আন্তর্জাতিক উদ্ভিদ সংরক্ষণ সম্মেলন

আন্তর্জাতিক উদ্ভিদ সংরক্ষণ সম্মেলন (আইপিসিসি) জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা কর্তৃক ১৯৫১ সালে প্রকাশিত একটি বহুপক্ষীয় চুক্তি যা উদ্ভিদ ও উদ্ভিদজাত দ্রব্যে পোকামাকড়ের প্রবেশ এবং বিস্তার রোধের জন্য বাস্তবায়ন করা হয়। এ কনভেনশনে চাষকৃত ফসলের পাশাপাশি সকল প্রাকৃতিক ফ্লোরা এবং উদ্ভিদের সংরক্ষণের উপর জোর দেয়া হয়েছে। এটি কীটের আক্রমনের পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষ প্রভাব নিয়ে কাজ করার পাশাপাশি আগাছার প্রভাব নিয়েও কাজ করে।

আন্তর্জাতিক উদ্ভিদ সংরক্ষণ সম্মেলন
{{{image_alt}}}
আইপিসিসি এর লোগো
ধরণকৃষি;পরিবেশ
স্বাক্ষর৬ ডিসেম্বর,১৯৫১
স্থানরোম, ইতালি
কার্যকর৩ এপ্রিল,১৯৫২
শর্ত৩টি অনুমোদন
স্বাক্ষরকারী২৯
অংশগ্রহণকারী১৮৩
Depositaryমহাপরিচালক খাদ্য ও কৃষি সংস্থা
ভাষাসমূহআরবি,চাইনিজ,ইংরেজি,ফ্রেঞ্চ,রাশিয়ান,স্প্যানিশ

এ কনভেনশনে প্রত্যেক দল থেকে একটি পরিচালনা পর্ষদ তৈরি করে যা উদ্ভিদস্বাস্থ্য ব্যবস্থা কমিশন নামে পরিচিত এবং তারাই মূলত এ কনভেনশনের কার্যকারিতা পর্যবেক্ষণ করে। ২০১৭ সালের আগস্ট পর্যন্ত ১৮৩ টি পার্টি ছিল যার মধ্যে জাতিসংঘের ১৮০ টি সদস্য রাষ্ট্র,কুক আইল্যান্ড,নিউ এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন [১]অন্তর্ভুক্ত।বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার(ডব্লিউটি্ও) পরিচ্ছন্নতা এবং উদ্ভিদ স্বাস্থ্য বিষয়ক চুক্তিতে (এসপিএস চুক্তি) এ কনভেনশন উদ্ভিদ এর জন্য আন্তর্জাতিক নির্দেশক হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

মূল লক্ষ্যসম্পাদনা

যদিও আইপিসিসির মূল লক্ষ্য আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের জন্য ব্যবহৃত উদ্ভিদ সংরক্ষণ করা তা সত্ত্বেও এ কনভেনশন যে কোন গবেষণা খাদ্য সহায়তা, জরূরী সহায়তা, জ্যার্মপ্লাজম সরবরাহ, জৈবিক বস্তু সরবরাহ এবং অন্যান্য আরও যা থেকে ভবিষ্যতে পোকামাকড়ের বিস্তার হতে পারে যেমন: প্যাকেজিং এ ব্যবহৃত বস্তু, মাটি, যানবাহন, যন্ত্রপাতি, পাত্রসামগ্রী, টব ইত্যাদির হাত থেকেও রক্ষার ও ব্যবস্থা করে থাকে।

আইপিসিসি খাদ্য ও কৃষি সংস্থা তৈরি করে এবং এটি মূলত তিনটি নীতির উপর কাজ করে- আন্তর্জাতিক মান স্থাপন, তথ্য সরবরাহ, আইপিসিসি এবং অন্যান্য সহায়ক উদ্ভিদ স্বাস্থ্য বাস্তবায়নে জন্য ধারণক্ষমতা বৃদ্ধি। আইপিসিসি এর প্রধান কার্যালয় ফাও এর সদর রোড, ইতালিতে অবস্থিত এবং ফাও মূলত আইপিসিসি এবং কার্যকলাপ সমন্বয় করে থাকে।

বিগত বছরগুলোতে আইপিসিসি উদ্ভিদস্বাস্থ্য বাস্তবায়নের জন্য একটি উন্নয়ন কাঠামো গঠন করেছে তার উদ্দেশ্য হল:

  • পোকামাকড়ের সংক্রমণ রোধ করার মাধ্যমে টেকসই কৃষিজ ব্যবস্থা নিশ্চিত করা এবং বৈশ্বিক খাদ্য নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা;
  • পরিবেশ, বন এবং জীববৈচিত্র্যকে পোকামাকড় থেকে রক্ষা করা;
  • সমন্বিত উপায়ে বৈজ্ঞানিক উদ্ভিদসাস্থ্য নিশ্চিতকরণ করে অর্থনৈতিক এবং বাণিজ্যিক উন্নয়ন সুনিশ্চিতকরণ;এবং

এই তিনটি মূল অনুমোদন লাভের জন্য উদ্ভিদসাস্থ্য সম্পর্কিত কর্মসূচি জোরদারকরণ।

কনভেনশনের এই উদ্দেশ্যকে লক্ষ্য রেখে আইপিসিসি যেসব উদ্ভিদ সাস্থ্য বিষয়ক যেসব  কাজ করে তা হলো:

  • ক্ষতিকর পোকামাকড় এবং রোগ থেকে কৃষকদের রক্ষা করে।
  • জীববৈচিত্র্য ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করে।
  • পোকামাকড় দমনের জন্য অতিরিক্ত খরচ হতে শিল্পপ্রতিষ্ঠান এবং ভোক্তাদের রক্ষা করে ।
  • বাস্তুতন্ত্রের রক্ষণাবেক্ষণ এবং ক্ষতিকর পোকামাকড় দমন।
  • উদ্ভিদের নিরাপদ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করে এবং আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের উন্নতি করে।
  • কোনো দেশে কোনো জমিতে পোকামাকড়ের আক্রমণ রুখে দিয়ে জীবিকা এবং খাদ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করে।

স্থানীয় উদ্ভিদ সংরক্ষণ সংস্থাসম্পাদনা

স্থানীয় উদ্ভিদ সংরক্ষণ সংস্থা(আরপিপিও) আইপিসিসি এর অধীনে কাজ করে ।এগুলো উদ্ভিদ সংরক্ষণের জন্য আন্ত:সরকার ব্যবস্থা।আন্তর্জাতিক উদ্ভিদ সংরক্ষণ সংস্থার (আইপিসিসি) অধীনে যারা কাজ করে:

আইপিসিসি এর অধীনে আরপিপও এর কাজ হচ্ছে:

  • সমন্বয় কমিটি হিসাবে কাজ করা। লক্ষ্য অর্জনের জন্য কি কি কাজ করা হয়েছে এবং আরো কি কি কাজ করা লাগবে তার তদারকি করা,তথ্য সংগ্রহ করা
  • আন্তর্জাতিক মান বজায় রাখার জন্য কমিশন এবং প্রধান কর্মকর্তাদের কাজে সহায়তা করা
  • স্থানীয় উদ্ভিদ সংরক্ষণ সংস্থার কাজে সহায়তা করা যাতে:
    • আন্তর্জাতিক মান উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় উদ্ভিদস্বাস্থ্য আরো উন্নতি এবং বিকাশ লাভ করে;এবং
    • পোকামাকড়ের সংক্রমণ,বিস্তার রোধে কার্যকর উদ্ভিদস্বাস্থ্য নিশ্চিত করে আন্ত:স্থানীয় সংস্থাগুলোকে সাহায্য করা।

আন্তর্জাতিক উদ্ভিদ স্বাস্থ্য কনফারেন্সসম্পাদনা

ফাও এর উদ্যোগে ফিনিশ সরকার হেইসিনকি এর পরিচালনায় ২০২১ সালের ২৮ জুলাই প্রথম আন্তর্জাতিক উদ্ভিদ স্বাস্থ্য কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হবে।[২][৩]যদিও এর আগে করোনা মহামারীর জন্য ৯ ফেব্‌রুয়ারি,২০২১ এ অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলন স্থগিত করা হয়।[৪]

উদ্ভিদ স্বাস্থ্যব্যবস্থা সম্পর্কিত কমিশনসম্পাদনা

জুম অ্যাপের এর মাধ্যমে ভার্চুয়ালি ১৫তম অধিবেশন ২০২১ সালের ১৮ মার্চ এবং ১ এপ্রিল[তারিখের তথ্য] অনুষ্ঠিত হবে।[৫]The fifteenth session will be[তারিখের তথ্য] held 16 March, 18 March and 1 April 2021 virtually over Zoom.[৫]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. https://www.ippc.int/en/countries/all/list-countries/
  2. "International Plant Health Conference in Helsinki is cancelled amid continued COVID-19 restrictions"International Plant Protection Convention। ২০২১-০২-০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০২-০৯ 
  3. "International Plant Health Conference "Protecting Plant Health in a changing world""Viikki Plant Science Center, University of Helsinki। ২০১৯-১২-১০। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০২-০৯ 
  4. "International Plant Health Conference"Food and Agriculture Organization of the United Nations। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০২-০৯ 
  5. "CPM 15"International Plant Protection Convention। UN FAO। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-১৫