প্রধান মেনু খুলুন

আগামী মোরশেদুল ইসলাম পরিচালিত ১৯৮৪ সালের বাংলাদেশী স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রবাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধভিত্তিক এই চলচ্চিত্রের কাহিনী, চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন মোরশেদুল ইসলাম।[১] এতে অভিনয় করেছেন পীযুষ বন্দ্যোপাধ্যায়, ফাহমিদা পারভীন মিঠু, আলী যাকের, মুজিবুর রহমান দিলু, রওশন জামিল প্রমুখ।

আগামী
পরিচালকমোরশেদুল ইসলাম
চিত্রনাট্যকারমোরশেদুল ইসলাম
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারশিমুল ইউসুফ
চিত্রগ্রাহকমাকসুদুল বারী
সম্পাদকসাইদুল আনাম টুটুল
প্রযোজনা
কোম্পানি
চলচ্চিত্রম ফিল্ম সোসাইটি
মুক্তিফেব্রুয়ারি ১৯৮৪ (1984-02Tচট্টগ্রাম)
দৈর্ঘ্য২৫ মিনিট
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা

চলচ্চিত্রটি ১৯৮৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে চট্টগ্রামে মুক্তি পায়।[১][২] নয়াদিল্লীতে অনুষ্ঠিত ১০ম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্‍সবে চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হয় এবং মোরশেদুল ইসলাম শ্রেষ্ঠ পরিচালনার জন্য 'রৌপ্য ময়ূর' অর্জন করেন।[৩] এছাড়া ৯ম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ছবিটি শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বিভাগে পুরস্কৃত হয়।[৪]

পরিচ্ছেদসমূহ

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

যুদ্ধ শেষ। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধারা এখনও অবহেলিত। রাজাকার এখনও গ্রামের মাতব্বর। এক বীরঙ্গনা গ্রামের মাতব্বরের কামনার বশবর্তী হতে না চাওয়ায় গ্রামচ্যুত। এমনই চিত্র তুলে ধরা হয়েছে এই চলচ্চিত্রে।

কুশীলবসম্পাদনা

নির্মাণসম্পাদনা

আগামী চলচ্চিত্রের নির্মাণ কাজ শুরু হয় ১৯৮৩ সালের মাঝামাঝিতে। ছবিটি ১৬ মিলিমিটারে নির্মিত হয়। নির্মাণের পর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড নানা আপত্তির কথা বলে ছবিটিকে সেন্সর ছাড়পত্র দিতে দেরি করতে থাকে। ছবিতে ব্যবহৃত ‘জয় বাংলা’, ‘পাকিস্তানি মিলিটারি’, ‘রাজাকার’ ইত্যাদি শব্দ; পাকিস্তানি সেনা কর্তৃক অত্যাচারের দৃশ্য নিয়ে আপত্তি ছিল সেন্সর বোর্ডের। এ নিয়ে সারাদেশে প্রতিবাদ হলে শেষ পর্যন্ত সেন্সর বোর্ড ছাড়পত্র দিতে বাধ্য হয়।[১]

সম্মাননাসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. শৈবাল চৌধূরী (২০ সেপ্টেম্বর ২০১৬)। "স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ"দৈনিক আজাদী। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. শৈবাল চৌধূরী (ডিসেম্বর ১৮, ২০১৫)। "হুমায়ূন আহমেদের 'অনিল বাগচীর একদিন' - কথা রাখেননি চলচ্চিত্রকার মোরশেদুল ইসলাম!"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ 
  3. রনীল জহির (২১ এপ্রিল ২০১৪)। "ছবি বানাতে হবে দর্শকের কথা ভেবে: মোরশেদুল ইসলাম"প্রিয় নিউজ। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ 
  4. "মোরশেদুল ইসলাম"গুণীজন। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা