প্রধান মেনু খুলুন

কেট বসওয়ার্থ

মার্কিন অভিনেত্রী

ক্যাথরিন অ্যান বসওয়ার্থ (জন্ম ২রা জানুয়ারি ১৯৮৩) একজন মার্কিন অভিনেত্রী ও মডেল।[১] দ্য হর্স উইসপারার (১৯৯৮) এবং রিমেম্বার দ্য টাইটানস (২০০০) চলচ্চিত্রে গৌণ চরিত্রে অভিনয়ের পর ব্লু ক্রাশ (২০০২) চলচ্চিত্রে লক্ষণীয় চরিত্রে তার আবির্ভাব ঘটে।

কেট বসওয়ার্থ
Kate Bosworth Deauville 2011.jpg
২০১১ সালে ডুইভিল চলচ্চিত্র উৎসবে বসওয়ার্থ
জন্ম
ক্যাথরিন অ্যান বসওয়ার্থ

(1983-01-02) জানুয়ারি ২, ১৯৮৩ (বয়স ৩৬)
পেশাঅভিনেত্রী, মডেল
কার্যকাল১৯৯৭–বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীমাইকেল পোলিশ (বি. ২০১৩)

এছাড়াও তিনি স্বাধীন চলচ্চিত্র ওয়ান্ডারল্যান্ড (২০০৩)-এ ডন শিলার এবং বিয়ন্ড দ্য সি (২০০৪) চলচ্চিত্রে স্যান্ড্রা ডি চরিত্রে অভিনয় করেন। তিনি দ্য সুপারম্যান রিটার্নস (২০০৬) চলচ্চিত্রে লুইস লেন চরিত্রে অভিনয় করেন। এছাড়া স্ট্র ডগস (২০১১) এবং স্টিল এলিস (২০১৪) চলচ্চিত্রে তার ভুমিকা ছিল। ২০১৬ সালের ভৌতিক চলচ্চিত্র বিফোর আই ওয়েক-এর শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেছেন।

পরিচ্ছেদসমূহ

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

বসওয়ার্থ ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলস, ক্যালিফোর্নিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন।[২] তিনি প্যাট্রিশিয়া (বিবাহপুর্ব নাম পটার) এবং হ্যারল্ড বসওয়ার্থ দম্পতির একমাত্র সন্তান। তার মা একজন গৃহিনী এবং বাবা ট্যালবটস এর সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা।[৩][৪] তিনি হেট্রোক্রোমিয়া ইরিডাম নিয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তার ডান চোখ হালকা বাদামি ও বাম চোখ ছিল নীল রঙের।[৫] ৬ বছর বয়সে তার বাবার কাজের জন্য বসওয়ার্থ পরিবারকে সান ফ্রান্সিসকো থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে স্থানান্তরিত হতে হয়। তিনি মুলত যুক্তরাষ্ট্রের ইস্ট কোস্টে বেড়ে ওঠেন এবং বাকি সময় ম্যাসাচুসেটস ও কানেক্টিকাটে কাটান।[৩]

প্রতিযোগিতামুলক ঘোড়দৌড়ের প্রতি বসওয়ার্থের আগ্রহ ছিল এবং ১৪ বছর বয়সে তিনি একজন বিজয়ী অশ্বারোহী ছিলেন।[৩][৬] ২০০১ সালে কোহাসেট, ম্যাসাচুসেটস-এর কোহাসেট হাই স্কুল থেকে তিনি স্নাতক হন।[৭][৮]

