এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় আঞ্চলিক শান্তি সম্মেলন

এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় আঞ্চলিক শান্তি সম্মেলন ১৯৫২ খ্রিষ্টাব্দের ২–১২ অক্টোবর পর্যন্ত চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে অনুষ্ঠিত একটি শান্তি সম্মেলন। সম্মেলনে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বেশ কয়েকটি দেশের প্রতিনিধিরা যোগ দেন। সম্মেলনে চীনের সমাজতান্ত্রিক নেতা মাও সে তুং উদ্বোধনী ভাষণ দেন এবং আগত অতিথিরাও বেশ কিছু বক্তব্য রাখেন।

এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় শান্তি সম্মেলন, বেইজিং, ২ অক্টোবর ১৯৫২

কোরীয় যুদ্ধের প্রেক্ষিতে এবং সমাজতান্ত্রিক প্রাচ্যদেশ ও গণতান্ত্রিক পাশ্চাত্যের মধ্যকার উঠতি স্নায়ুযুদ্ধের মধ্যে সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এছাড়াও সে সময় চীন ও সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় ইতিবাচক সম্পর্ক চূড়ায় পৌঁছেছিল। প্রধানত কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, গুয়াতেমালা, কলম্বিয়া, পাকিস্তান, ভারতইন্দোনেশিয়ার জাতীয় সমাজতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলের নেতারা সম্মেলনে যোগ দেন। সম্মেলনে বেশ কয়েকটি সমঝোতা চুক্তি পাস হয়, বিশেষত “কাশ্মিরী জনগণের পক্ষে” ভারত ও পাকিস্তান কাশ্মীর বিষয়ে একটি চুক্তিতে সাক্ষর করে।[১] শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের পক্ষে সম্মেলনে যোগ দেন। শেখ মুজিবের সেই সম্মেলনের অভিজ্ঞতা “আমার দেখা নয়া চীন” গ্রন্থে প্রকাশিত হয়েছে।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Enthusiastic Chinese Youngsters Make Scotty 'Sore' All Over," দ্য ফিশারম্যান (ভ্যাঙ্কুভার), ১২ নভেম্বর ১৯৫২
  2. নন্দী, জয়দেব (১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "'আমার দেখা নয়াচীন' নিছক ভ্রমণকাহিনী নয়; আরও কিছু..."। চ্যানেল আই অনলাইন।