গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন

ব্রিটিশ ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানী

গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন পিএলসি (জিএসকে) একটি ব্রিটিশ ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানী। লন্ডনের ব্রেন্টফোর্ডে জিএসকের সদর দফতর অবস্থিত।[৩] ২০০০ সালে গ্লাক্সো ওয়েলকাম এবং স্মিথক্লাইন বেকহাম একীভূত হয়ে জিএসকে প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০১৫ সালের হিসাবে ফাইজার, নোভারটিস, মার্ক, হফম্যান-লা রোশসানোফির পর এটি বিশ্বের ষষ্ঠ বৃহত্তম ওষুধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি।

গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন পিএলসি
ধরনপাবলিক লিমিটেড কোম্পানি
LSIGSK
NYSEGSK
FTSE 100 Component
আইএসআইএনGB0009252882
শিল্পঔষধনির্মাণ শিল্প
জৈবপ্রযুক্তি
Consumer goods
পূর্বসূরীGlaxo plc
Wellcome plc
Beecham Group plc
Smith Kline & French Inc
প্রতিষ্ঠাকালডিসেম্বর ২০০০; ২০ বছর আগে (2000-12)
সদরদপ্তর৯৮০ গ্রেট ওয়েস্ট রোড, ব্রেন্টফোর্ড, লন্ডন, যুক্তরাজ্য
বাণিজ্য অঞ্চল
বিশ্বব্যাপী
প্রধান ব্যক্তি
পণ্যসমূহঔষধ, টিকা, মুখসংক্রান্ত স্বাস্থ্যসেবা, পুষ্টি পণ্য, ব্যবস্থাপত্র ছাড়া লভ্য ঔষধ
আয়£ ৩০.১৮৬ বিলিয়ন (২০১৭)[১]
£৪.০৮৭ বিলিয়ন (২০১৭)[১]
£২.১৬৯ বিলিয়ন (২০১৭)[১]
কর্মীসংখ্যা
৯৯,৩০০ (২০১৬)[২]
অধীনস্থ প্রতিষ্ঠান
ওয়েবসাইটwww.gsk.com

ইতিহাসসম্পাদনা

 
গ্ল্যাক্সো ল্যাবরেটরিজ সাইন সহ নিউজিল্যান্ডের বনিথর্পে ঐতিহাসিক গ্ল্যাক্সো কারখানা

১৮৭৩ সালে লন্ডনবাসী জোসেফ এডওয়ার্ড নাথান নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটন শহরে সাধারণ লেনদেনকারী কোম্পানি হিসেবে জোসেফ নাথান অ্যান্ড কো. প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।[৪]

গবেষণা এবং পণ্যসম্পাদনা

ফার্মাসিউটিক্যালসসম্পাদনা

জিএসকে হাঁপানি, ক্যান্সার, সংক্রমণ, ডায়াবেটিস এবং মানসিক স্বাস্থ্যের মতো বড় রোগের ক্ষেত্রে পণ্য তৈরি করে। ২০১৩ সালে তার সবচেয়ে বেশি বিক্রিযোগ্য পণ্য ছিল অ্যাডভের, অ্যাভোডার্ট, ফ্লভেন্ট, অগমেন্টিন, লোভাজা, এবং ল্যামিক্টাল।

ম্যালেরিয়ার টিকাসম্পাদনা

২০১৪ সালে প্রথম ম্যালেরিয়া ভ্যাকসিনের নিয়ন্ত্রক অনুমোদনের জন্য জিএসকে আবেদন করেছিল।

ভোক্তা স্বাস্থ্যসেবাসম্পাদনা

জিএসকে এর ভোক্তা স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ ২০১৩ সালে মৌখিক স্বাস্থ্যসেবা বিক্রি করে ৫.২ বিলিয়ন পাউন্ড অর্জন করেছে, যার মধ্যে আছে অ্যাকুয়াফ্রেশ, ম্যাকিলান এবং সেনসোডাইন টুথপেস্ট, হরলিক্স, বুস্ট এবং ভারতের একটি চকোলেট-স্বাদযুক্ত মল্ট পানীয়।

করোনাভাইরাস টিকাসম্পাদনা

২০২০ সালের জুলাইয়ে যুক্তরাজ্য সরকার জিএসকে এবং সানোফির দ্বারা তৈরি করোনভাইরাস ভ্যাকসিনের ৬০ মিলিয়ন ডোজ নিয়েছিল।

সুযোগসুবিধাসম্পাদনা

২০১৩ সালের অনুসারে জিএসকের ১১৫ টিরও বেশি দেশে অফিস ছিল এবং ৯৯,০০০ এরও বেশি লোককে নিয়োগ করেছিল; গবেষণা ও উন্নয়ন এ জিএসকে ১২,৫০০ জন নিয়োগ লোক করেছিল।

স্বীকৃতি, দাতব্য এবং সামাজিক দায়বদ্ধতাসম্পাদনা

বৈজ্ঞানিক স্বীকৃতিসম্পাদনা

বেসিক মেডিকেল সায়েন্স এবং / অথবা থেরাপিউটিক্স বিকাশে অবদানের জন্য চারজন গ্লাক্সোস্মিথক্লাইন বিজ্ঞানীকে নোবেল কমিটি স্বীকৃতি দিয়েছে।

দাতব্য এবং সামাজিক দায়বদ্ধতাসম্পাদনা

২০১০ সাল থেকে, গ্ল্যাক্সো স্মিথক্লাইন গ্লোবাল অ্যাক্সেস টু মেডিসিনস ইনডেক্সের (যা বিল এবং মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন দ্বারা অর্থায়ন করা হয়) ফার্মাসিউটিকাল কোম্পানিগুলির মধ্যে কয়েকবার প্রথম স্থান অধিকার করে।

বিতর্কসম্পাদনা

২০১২ ফৌজদারি ও নাগরিক নিষ্পত্তিসম্পাদনা

সামগ্রিকসম্পাদনা

জুলাই ২০১২ সালে, জিএসকে যুক্তরাষ্ট্রে ফৌজদারি অভিযোগের জন্য দোষী সাব্যস্ত হয়েছিল এবং ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার দিতে সম্মত হয়েছিল; এটি বিচার বিভাগ এবং একটি ড্রাগ সংস্থার মধ্যে ততকালীন বৃহত্তম মীমাংসা ছিল।[৫]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Preliminary Results 2017" (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০১৮ 
  2. "GlaxoSmithKline"। Statista। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০১৭ 
  3. "GlaxoSmithKline on the Forbes Top Multinational Performers List"ফোর্বস। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১১, ২০১৭ 
  4. R. P. T. Davenport-Hines, Judy Slinn, Glaxo: A History to 1962, Cambridge University Press, 1992, pp. 7–13.
  5. "GlaxoSmithKline to Plead Guilty and Pay $3 Billion to Resolve Fraud Allegations and Failure to Report Safety Data", United States Department of Justice, 2 July 2012.
    Katie Thomas and Michael S. Schmidt, "Glaxo Agrees to Pay $3 Billion in Fraud Settlement", The New York Times, 2 July 2012.

    Simon Neville, "GlaxoSmithKline fined $3bn after bribing doctors to increase drugs sales", The Guardian, 3 July 2012.

বহিঃসংযোগসম্পাদনা