পেশাজীবনসম্পাদনা

প্রাথমিক কাজসমূহসম্পাদনা

বসওয়ার্থের প্রথম চলচ্চিত্র হলো দ্য হর্স উইসপারার (১৯৯৮)। চলচ্চিত্রটির প্রযোজকের এমন একজনকে দরকার ছিল, যিনি দক্ষভাবে অশ্বারোহণ করতে পারেন। আর এই চরিত্রের জন্য বসওয়ার্থ অডিশন থেকে নির্বাচিত হন। [৬] চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের থেকে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পায়।[৯] ২০০২ সালে তিনি ইয়ং আমেরিকানস টেলিভিশন সিরিজে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন, যেখানে তার চরিত্রের নাম ছিল বেলা ব্যাংকস।[১০] যদিও টেলিভিশন সিরিজটি বাতিল করা হয়েছিল।[১১] ঐ একই বছর তিনি রিমেম্বার দ্য টাইটানস চলচ্চিত্রে সংক্ষিপ্ত ভুমিকায় অভিনয় করেন।[১০] সহজে অডিশনে অংশ নেওয়া ও চলচ্চিত্রে আরও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয়ের আশায় ২০০১ সালে বসওয়ার্থ লস অ্যাঞ্জেলেসে স্থানান্তরিত হন।[৩]

প্রাথমিক সফলতাসম্পাদনা

 
মে ২০০৬ সালে বসওয়ার্থ

বসওয়ার্থের পেশাজীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় ২০০২ সালের সার্ফিং চলচ্চিত্র ব্লু ক্রাশে তার চরিত্র। এই চরিত্রে অভিনয়ের ক্ষেত্র নিজেকে তৈরী করার জন্য তিনি দুইজন ভিন্ন প্রশিক্ষকের সাথে দৈনিক সাত ঘন্টা কাজ করেন, যাতে তার পেশি ১৫ পাউন্ড বৃদ্ধি পায়।[১২] রোলিং স্টোনের পিটার ট্রেভারস চলচ্চিত্রে বসওয়ার্থের ভূমিকার প্রসংশা করেন।[১৩] এছাড়া চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের কাছ থেকেও ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পায়[১৪][১৫] এবং যুক্তরাষ্ট্রের বক্স অফিস থেকে $৪০ মিলিয়ন ডলার আয় করে।[১৬] ব্লু ক্রাশের সফলতার পর বসওয়ার্থ কম বাজেটের ওয়ান্ডারল্যান্ড (২০০৩) চলচ্চিত্রে ভ্যাল কিলমারের বিপরীতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন।[১০][১৭]

