ইদা কামিন্‌স্কা

পোলীয় অভিনেত্রী

ইদা কামিন্‌স্কা (১৮ সেপ্টেম্বর ১৮৯৯ - ২১ মে ১৯৮০) ছিলেন একজন পোলীয় অভিনেত্রী ও পরিচালক। তিনি মূলত মঞ্চে কাজের জন্য অধিক পরিচিত। তার মাতা ইস্তার রেচেল কামিন্‌স্কা ইহুদি মঞ্চের মাতা নামে পরিচিত ছিলেন। তাদের সম্মানার্থে পোল্যান্ডের ওয়ারশতে জিউইশ থিয়েটারের নামকরণ করা হয়। দীর্ঘ কর্মজীবনে কামিন্‌স্কা সত্তরের অধিক মঞ্চনাটকে নির্দেশনা করেন এবং ১৫০-এর অধিক নাটকে কাজ করেছেন। তিনি ১৯৬৫ সালে অবচোদ না কোরৎজে চলচ্চিত্রে কাজ করেন, যা শ্রেষ্ঠ বিদেশি চলচ্চিত্র বিভাগে একাডেমি পুরস্কার লাভ করে। কামিন্‌স্কা এই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারনাট্যধর্মী চলচ্চিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

ইদা কামিন্‌স্কা
Ida Kamińska
Galeria Witamy w Domu, Warszawa (3).jpg
জন্ম(১৮৯৯-০৯-১৮)১৮ সেপ্টেম্বর ১৮৯৯
মৃত্যুমে ২১, ১৯৮০(1980-05-21) (বয়স ৮০)
কর্মজীবন১৯০৪-১৯৭০
দাম্পত্য সঙ্গীজিগমুন্ত তুর্কভ (বিচ্ছেদ)
মেইয়ার মেলমান (মৃত্যু)
সন্তানরুথ কামিন্‌স্কা (১৯১৯–২০০৫)
ভিক্তর মেলমান

১৯৬৭ সালে তিনি ব্রডওয়েতে নিজের নির্দেশনায় মাদার কারেজ অ্যান্ড হার চিলড্রেন নাটকে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন।[১] ১৯৭৩ সালে তিনি তার আত্মজীবনী মাই লাইফ, মাই থিয়েটার প্রকাশ করেন।

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

কামিন্‌স্কা রুশ সাম্রাজ্যের (বর্তমান ইউক্রেন) ওদেসা শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তার মাতা ইদ্দিশ মঞ্চ অভিনেত্রী এস্তার রেচেল কামিন্‌স্কা (১৮৭০-১৯২৫) এবং তার পিতা আব্রাহাম আইজাক কামিন্‌স্কা (১৮৬৭-১৯১৮) ছিলেন অভিনেতা, পরিচালক ও মঞ্চ প্রযোজক। তার বোন রেজিনা কামিন্‌স্কাও একজন অভিনেত্রী ছিলেন। তার ভাই ইয়োসেফ কামিন্‌স্কা একজন সুরকার ছিলেন।[২] তার মাতাকে "ইহুদি এলিনর ডিউজ" নামে অভিহিত করা হত।[৩]

কর্মজীবনসম্পাদনা

১৯৫৭ সালে তিনি প্রথমবারের মত ইসরায়েল সফরে যান এবং সেখানে তিনি প্রধানমন্ত্রী গোল্ডা মেয়ারের সামনে অভিনয় পরিবেশন করেন।[২]

১৯৬৫ সালে তিনি জান কাদার ও এলমার ক্লস পরিচালিত চেকস্লোভাক চলচ্চিত্র অবচোদ না কোরৎজে চলচ্চিত্রে মিসেস লতমান চরিত্রে অভিনয় করেন। এই কাজের জন্য তিনি ৩৯তম একাডেমি পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে এবং ১৪তম গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারে নাট্যধর্মী চলচ্চিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে মনোনয়ন লাভ করেন।[৪][৫]

তার অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র ছিল জান কাদার পরিচালিত দি অ্যাঞ্জেল লেভিন (১৯৭০)।[২][৬]

মৃত্যু ও উত্তরাধিকারসম্পাদনা

ইদা কামিন্‌স্কার স্বামী মেয়ার মেলমান ১৯৭৮ সালে মৃত্যুবরণ করেন। কামিন্‌স্কা রক্ত সংবহনতন্ত্রের রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৯৮০ সালের ২১শে মে ৮০ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।[৭] তাকে নিউ ইয়র্কের ফ্লাশিংয়ের মাউন্ট হেবরন সেমাট্রির ইদ্দিশ থিয়েটার ভাগে সমাহিত করা হয়।[৮]

২০১৪ সালে ওয়ারশর জিউইশ থিয়েটারে তার সম্মানার্থে একটি বিশেষ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। এই প্রদর্শনীতে কামিন্‌স্কার পরিহিত পোশাক এবং তার কর্মজীবনের চিত্রাবলি ও স্মরণিকা প্রদর্শিত হয়।[৯]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Ida Kaminska"প্লেবিল (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০২০ 
  2. সেগাল, শিলা এফ. (১৯৯৬)। "Ida Kaminska, Leading Lady"। Women of Valor: Stories of great Jewish women who helped shape the twentieth century । ওয়েস্ট ওরেন্স, নিউ জার্সি: বেরমান। পৃষ্ঠা ৫২–৬৫। আইএসবিএন 0874416124 
  3. "Esther Rachel Kaminska"জিউইশ উইমেন্‌স আর্কাইভ। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০২০ 
  4. "The 39th Academy Awards (1967) Nominees and Winners"অস্কার (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  5. "Winners & Nominees 1967"গোল্ডেন গ্লোব (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  6. ল্যাংম্যান, ল্যারি (২০০০)। Destination Hollywood : the influence of Europeans on American filmmaking। জেফারসন, এনসি: ম্যাকফারল্যান্ড। পৃষ্ঠা ২৪। আইএসবিএন 078640681X 
  7. "Ida Kaminska Dead at 80"জিউইশ টেলিগ্রাফিক এজেন্সি (ইংরেজি ভাষায়)। ২৩ মে ১৯৮০। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  8. তিস, মার্ক (২০০৮)। Hollywood winners & losers, A to Z। নিউ ইয়র্ক: লাইমলাইট এডিশন্স/হাল লিওনার্ড। পৃষ্ঠা ৯৯আইএসবিএন 9780879103514 
  9. "Wystawa pamięci Idy Kamińskiej w Teatrze Żydowskim w Warszawie"গাজেতা ওয়াইবোরৎসা (পোলিশ ভাষায়)। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪। ৩০ মে ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা