উত্তরেশ্বর শিবমন্দির

ভারতের ওড়িষা রাজ্যের ভুবনেশ্বরের মন্দির

উত্তরেশ্বর শিব মন্দির হচ্ছে ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যের ভুবনেশ্বরে অবস্থিত ১২ শতকে নির্মিত শিব [১]। এই মন্দিরের অধিষ্ঠাতা দেবতা হচ্ছে উত্তরেশ্বর শিব।[২] কথিত আছে এটা লিঙ্গরাজ মন্দির থেকে উত্তরে অবস্থিত বলে এর নাম উত্তরেশ্বর মন্দির। এখানে নরসিংহের মূর্তি আছে। বিন্দুসাগর পুকুরের পাশে উত্তরেশ্বর শিব মন্দির এলাকার মধ্যেই ভীমেশ্বর শিব মন্দির এবং গোদাবরী পুকুর অবস্থিত।

উত্তরেশ্বর শিব মন্দির
Uttaresvara Siva Temple..png
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিহিন্দুধর্ম
ঈশ্বরশিব
অবস্থান
অবস্থানভুবনেশ্বর
রাজ্যউড়িষ্যা রাজ্য
দেশভারত
উত্তরেশ্বর শিবমন্দির ওড়িশা-এ অবস্থিত
উত্তরেশ্বর শিবমন্দির
উড়িষ্যায় অবস্থান
স্থানাঙ্ক২০°১৫′২″ উত্তর ৮৫°৫১′১৮″ পূর্ব / ২০.২৫০৫৬° উত্তর ৮৫.৮৫৫০০° পূর্ব / 20.25056; 85.85500
স্থাপত্য
ধরনকলিঙ্গ স্থাপত্যরীতি
সম্পূর্ণ হয়১২-১৩ শতক

অবস্থান ও বর্ণনাসম্পাদনা

উত্তরেশ্বর মন্দির ভুবনেশ্বরের পুরান শহরের কেদারা গৌরি চকের নালামুহানা শাহীর কাছে বিন্দুসাগর পুকুরের উত্তর পাড়ে অবস্থিত। মন্দিরের অধিষ্ঠাতা দেবতা উত্তরেশ্বর শিব হচ্ছে বেদীর উপর স্থাপিত বৃত্তাকার যৌনীপিঠ। এছাড়া গর্ভগৃহে প্রবেশ পথের দুপাশের দেয়ালে ভৈরব এবং ভৈরবীর মূর্তি আছে।

মন্দিরটির আরেকটি আকর্ষণ হচ্ছে নরসিংহের মূর্তি যা প্রধান মন্দিরের মধ্যে অবস্থিত। প্রধান মন্দিরের প্রবেশ পথে ডান দিকে উত্তরেশ্বরের দিকে মুখ করে আছে। আদি মন্দিরটি ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়। আরো ক্ষুদ্রাকার নয়টি মন্দির সহযোগে এটাই প্রধান মন্দির ছিলো।

বর্তমানে সেখানে আরো কিছু মন্দির এবং গোদাবরী পুকুর নামে একটি পুকুর আছে। এখানকার দ্বিতীয় বৃহত্তম মন্দিরের নাম ভীমেশ্বরের মন্দির।

আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ মন্দির হচ্ছে মা উত্তরায়ণীর মন্দির। তিনি উত্তরেশ্বরের পার্শ্বদেবী। উত্তরেশ্বরের প্রধান মন্দিরের বাইরের দেয়ালে দক্ষিণদিকে মুখ করে মূর্তিটি স্থাপিত। লিঙ্গরাজ দেবতার অষ্টচন্ডীদের একজন মা উত্তরায়ণী। লিঙ্গরাজের অষ্টচন্ডীগণ হচ্ছেন: তালাবাজারের বিন্ধ্য বাসিনী, বিন্দুসাগরের দক্ষিণ পাড়ের মোহিনী, রথ রাস্তার পুজাপান্ডা শাহীর রামায়ণী বা রাবণী, তিনিমুন্ডিয়া/বেতাল মন্দিরের কাপালি, উত্তরায়ণী, কেদার গৌরী মন্দিরের গৌরী, কতিতীর্থেশ্বর মন্দিরের কাছে অম্বিকা এবং বিন্দুসাগর রাস্তার দ্বারা বাসন্তী। চৈত্র মাসে উত্তরায়ণী মন্দিরের পানা উৎসব এখানকার জনপ্রিয় উৎসব।

ঐতিহ্য ও কিংবদন্তীসম্পাদনা

স্থানীয় প্রচলিত কিংবদন্তী অনুসারে মন্দিরটির এরকম নামকরণের কারণ হচ্ছে এটা বিন্দুসাগরের উত্তর পাড়ে এবং লিঙ্গরাজ মন্দিরের উত্তরে অবস্থিত। মন্দিরটি চারপীঠের এক পীঠ। অন্য পীঠস্থান গুলো হচ্ছে খাড়াখিয়া বৈদ্যনাথের যোগপীঠ, লিঙ্গরাজের ভোগপীঠ, কেদারা গৌরী মন্দিরের সিদ্ধ পিঠ। উত্তরেশ্বর তন্ত্রপীঠ নামে পরিচিত।

