আলাই (তামিল: அலை; 'অর্থ' তরঙ্গ) হচ্ছে ২০০৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত একটি তামিল চলচ্চিত্র। প্রণয়ধর্মী এই চলচ্চিত্রটির নায়ক-নায়িকা ছিলেন সিলামবারাসান এবং তৃষা কৃষ্ণন। বিক্রম কুমারের রচনা ও পরিচালনায় চলচ্চিত্রটি ব্যবসাসফল হয়নি এবং দর্শকরাও পছন্দ করেনি।[১] সিলামবারাসান চলচ্চিত্রটিতে রজনীকান্তের অভিনয়ের অনুকরণ করার চেষ্টা করেছিলেন। যে বাজেটে নির্মাণ হয়েছিলো চলচ্চিত্রটি তার এক শতাংশও আয় করতে পারেনি চলচ্চিত্রটি।[২] তৃষার সঙ্গে যদিও সিলামবারাসানের ভিন্নাইতান্ডি ভারুভায়া (২০১০) দর্শকরা অনেক পছন্দ করেছিলো।[৩]

আলাই
আলাই ডিভিডির প্রচ্ছদ.jpg
পরিচালকবিক্রম কুমার
প্রযোজকজি ভি প্রসাদ
রচয়িতাবিক্রম কুমার
শ্রেষ্ঠাংশেসিলামবারাসান
তৃষা
সুরকারবিদ্যাসাগর
চিত্রগ্রাহকএস মূর্তি
সম্পাদকএ শ্রীকর প্রসার
প্রযোজনা
কোম্পানি
দামিনী এন্টারপ্রাইজ
মুক্তি
  • ১২ সেপ্টেম্বর ২০০৩ (2003-09-12)
দৈর্ঘ্য১৫৮ মিনিট
দেশভারত
ভাষাতামিল

অভিনয়েসম্পাদনা

প্রযোজনাসম্পাদনা

কাদাল আড়িবাতিল্লাই এবং দম চলচ্চিত্রের ব্যর্থতার পরে সিলামবারাসান একটি সফল চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে চাচ্ছিলেন আর সেটার ফসল হয়ে দাঁড়ায় এই আলাই চলচ্চিত্রটি।[৪]

মুক্তিসম্পাদনা

চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায় ২০০৩ সালের ১২ই সেপ্টেম্বর তারিখে, দর্শকদের একটুও টানতে পারেনি চলচ্চিত্রটি। চলচ্চিত্রটিতে তৃষা এবং সিলামবারাসানের অভিনয় মানুষের কাছে খুবই আনাড়ি মনে হয়েছিলো। শুধু একটি গান দর্শকরা কিছুটা পছন্দ করেছিলো আর সেটা ছিলো "এন রাগাসিয়া কানাভুগাল"।[৫]

এই চলচ্চিত্রটির ব্যর্থতার পর তৃষা আর সিলামবারাসানকে নিয়ে মালাই নামের একটি চলচ্চিত্র বের হবে বলে খবর বের হয় যেটা পি এল দেনাপ্পান প্রযোজনা করবেন বলে শোনা যায়, তবে এই নামের কোনো চলচ্চিত্র সিলামবারাসান আর তৃষাকে নিয়ে বের হয়নি।[৬] আলাই চলচ্চিত্রটির পরিচালক বিক্রম কুমার ২০০৯ সালে মাধবনকে নিয়ে ইয়াভারুম নালাম চলচ্চিত্র তৈরি করেন এবং সেটি ব্যবসাসফল এবং দর্শকপ্রিয় হয়। তৃষা পরে গৌতম মেননের পরিচালনায় ২০১০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ভিন্নাইতান্ডি ভারুভায়াতে সিলামবারাসানের সঙ্গে পুনরায় একসঙ্গে অভিনয় করে জনপ্রিয়তা পান, দর্শকপ্রিয়তা সহ চলচ্চিত্রটি তুমুল ব্যবসাসফলতা পায়।[৩]

এই চলচ্চিত্রে অভিনেতা সিলামবারাসানের চেহারা দর্শকরা পছন্দ করেনি, তাদের ভালো লাগেনি তৃষার পোশাকও, এরকম দ্য হিন্দু পত্রিকায় একটি সংবাদ বেরিয়েছিলো।[১] সিলামবারাসান পরে মানমাদান (২০০৪) চলচ্চিত্রে অভিনয় করা শুরু করেন যেটাতে তিনি জ্যোতিকার সঙ্গে অভিনয় করেছিলেন।[২]

গানের তালিকাসম্পাদনা

চলচ্চিত্রটির সঙ্গীত পরিচালক ছিলেন বিদ্যাসাগর।

গানের শিরোনাম গায়ক-গায়িকা গীতি
"আলাই আড়িকুদু" শঙ্কর মহাদেবন কবিলান
"এন রাগাসিয়া কানাভুগাল" কার্তিক, শ্রীবর্তিনী তামারাই
"নি ওরু দেসাম" সুজাতা মোহন, কেকে যোগভারতী
"পাইয়া পাইয়া" মাতাঙ্গি, টিপু আরিবুমাতি
"সোলাকাট্টু বোম্মাই" দেব একাম্বরম, পপ শালিনী পা. বিজয়
"তিঙ্গা কিড়ামাইয়ানা" টিমি, কার্তিক পা. বিজয়

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Alai"The Hindu। Chennai, India। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০০৩। ৫ ডিসেম্বর ২০০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০২০ 
  2. "Manmadhan comes calling"The Hindu। Chennai, India। ৯ ডিসেম্বর ২০০৪। ৪ জানুয়ারি ২০০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০২০ 
  3. Rangarajan, Malathi (৪ মার্চ ২০১০)। "Taste of candyfloss"The Hindu। Chennai, India। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  4. "Brand equity"The Hindu। Chennai, India। ২ জুন ২০০৩। ৩০ জুলাই ২০০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০২০ 
  5. "BizHat.com - Alai Review. Silambarasan, Trisha, Vivek, Kuralarasan, Raghuvaran, Saranya"movies.bizhat.com। ২০১৯-০৯-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৩ 
  6. "After Alai, it is Malai - Kannada Movie News"। IndiaGlitz। ২০০৪-১২-১৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৮-০৪ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা