প্রধান মেনু খুলুন

শ্রী গোপাল কৃষ্ণ মহারত্ন (এমপি) ছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের সংঘঠক। তিনি ছিলেন সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদের সদস্য।[১] ১৯৭১ সালের এপ্রিল মাসে হবিগঞ্জের মাধবপুর থানার তেলিয়াপাড়া চা বাগানে স্থাপিত হয় মুক্তিবাহিনীর সদর দপ্তর এবং এই পরিষদের সমন্বয়ক হিসাবে তেলিয়াপাড়া চা বাগানে গঠিত হয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ। স্বাধীনতা যুদ্ধে সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদ গঠনে শ্রী গোপাল কৃষ্ণ মহারত্ন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেন।

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

শ্রী গোপাল কৃষ্ণ মহারত্ন হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার সভ্রান্ত হিন্দু পরিবার মহারত্ন জমিদার বাড়ী তে জন্মগ্রহণ করেন।

রাজনৈতিক জীবনসম্পাদনা

বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের মুক্তিযুদ্ধ সংগঠনে হবিগঞ্জের নেতৃবৃন্দ অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন।[১] এখান থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য প্রেরিত অস্ত্রশস্ত্র ও রসদপত্র দিয়ে বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে যুদ্ধ শুরু হয়। যুদ্ধ শুরু হওয়ার পূর্বে এডভোকেট মোস্তফা আলী এমএনএ, কমান্ড্যান্ট মানিক চৌধুরী এমএনএ, লেঃ কর্ণেল (অব.) এম.এ. রব এমএনএ, এনামুল হক মোস্তফা শহীদ এমপিএ, মৌলানা আসাদ আলী এমপিএ, ডা. আবুল হাসিম এমপিএ, গোপাল কৃষ্ণ মহারত্ন এমপিএ, আব্দুল আজিজ চৌধুরী এমপিএ, এডভোকেট আফছর আহমদ, এডভোকেট চৌধুরী আব্দুল হাই, এডভোকেট সৈয়দ আফরোজ বখত, এডভোকেট মো. জনাব আলী, শ্রী কৃপেন্দ্র বর্মণ, মো. ইয়াকুত চৌধুরী প্রমুখের সমন্বয়ে গঠিত হয় সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদ। এই পরিষদের সমন্বয়ক হিসাবে গঠিত হয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা