অ্যাস্ট্রোল্যাব

অ্যাস্ট্রোল্যাব (প্রাচীন গ্রিকἀστρολάβος এস্ট্রোলাবোস; আরবি: ٱلأَسْطُرلاب‎‎ আল-আসতুরলাব; ফার্সি: اِستاره یاب‎‎ আসতারা ইয়াব) একটি বিস্তৃত নত-পরিমাপক এবং একটি অ্যানালগ ক্যালকুলেটর যেখানে জ্যোতির্বিদ্যার বিভিন্ন ধরনের সমস্যা এবং কাজ করতে সক্ষম একটি যন্ত্র। ঐতিহাসিকভাবে, জ্যোতির্বিজ্ঞানী এবং নাবিকরা একটি দিগন্ত দেহের দিগন্তের ওপরের দৈর্ঘ্যের উচ্চতা পরিমাপ করতে এটি ব্যবহার করতো। এটি শাস্ত্রীয় প্রাচীনত্ব, ইসলামিক স্বর্ণযুগ,[২] ইউরোপীয় মধ্যযুগ এবং আবিষ্কারের যুগের সময় ব্যবহৃত হয়েছিল।

২০১৩ সালে ইরানের তাবরিজে তৈরি একটি আধুনিক অ্যাস্ট্রোল্যাব।
অক্সফোর্ডের ইতিহাসের জাদুঘরে রাখা মধ্যযুগীয় (১৪৮০সাল) ইসলামী জ্যোতির্বিজ্ঞানের এক গোলকীয় অ্যাস্ট্রোল্যাব। সম্ভবত সিরিয়া বা মিশর হতে [১]

ইতিহাসসম্পাদনা

মধ্যযুগসম্পাদনা

 
পারস্য বিজ্ঞানী নাসির আল-দীন আল-তুসি দ্বারা জ্যোতির্বিজ্ঞানের গুরুত্ব ব্যাখ্যা করার একটি গ্রন্থ
 
একটি ১৮ শতকের পারস্য অ্যাস্ট্রোল্যাব

মধ্যযুগীয় ইসলামী বিশ্বে জ্যোতির্বিজ্ঞান আরও বিকশিত হয়েছিল, যেখানে মুসলিম জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা নকশার ক্ষেত্রে কৌনিক স্কেল প্রবর্তন করেছিলেন,[৩] দিগন্তে অজিমুথকে নির্দেশ করে এমন বৃত্ত যুক্ত করেছিলেন। [৪] এটি সমগ্র মুসলিম বিশ্বের সর্বত্র ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়েছিল, মূলত জাহাজ চালানোর সহায়তা এবং মক্কার দিকনির্দেশনা কিবলা সন্ধানের উপায় হিসাবে এটি ব্যবহৃত হতো। অষ্টম শতাব্দীর গণিতবিদ মুহাম্মদ আল-ফাজারী প্রথম ব্যক্তি যিনি ইসলামী বিশ্বে অ্যাস্ট্রোল্যাব নির্মাণের জন্য কৃতিত্বপ্রাপ্ত হন। [৫]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Morrison, Robert G. (২০১৩)। "Islamic Astronomy"The Cambridge History of Science। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 115। আইএসবিএন 978-0-521-59448-6। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মে ২০১৮ 
  2. In the Islamic world, it was used to navigate deserts, then oceans, and to calculate the direction to Mecca.
  3. See p. 289 of Surveying and navigational instruments from the historical standpoint. 
  4. The Mathematics of Egypt, Mesopotamia, China, India, and Islam: a Sourcebook 
  5. Richard Nelson Frye: Golden Age of Persia. p. 163