ক্রিস্তিন লাগার্দ

ক্রিস্তিন মাদলেন ওদেত লাগার্দ (ফরাসি: Christine Madeleine Odette Lagarde; আ-ধ্ব-ব: [kʁistin madlɛn ɔdɛt laɡaʁd]; জন্ম ১লা জানুয়ারি ১৯৫৬) একজন ফরাসি আইনজীবী। তিনি ২০১১ সাল থেকে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রধান হিসেবে ও পরবর্তীতে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা) হিসেবে ২০১৯ সালের অক্টোবর পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। এরপর তিনি ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান হিসেবে কাজ শুরু করেন।[২]

ক্রিস্তিন লাগার্দ
Christine Lagarde
Lagarde, Christine (official portrait 2011).jpg
ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান
নিয়োগপ্রাপ্ত
দায়িত্ব গ্রহণ
১লা নভেম্বর ২০১৯
উপরাষ্ট্রপতিলুইস দে গিনদোস
যার উত্তরসূরীমারিও দ্রাগি
আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল-এর প্রধান নির্বাহী
কাজের মেয়াদ
৫ জুলাই ২০১১ – ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯*
ডেপুটিজন লিপস্কি
ডেভিড লিপটন
পূর্বসূরীজন লিপস্কি (সাময়িকভাবে স্থলাভিষিক্ত)
উত্তরসূরীডেভিড লিপটন (সাময়িকভাবে স্থলাভিষিক্ত)
ক্রিস্তালিনা জর্জিয়েভা
অর্থনীতি ও অর্থসংস্থান মন্ত্রণালয় (ফ্রান্স)
কাজের মেয়াদ
১৯ জুন ২০০৭ – ২৯ জুন ২০১১
প্রধানমন্ত্রীফ্রঁসোয়া ফিইয়োঁ
পূর্বসূরীজঁ-লুই বর্লো
উত্তরসূরীফ্রঁসোয়া বারোয়াঁ
কৃষি মন্ত্রণালয় (ফ্রান্স)
কাজের মেয়াদ
১৮ মে ২০০৭ – ১৮ জুন ২০০৭
প্রধানমন্ত্রীফ্রঁসোয়া ফিইয়োঁ
পূর্বসূরীদোমিনিক বুসরো
উত্তরসূরীমিশেল বার্নিয়ে
বাণিজ্য মন্ত্রণালয় (ফ্রান্স)
কাজের মেয়াদ
২ জুন ২০০৫ – ১৫ মে ২০০৭
প্রধানমন্ত্রীদোমিনিক দ্য ভিলপ্যাঁ
পূর্বসূরীক্রিস্তিয়ঁ জাকব
উত্তরসূরীপদ বিলুপ্ত
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মক্রিস্তিন মাদলেন ওদেত লালুয়েত
(1956-01-01) ১ জানুয়ারি ১৯৫৬ (বয়স ৬৪)
প্যারিস, ফ্রান্স
রাজনৈতিক দলইউনিওঁ পুর আঁ মুভমঁ পোপ্যুলের (২০১৫-এর আগে)
লে রেপ্যুবলিকাঁ (২০১৫–বর্তমান)
অন্যান্য
রাজনৈতিক দল
ইউরোপিয়ান পিপলস পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গীউইলফ্রেদ লাগার্দe
একরান গিলমোর[১]
ঘরোয়া সঙ্গীজাভিয়ের জোকান্তি
সন্তান
শিক্ষাপারি নঁতের বিশ্ববিদ্যালয়
সিয়ঁস পো এক্স
স্বাক্ষর
*লিপটন সাময়িকভাবে স্থলাভিষিক্ত প্রধান নির্বাহী হিসেবে ২ জুলাই ২০১৯ থেকে ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

এর আগে লাগার্দ ফ্রান্স সরকারের জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী হিসেবে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে কাজ করেন। তিনি ২০০৭ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত ফ্রান্সের অর্থনীতি ও অর্থসংস্থান মন্ত্রী ছিলেন। এর আগে তিনি কৃষি ও মৎস্য মন্ত্রী এবং বাণিজ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। লাগার্দ প্রথম নারী হিসেবে বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতিগুলির (জি৮) একটির অর্থমন্ত্রী হন। তিনি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের প্রথম নারী প্রধান।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "The disarming charm of Christine Lagarde"Daily Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  2. Adeniyi, Olakunle (২০১৯-০৭-১৭)। "IMF's Christine Lagarde resigns as Managing Director"Nigeria news (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১৭