২০০৪ সালে তিনি টোপার গ্রেস-এর বিপরীতে রোমান্টিক কমেডি চলচ্চিত্র উইন এ ডেট উইথ টেড হ্যামিলটন চলচ্চিত্রে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন।[১৮] চলচ্চিত্রটি বাণিজ্যিকভাবে ব্যার্থ হয় এবং নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া পায়।[১৯][২০] এছাড়াও বিয়ন্ড দ্য সি চলচ্চিত্রে স্যান্ড্রা ডি চরিত্রে অভিনয় করেন।[২১] চলচিত্রটি মিশ্র প্রতিক্রিয়া পায়,[২২] এবং এটি বক্স অফিস ডিসাপয়েন্টমেন্ট ছিল,[২৩] তারপরও চলচ্চিত্রে তার ভূমিকার জন্য বসওয়ার্থ সমালোচকদের প্রসংশা পান।[২৪] পরের বছর মাইলা গোল্ডবার্গের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত বি সিজন (২০০৫) চলচিত্রে ছালি চরিত্রে অভিনয় করেন। [২৫] রেভলনের বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে তার উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায় এবং ২০০৫ সালে এফএইচএম-এর বিশ্বের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ১০০ জন নারীর মধ্যে ৬০তম নির্বাচিত হন।[২৬][২৭] ২০০৫ সালে ৩৮তম ও ২০০৬ সালে ৮ম স্থানে পরপর দুইবছর তিনি ম্যাক্সিম হট ১০০ তালিকায় নিজের অবস্থান ধরে রাখেন[২৮][২৯]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Her middle name is "Ann" rather than "Anne". State of California. California Birth Index, 1905–1995. Center for Health Statistics, California Department of Health Services, Sacramento, California. Lists Catherine Ann Bosworth born January 2, 1983 in Los Angeles, California. At Ancestry.com
  2. "The 10 best dressed"। Matches Fashion। জুন ৯, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮ 
  3. "Hello Magazine Profile — Kate Bosworth"Hello Magazine। জুলাই ৪, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  4. Coleman, Sandy (সেপ্টেম্বর ১, ২০০২)। "Threat of Brush Fire Remains"The Boston Globe। জানুয়ারি ১৩, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২, ২০১০ 
  5. "Kate Bosworth"People। জুন ১, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৫, ২০১১ 
  6. "Bosworth Gives Up Her Horse Riding Dream"ContactMusic। জুলাই ৭, ২০০৬। অক্টোবর ১২, ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা 
  7. Shanahan, Mark; Goldstein, Meredith (September 1, 2011). "From Cohasset High to cover girl" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১২-০৭-২৩ তারিখে. Boston.com.
  8. "Kate Bosworth: Biography" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪ তারিখে. Yahoo! Movies. Retrieved January 29, 2016.
  9. "Horse Whisperer, The (1998): Reviews"Metacritic। মে ১৫, ১৯৯৮। ডিসেম্বর ২, ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০০৯ 
  10. "Hello Magazine Filmography — Kate Bosworth"Hello Magazine। এপ্রিল ১৫, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  11. "Kate Bosworth Biography"People। জুলাই ২৫, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  12. Murray, Rebecca। "Interview with Kate Bosworth"About.com। ডিসেম্বর ৪, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১, ২০১৩ 
  13. Travers, Peter (সেপ্টেম্বর ৫, ২০০২)। "Blue Crush"Rolling Stone। মে ২৭, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০০৯ 
  14. "Blue Crush (2002)"Rotten Tomatoes। এপ্রিল ২৪, ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৫, ২০০৬ 
  15. Smith, Anne (মার্চ ৩১, ২০০৩)। "BBC Films Review — Blue Crush"। BBC। ডিসেম্বর ৭, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  16. "Business Data for Blue Crush (2002)"IMDB.com। ডিসেম্বর ২০, ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৫, ২০০৬ 
  17. Gleiberman, Owen (অক্টোবর ১, ২০০৩)। "Wonderland Review"Entertainment Weekly। জানুয়ারি ১০, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  18. Gilchrist, Todd (জানুয়ারি ২২, ২০০৪)। "IGN: Win a Date with Tad Hamilton Review"IGN। মার্চ ১৪, ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  19. "Win a Date with Tad Hamilton! (2004): Reviews"Metacritic। জানুয়ারি ২৩, ২০০৪। আগস্ট ৫, ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০০৯ 
  20. "Win a Date with Tad Hamilton! (2004)"Box Office Mojo। জানুয়ারি ২৩, ২০০৪। সেপ্টেম্বর ৭, ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০০৯ 
  21. Ebert, Roger (ডিসেম্বর ২৮, ২০০৪)। "Beyond the Sea Review"Chicago Sun-Times। মার্চ ১২, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  22. "Beyond the Sea (2004): Reviews"Metacritic। ডিসেম্বর ১৭, ২০০৪। সেপ্টেম্বর ৮, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০০৯ 
  23. "Beyond the Sea (2004)"Box Office Mojo। ডিসেম্বর ১৭, ২০০৪। সেপ্টেম্বর ৫, ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০০৯ 
  24. Clinton, Paul (ডিসেম্বর ১৭, ২০০৪)। "Review: 'Beyond' good, thanks to Spacey"CNN। আগস্ট ১১, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৫, ২০১৫As Dee, Bosworth gives a dead-on performance, aging from a 16-year-old ingénue into a 27-year-old woman who has seen and experienced things way beyond her years. 
  25. Papamichael, Stella (জানুয়ারি ১২, ২০০৬)। "BBC Moves Review — Bee Season"। BBC। ডিসেম্বর ৭, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  26. "Susan Sarandon and Kate Bosworth join Revlon"। Cosmetic Business। এপ্রিল ১০, ২০০৪। জানুয়ারি ১৫, ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  27. Soriano, César G. (মার্চ ২৩, ২০০৫)। "Jolie sizzles atop 'FHM' sexiest list"USA Today। আগস্ট ৪, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  28. "MAXIM MAGAZINE Unveils Their "Hot 100" for 2005"Maxim। মে ১০, ২০০৫। এপ্রিল ২৮, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮ 
  29. "Eva Longoria tops Maxim's 'Hot 100' list"APUSA Today। মে ১৫, ২০০৬। জানুয়ারি ৯, ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০০৮