আল্লামা খতিব বাগদাদী(আরবী: الخَطِیْبُ الْبَغْدَادِیْ) ইসলামী ইতিহাসবিদ ছিলেন। ইরাকে জন্মগ্রহণ করা এই মনীষী বিখ্যাত অনেক গ্রন্থের রচয়িতা। তার সবচেয়ে বিখ্যাত গ্রন্থ হলো- ‘তারীখে বাগদাদ’। ১০৩ খন্ডের এই গ্রন্থের কারণেই তিনি সবচেয়ে বেশি প্রসিদ্ধি পেয়েছেন।

খতিব বাগদাদী
(আরবি):ابوبكر احمد ابن علي
খতিব বাগদাদী.png
আল্লামা খতিব আল-বাগদাদী
জন্ম
আবু বকর আহমদ ইবনে আলী

২৪ জুমাদাস সানী ৩৯২হিজরী/১০ মে ১০০২খ্রিষ্টাব্দ
মৃত্যুসোমবার ৭ জিলহজ্জ ৪৬৩হিজরি/৫ সেপ্টেম্বর ১০৭১খ্রিষ্টাব্দ
সমাধিবাগদাদ
জাতীয়তাবাগদাদী,ইরাকী
অন্যান্য নামআল-খতিব আল-বাগদাদী
পেশাইসলামিক স্কলার,মুহাদ্দিস,ইতিহাসবিদ
যুগহিজরী চতুর্থ শতাব্দী
উল্লেখযোগ্য কর্ম
তারীখে বাগদাদ
উপাধিখতিব
পিতা-মাতাআলী ইবনে সাবিত

নাম ও বংশসম্পাদনা

তার আসল নাম: আহমদ ইবনে আলী। উপনাম: আবু বকর। ইবনে খাল্লিকান (মৃত্যু: ১৮১হিজরি/১২৮২খ্রি.) খতিব বাগদাদীর বংশধারা নিম্নরূপ লিখেছেন: আবু বকর আহমাদ ইবনে আলী ইবনে সাবিত ইবনে আহমাদ ইবনে মাহদী ইবনে সাবিত আল-বাগদাদী। [১]

আল-সাফাদি (মৃত্যু: ৭৬৪হিজরি/১৩৬৩খ্রি.) তার বংশধারা নিম্নরূপ বর্ণনা করেছেন: আবু বকর আহমদ ইবনে আলী ইবনে সাবিত ইবনে আহমদ ইবনে মাহদী।

এই বংশধারাটি আল্লামা ইবনুল জাওযী (মৃত্যু: ৫৯৭হিজরি/১২০১খ্রি.) তার লিখিত আল-মুনতাজিম ফী তারিখিল মুলুক ওয়াল-উমাম গ্রন্থে বর্ণনা করেছেন।

জন্মসম্পাদনা

খতিব বাগদাদী ইরাকেবাগদাদের পশ্চিম দিকে দজলা নদীর কিনারায় ‘দরযিজান’[২] নামক গ্রামে বৃহস্পতিবার ২৪ জুমাদাস সানী ৩৯২হিজরী/১০ মে ১০০২খ্রিষ্টাব্দে আব্বাসী খেলাফতকালে তিনি জন্মগ্রহণ করেন।[৩] তার বাবা-আলী ইবনে সাবিত এই এলাকার খতিব ছিলেন।

উপাধিসম্পাদনা

তিনি আল-খতিব আল-বাগদাদী বা খতিব বাগদাদী নামে পরিচিত। মুহাদ্দিসীনরা তাকে ‘হাফিজুল মাশরেক’ ও ‘খতিব’ বলে অভিহিত করেছেন। ইমাম ইবনুল আসির আল-জাযরী(মৃত্যু: ৬৩০হিজরি/১২৩৩খ্রি.) খতিব বাগদাদীকে ‘ইমামুদ ‍দুনিয়া ফি যমানাহ’ উপাধি দিয়েছেন। ইসলামী ঐতিহাসিক ইমাম যাহাবী(মৃত্যু: ৭৪৮হি/১৩৭৩খ্রি.)খতিব বাগদাদীকে ‘আল-ইমামু আওহাদ আল্লামা মুফতী আল-হাফিজু ন্নাকিদ,মুহাদ্দিসুল ওয়াকত’ বলে স্মরণ করেছেন।[৪]

জ্ঞান ও হাদীস অর্জনসম্পাদনা

খতিব আল-বাগদাদির পিতা আবু আল-হাসান আলী ইবনে সাবিত ইবনে মাহদী দারযিজান গ্রামের খতিব ছিলেন। সামআনি বলেছেন যে, খতিবের পিতা আবুল হাসান আলী বিন সাবিত ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে দারযিজান গ্রামে খতিব পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। খতিব বাগদাদী হিলাল বিন আবদুল্লাহ ইবনে মুহাম্মদ আত-তিবী, আবু আবদুল্লাহ আত-তিবী ও মুআদ্দিবির কাছ থেকে কেরাত শিখেছিলেন।

খতিব বাগদাদী হাদীস শোনা মহররম ৪০৩ হিজরি/জুলাই- আগস্ট ১০১২ সালে শুরু হয়েছিল। তখন খতিব বাগদাদীর বয়স ছিল ১০ বছর ৭ মাস। তিনি হাদিস লেখা ও চর্চা মুহাম্মদ ইবনে আহমদ ইবনে মুহাম্মদ ইবনে আহমদ ইবনে রুযকের(ইবনে রুযকিয়্যাহ নামে পরিচিত)নিকট থেকে শিক্ষা লাভ করেন।