ভীমেশ্বর শিব মন্দিরসম্পাদনা

 
মন্দিরাকৃতি

বিন্দুসাগর পুকুরের উত্তর পাড়ে উত্তরেশ্বর শিব মন্দিরের সীমানার মধ্যে ভীমেশ্বর শিব মন্দির অবস্থিত। এই মন্দিরের অধিষ্ঠিত দেবতা হচ্ছে চক্রাকার যৌনীর উপর শিব লিঙ্গ। এই আবাসিক মন্দিরটি পূর্বমুখী। মন্দিরটিতে একটি বর্গাকার বিমান আছে যার সামনে আধুনিক ভবন আছে যা জগমোহন হিসেবে ব্যবহৃত হয়। উত্তরেশ্বর শিব মন্দিরের মত এই মন্দিরেরও পাভাগা অংশ সংস্কার করা হয়েছে।

পশ্চিমের দিকে পদ্মের উপর দাঁড়ানো সুন্দর একটি কার্তিকেয় মূর্তি আছে যার চারটি হাত। তার নিচের বাম হাত একটি মোরগের উপর, নিচের ডান হাত তার বাহক ময়ূরের চঞ্চু ধরে আছে। উপরের ডান হাতে ত্রিশুল এবং উপরের বাম হাতে ডম্বরু ধরে আছে। উত্তরে পদ্ম পাঁপড়ি উপর চার হাত যুক্ত পার্বতী মূর্তি স্থাপিত আছে। তার নিচের বাম হাতে পদ্ম ও ডানহাতে অক্ষমালা এবং উপরের বাম হাতে একটি বস্তু এবং ডানহাতে নাগপাশা ধরে আছেন।

দক্ষিণের অংশে চারহাতযুক্ত গণেশমূর্তি স্থাপিত আছে পদ্মপাতার উপর। তার নিচের বাম হাত বারদামুদ্রা, নিচের ডান হাত পরশু এবং উপরের ডান হাত একটা ভাঙা দাঁত ধরে আছে। এসকল পার্শ্ব দেবতাদের মূর্তি পরবর্তীতে সংযুক্ত হয়েছে।

ললাটবিম্ব অংশে গজলক্ষ্মী পদ্মকুড়ির উপর বসে আছেন যার বামহাতে পদ্ম এবং ডান হাতে বারদামুদ্রা।

ল্যাটেরিট মন্দিরসম্পাদনা

 
ল্যাটেরাইট মন্দির

মন্দিরটি উত্তরেশ্বর শিব মন্দিরের সীমানায় অবস্থিত। এটা একটি পরিত্যক্ত মন্দির। এটা বড় অংশের পরিত্যক্ত মন্দিরদের একটি।

গোদাবরী পুকুরসম্পাদনা

গোদাবরী পুকুর মন্দির সীমানার মধ্যে অবস্থিত। বিন্দুসাগরের উত্তরে এই পুকুরটির অবস্থান। পুকুরটির পাড় বাঁধানো। পুকুরটি একটি প্রাকৃতিক জলধারা। আবদ্ধ পুকুরটির সংগে বিন্দুসাগরের সংগে খালের মাধ্যমে সংযোগ রাখা হয়েছে। স্থানীয় লোকগাথা অনুযায়ী অসুর কীর্তি এবং বাসাকে হত্যার পরে দেবী পার্বতী তৃষ্ণার্ত বোধ করেন। তার তৃষ্ণা নিবারণের জন্য শিব তার ত্রিশুল দিয়ে ভূমিতে আঘাত করলে জলধারার সৃষ্টি হয়। এই জল ধরে রাখার জন্য শিব সকল দেবীকে আহবান করেন। গোদাবরী তার ঋতুকালের জন্য আসতে পারেননি। এতে শিব ক্ষিপ্ত হয়ে গোদাবরীকে অভিশাপ দেন যে তার জল সারাবছর অপবিত্র থাকবে শুধুমাত্র কুম্ভমেলার সময়ে দেবদেবী ও মানুষের জন্য সব থেকে পবিত্র হবে।

বৈশিষ্ট্যসম্পাদনা

এই মন্দিরে নরসিংহ জন্ম, দুর্গাষ্টমী, কার্তিক পূর্ণিমা, শিবরাত্রি, চৈত্র মঙ্গলবার ইত্যাদি ধর্মীয় উৎসব পালন করা হয়।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Temples and sculptures of Bhubaneswar.P.124.Kanwar Lal
  2. "Uttaresvara Shiva Temple, Shiva Temple"www.templeadvisor.com। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ অক্টোবর ২০১৭ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা