কালোভ্রমর একটি বিখ্যাত বাংলা রহস্য উপন্যাসনীহার রঞ্জন গুপ্তের লেখা এই রহস্য উপন্যাসে প্রথম গোয়েন্দা কিরীটী রায়ের আবির্ভাব হয়। উপন্যাসটি ৩০ এর দশকে লেখা হয়।[১] মিত্র ও ঘোষ প্রকাশনী ১৯৬৩ সালে প্রথমে চার খন্ডে এটি প্রকাশ করে।[২]

কাহিনীসম্পাদনা

কালোভ্রমর একটি রহস্যময় চরিত্র, সে আসলে একজন অত্যন্ত প্রতিভাবান ডাক্তার যার আসল নাম মিঃ সান্যাল। পরিস্থিতির চাপে সান্যাল দস্যুতে পরিণত হলেও উপন্যাসের শেষে তার মানবিক মুখ প্রতিফলিত হয়েছে। সে চিঠি দিয়ে কলকাতার বাঙালী যুবক সুব্রতকে জানায় যে তার বর্মাতে প্রাপ্ত সম্পত্তির অধিকারের দাবী ছেড়ে দিতে। কালোভ্রমরের দুর্নাম ব্রিটিশ পুলিশ বিভাগের কাছে ছিল। বহুবার তাকে ধরতে চেষ্টা করেও তারা ব্যর্থ হয়। সাহসী সুব্রত কালোভ্রমরের হুমকিতে পাত্তা না দিয়ে বর্মা যেতে উদ্যোগী হলে তাকে বন্দী করে কালোভ্রমরের সহচর। কালোভ্রমর গোয়েন্দা কিরীটি রায়কে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়। কিরীটি তাকে ধরবার জন্য পাড়ী দেয় বর্মা মুলুক।

চলচ্চিত্রসম্পাদনা

কালোভ্রমর অবলম্বনে কিরীটী ও কালোভ্রমর চলচ্চিত্রটি ২০১৬ সালে অনিন্দ্য বিকাশ দত্তের পরিচালনায় প্রকাশিত হয়। এই ছবিতে কিরীটী রায় ও কালোভ্রমরের ভূমিকায় অভিনয় করেন যথাক্রমে ইন্দ্রনীল সেনগুপ্তকৌশিক সেন[৩][৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Narail, আজকের নড়াইল-Ajker। "ডা. নীহার রঞ্জন গুপ্ত : তাঁর জীবন ও শিল্পকর্ম"Ajker Narail (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-০৮ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. Gupta, Niharranjan (১৯৬৩)। Kalo Bhramar Ed. 1st 
  3. "কিরীটি ও কালো ভ্রমর"Anandalok Bengali Magazine (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-০৮ 
  4. khabor2014। "কিরীটি ও কালো ভ্রমর: বাংলা রহস্য সিনেমার অন্ধকার যাত্রা | KhaborOnline" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-০৮