তিনি জ্ঞান অর্জন করার জন্য বসরা, কূফা,রাই, নিশাপুর, দামেশক,মক্কা ও মদিনাসহ ঐ সময়ের নানান শহর ভ্রমণ করেন।[৫]

হাম্বলী ও খতিব বাগদাদীসম্পাদনা

খতিব বাগদাদী প্রথমত ফিকহে হাম্বলীর অনুসারী ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি শাফেয়ী মাযহাবের অনুসারী হোন। তাই তাকে শাফেয়ী মাযহাবের পন্ডিত বলে গণ্য করা হয়।

কৃতিত্বসম্পাদনা

খতিব ছিলেন একজন ভাল কারী, বাগ্মী, ইতিহাসবিদ, মুহাদ্দিস, ফকীহ ও সাহিত্যিক ছিলেন।[৬] মাঝে মাঝে কবিতা রচনাও করতেন। চলতে চলতে তিনি বই পাঠ করতেন। তিনি বিদ্বান ও জ্ঞানের সেবায় বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করেছিলেন। হজ যাত্রার সময় সূর্যাস্তের কাছাকাছি সময়ে তিনি কুরআন তেলাওয়াত করে শেষ করতেন। তারপর লোকেরা জড়ো হয়ে হাদীসের বর্ণনা জিজ্ঞাসা করত। খতিব হাদীস অশ্বচালনা করার সময় বর্ণনা করতেন।

মৃত্যুসম্পাদনা

খতিব বাগদাদী সোমবার ৭ জিলহজ্জ ৪৬৩হিজরি/৫ সেপ্টেম্বর ১০৭১খ্রিষ্টাব্দে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তাকে বাগদাদে দাফন করা হয়।[৭]

রচনাবলীসম্পাদনা

খতিব বাগদাদীর লিখিত গ্রন্থ হলো ৫৬টি। ইবনে খলকান বলেন- তার রচিত গ্রন্থ সংখ্যা হলো ৬০টি। ইতিহাসবিদ ইমাম যাহাবী তার রচিত গ্রন্থ ‘তাযকিরাতুল হুফফায’ গ্রন্থে লিখিছেন- খতিব বাগদাদীর রচিত গ্রন্থ সংখ্যা হলো ৫৬।[৮]

বইয়ের তালিকা[১]সম্পাদনা

  • তারীখে বাগদাদ
  • কিতাবুল কিফায়া
  • কিতাবুল জামে
  • শরফুস সিহাবিল হাদীস
  • কিতাবুল মুত্তাফিক ওয়াল মুফতারিক
  • আস-সাবেক ওয়াল লাহেক
  • তালখীসুল মুতাশাবিহ
  • আল-ফসল লিল ওয়াসল
  • রেওয়াতুল আবা
  • আল-ফকীহ ওয়াল মুতাফাক্কিহ
  • আল-মুকাম্মাল ফি বয়ানিল মুহমাল।
  • কিতাবু গুনয়াতিল মুকতাবিস
  • কিতাবুল আসমাইল মুবহামা
  • কিতাবুল মুযা'
  • কিতাবুল মুতানিফ
  • কিতাবু লাহজিস সওয়াব
  • কিতাবুল জাহরি বিল বাসমালাহ
  • কিতাবু রাফিউল ইরতিয়াব
  • কিতাবুল কুনুত
  • কিতাবুত তাবয়িন
  • কিতাবু তামইযিল মাযিদ
  • কিতাবু মান হাদ্দাসা ওয়া নাসা
  • কিতাবু রেওয়াতুল আবা আনিল আম্বিয়া
  • কিতাবুর রিহলা
  • কিতাবুর রিওয়ায়েত আনিল মালেক
  • কিতাবুল ইহতিজাজা আ'নিশ শাফী
  • কিতাবুত তাফসীল
  • ইকতিযাইল ইলমিল আমল
  • কিতাবু তাকইদিল ইলম
  • কিতাবুল কওল ফি ইলমিন নুযুম
  • কিতাবু রেওয়াতুত তাবেইন আনিস সাহাবা
  • কিতাবু সলাতুত তাসবীহ
  • কিতাবু মুসনাদ নুআইম ইবনে হাম্মাদ
  • কিতাবুর নাহয়ি আনিস সওমিশ শাক্ক
  • কিতাবুল ইজাযাতি লিল মা'দুম
  • কিতাবু রেওয়াতুস সুন্নাহ
  • কিতাবুল বুখালা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "الخطيب البغدادي • الموقع الرسمي للمكتبة الشاملة"shamela.ws। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৬ 
  2. "درزیجان - دیکشنری آنلاین آبادیس" |ইউআরএল= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য)Abadis Dictionary (ফার্সি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "الخطيب البغدادي"ويكيبيديا (আরবি ভাষায়)। ২০১৯-০৬-১৫। 
  4. "إسلام ويب - سير أعلام النبلاء - الطبقة الرابعة والعشرون - الخطيب- الجزء رقم18"islamweb.net (আরবি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৬ 
  5. "قصة الإسلام | الخطيب البغدادي .. الحافظ المؤرخ"islamstory.com (আরবি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৬ 
  6. "الخطيب البغدادي | الموقع الرسمي لفضيلة الشيخ أبي عبد المعز محمد علي فركوس حفظه الله"ferkous.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৬ 
  7. "Aḥmad ibn ʿAlī al- H̱aṭīb al-Baġdādī (1002-1071)"data.bnf.fr। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৬ 
  8. "مؤلف:الخطيب البغدادي - ويكي مصدر"ar.wikisource.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৬