এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল

ভূরাজনৈতিক অঞ্চল

এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল বা এশিয়া-প্যাসিফিক (APAC)[২] বলতে পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগর সংলগ্ন বিশ্বের অঞ্চলকে বোঝায়। প্রসঙ্গভেদে এই অঞ্চলের নিখুঁত সীমানা ভিন্ন হলেও পূর্ব এশিয়া, দক্ষিণপূর্ব এশিয়া এবং ওশেনিয়ার বিভিন্ন দেশ এই অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত। বৃহত্তর প্রসঙ্গের ক্ষেত্রে উত্তর, দক্ষিণ, মধ্যপশ্চিম এশিয়ার কিছু অংশ, এমনকি আমেরিকা অঞ্চলের প্রশান্ত মহাসাগর সংলগ্ন দেশকেও এর অন্তর্ভুক্ত করা হয়, যেমন নতুন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতার (এপেক) সদস্য। ১৯৮০-এর দশক থেকে বাণিজ্য, অর্থনীতি ও রাজনীতিতে এই শব্দটি জনপ্রিয়। অর্থনীতিতে বৈচিত্র্য থাকার সত্ত্বেও এই অঞ্চলের বেশিরভাগ জাতিরাষ্ট্র উদীয়মান বাজার হিসাবে গণ্য। অনেকসময় "জাপান ব্যতীত এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল" (APEJ) কথাটি প্রয়োজনীয় হিসেবে বিবেচনা করা হয়।[৩]

ESCAP-র সংজ্ঞা অনুযায়ী এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল।[১]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "List of countries in the Asia-Pacific region and subregions"www.unescap.org। ২০২৩-০৪-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০৯-২৯ 
  2. "Digital creativity and innovation lacking in kids in APAC: report"। মে ১০, ২০১৯। মে ৪, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৪, ২০২১ 
  3. Pan, Hui, সম্পাদক (অক্টোবর ২০০৪)। "Vonage and Cisco to sell phone equipment"VoIP Monthly Newsletter। Information Gatekeepers Inc। 2 (10): 3। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১২-১৫APEJ (Asia-Pacific Excluding Japan) and EEMEA (Eastern Europe, Middle East, and Africa) will grow their combined share of this figure from 17 percent to 22 percent during the same period, as North America's share adjusts from 53 percent to 46 percent.