岛) চীনের শানতুং প্রদেশের পূর্বভাগের একটি প্রধান নগরী। এটি চীনের পীত সাগর উপকূলের উপরে অবস্থিত। নগরীটি এশিয়া ও ইউরোপকে সংযোগকারী এক অঞ্চল, এক পথ নামক চীনা সরকারী উদ্যোগের একটি প্রধান কেন্দ্র।[২] শানতুং প্রদেশের সব নগরীর মধ্যে ছিংতাও নগরীর স্থূল অভ্যন্তরীণ উৎপাদন সর্বোচ্চ। প্রশাসনিকভাবে এটিকে উপ-প্রাদেশিক স্তরের মর্যাদা দিয়ে পরিচালনা করা হয়।[৩] ছিংতাও উপ-প্রাদেশিক নগর এলাকার অধীনে ছয়টি পৌরজেলা এবং চারটি উপজেলা-স্তরের নগরী অবস্থিত। ২০১৪ সালের প্রাক্কলন অনুযায়ী ছিংতাও পৌর এলাকাতে প্রায় ৬২ লক্ষ অধিবাসী রয়েছে।[৪] নগরীটি শানতুং উপদ্বীপের বিপরীতে, পীত সাগরের উপকূলে অবস্থিত এবং এর সাথে উত্তর-পূর্বে ইয়েনথাই, পশ্চিমে ওয়েইফাং এবং দক্ষিণ-পশ্চিমে রিচাও নগরীর সীমানা রয়েছে।

ছিংতাও
青岛市
জেলা-স্তর এবং উপ-প্রাদেশিক নগরী
ঘড়ির কাঁটার দিকে উপরে বাম থেকে: ছিংতাওয়ের দিগন্ত পরিলেখ, সাধু মাইকেলের মহাগির্জা, ছিংতাও পোতাশ্রয়, লাও পর্বতের পাদদেশে অবস্থিত একটি মন্দির, এবং চৌঠা মে চত্বর
ঘড়ির কাঁটার দিকে উপরে বাম থেকে: ছিংতাওয়ের দিগন্ত পরিলেখ, সাধু মাইকেলের মহাগির্জা, ছিংতাও পোতাশ্রয়, লাও পর্বতের পাদদেশে অবস্থিত একটি মন্দির, এবং চৌঠা মে চত্বর
ছিংতাও অফিসিয়াল লোগো
লোগো
চীনের পূর্ব উপকূলে ছিংতাও নগরীর অবস্থান (লাল রঙ)
চীনের পূর্ব উপকূলে ছিংতাও নগরীর অবস্থান (লাল রঙ)
লুয়া ত্রুটি মডিউল:অবস্থান_মানচিত্ এর 480 নং লাইনে: নির্দিষ্ট অবস্থান মানচিত্রের সংজ্ঞা খুঁজে পাওয়া যায়নি। "মডিউল:অবস্থান মানচিত্র/উপাত্ত/China Qingdao" বা "টেমপ্লেট:অবস্থান মানচিত্র China Qingdao" দুটির একটিও বিদ্যমান নয়।Location of the municipal government
স্থানাঙ্ক (ছিংতাও পৌর সরকার): ৩৬°০৪′০১″ উত্তর ১২০°২২′৫৮″ পূর্ব / ৩৬.০৬৬৯° উত্তর ১২০.৩৮২৭° পূর্ব / 36.0669; 120.3827
দেশগণচীন
প্রদেশশানতুং
জার্মানিকে ইজারা৬ই মার্চ ১৮৯৮
জাপানি দখলদারি৭ই নভেম্বর ১৯১৪
চীনে প্রত্যাবর্তন১০ই ডিসেম্বর ১৯২২
জাপানি দখলদারি১০ই জানুয়ারি ১৯৩৮
চীনে প্রত্যাবর্তন১৫ই আগস্ট ১৯৪৫
Municipal seat১১, শিয়াংকাংচুং সড়ক, শিনান পৌরজেলা
সরকার
 • চীনা সাম্যবাদী দল সচিবচাং চিয়াংথিং
 • নগরাধ্যক্ষমেং ফানলি
আয়তন
 • জেলা-স্তর এবং উপ-প্রাদেশিক নগরী১১,০৬৭ বর্গকিমি (৪,২৭৩ বর্গমাইল)
 • স্থলভাগ১১,০৬৭ বর্গকিমি (৪,২৭৩ বর্গমাইল)
 • পৌর এলাকা (২০১৮)[১]১,৬৩২ বর্গকিমি (৬৩০ বর্গমাইল)
 • মহানগর৫,০১৯ বর্গকিমি (১,৯৩৮ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১৪)
 • জেলা-স্তর এবং উপ-প্রাদেশিক নগরী৯০,৪৬,২০০
 • জনঘনত্ব৮২০/বর্গকিমি (২,১০০/বর্গমাইল)
 • পৌর এলাকা (2018)[১]৫৯,৩০,০০০
 • পৌর এলাকার জনঘনত্ব৩,৬০০/বর্গকিমি (৯,৪০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলChina Standard (ইউটিসি+8)
Postal code266000
এলাকা কোড0532
আইএসও ৩১৬৬ কোডCN-SD-02
স্থূঅউ¥ 1.2 trillion
(US$140 billion)
মাথাপিছু স্থূঅউ¥ 127,745
(US$18,000)
License Plate Prefix鲁B & 鲁U
তটরেখা৮৬২.৬৪ কিমি (৫৩৬.০২ মা)
(inclusive of offshore islands)
৭৩০.৬৪ কিমি (৪৫৪.০০ মা)
(exclusive of islands)
Major Nationalitiesহান: ৯৯.৮৬%
উপজেলা-স্তরের বিভাগসমূহ১০
ওয়েবসাইটwww.qingdao.gov.cn
ছিংতাও
Qingdao (Chinese characters).svg
"Qingdao" in Simplified (top) and Traditional (bottom) Chinese characters
চীনা নাম
সরলীকৃত চীনা 青岛
ঐতিহ্যবাহী চীনা 青島
পোস্টালTsingtao
আক্ষরিক অর্থ"Azure Isle"
German নাম
GermanTsingtau

ছিংতাও একটি প্রধান সমুদ্রবন্দর ও নৌঘাঁটি। এটি একই সাথে একটি আর্থ-বাণিজ্যিক কেন্দ্র। এখানে হাইয়ার ও হাইসেন্স নামক ইলেকট্রনীয় পণ্য উৎপাদনকারী ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলির প্রধান কার্যালয় অবস্থিত। ছিংতাও নগরীর প্রধান নগর এলাকাটি থেকে হুয়াংতাও জেলা পর্যন্ত চিয়াওচৌ উপসাগরের উপর দিয়ে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে। ছিংতাও নগরীটি বিংশ শতাব্দীর শুরুতে প্রায় দেড় দশক ধরে (১৮৯৮-১৯১৪) জার্মানদের দখলে ছিল। নগরীর ঐতিহাসিক, জার্মান-শৈলীর স্থাপত্যে নির্মিত ভবনগুলি এবং ছিংতাও মদ চোলাইখানা, যা কিনা চীনের ২য় বৃহত্তম মদ চোলাইখানা,[৫] সেই জার্মান দখলদারির সময়ের সাক্ষী।

২০২০ সালের বৈশ্বিক আর্থিক কেন্দ্রসমূহের সূচীতে ছিংতাও বিশ্বে ৪৭তম স্থান অধিকার করে।[৬] ২০০৭ সালের চীনা নগরীসমূহের বেইজিং সম্মেলনে প্রকাশিত চীনা নগরীসমূহের মার্কা মূল্য প্রতিবেদনে ছিংতাও চীনের সেরা দশটি নগরীর একটি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিল। [৭] ২০০৯ সালে নগরী প্রতিযোগিতামূলকতা সংক্রান্ত চীনা গবেষণা কেন্দ্রের প্রতিবেদনে ছিংতাও চীনের সর্বাধিক বাসযোগ্য নগরীর মর্যাদা লাভ করে। [৮][৯]

২০২০ সালের বিজ্ঞান নগরীসমূহের নেচার সাময়িকীর সূচক অনুযায়ী ছিংতাও বৈশ্বিক বৈজ্ঞানিক গবেষণার অন্যতম প্রধান একটি কেন্দ্র। [১০] এখানে বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য বিশ্ববিদ্যালয় আছে, যেমন চীন মহাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় এবং চীন পেট্রোলিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Cox, Wendell (২০১৮)। Demographia World Urban Areas. 14th Annual Edition (PDF)। St. Louis: Demographia। পৃষ্ঠা 22। ৩ মে ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১৮ 
  2. 2017中国青岛青岛概况 - 中文 - 青岛之窗 - 让青岛走向世界,让世界了解青岛www.qingdaochina.org। ৬ মার্চ ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ মার্চ ২০১৯ 
  3. 中央机构编制委员会印发《关于副省级市若干问题的意见》的通知. 中编发[1995]5号। 豆丁网। ১৯৯৫-০২-১৯। ২৯ মে ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৫-২৮ 
  4. 3-4各市人口数和总户数(2014年)-tjsql.comwww.tjsql.com। ৮ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ মার্চ ২০১৬ 
  5. "China Beer" (PDF)। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৬-১৩ 
  6. "The Global Financial Centres Index 28" (PDF)। Long Finance। সেপ্টেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  7. "China's Top 10 Most Livable Cities"hnloudi.gov.cn। Hunan Loudi Official Government। ২০১২-০৩-২৮। ১০ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৬-১৮ 
  8. "List of 10 Most Livable Cities in China Issued"। ২০০৯-০৭-০৯। ২৬ এপ্রিল ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১২-১৮ 
  9. Lin Liyao (蔺丽瑶) (২০১১-০৭-২৭)। "Top 10 livable cities in China 2011"। China.org.cn। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৯-১০ 
  10. "Nature Index 2020 Science Cities | Supplements | Nature Index"www.natureindex.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৬