অসীম রায়

বাঙালি সাহিত্যিক

অসীম রায় (ইংরেজি: Asim Ray) (৭ মার্চ ১৯২৭ - ৩ এপ্রিল ১৯৮৬) একজন বাঙালি সাহিত্যিক ও প্রথিতযশা সাংবাদিক।

অসীম রায়
জন্ম৭ মার্চ, ১৯২৭
মৃত্যু৩ এপ্রিল ১৯৮৬
জাতীয়তাভারতীয়
পেশাসাহিত্যচর্চা, সাংবাদিকতা
দাম্পত্য সঙ্গীগীতা রায়চৌধুরী
স্বাক্ষর
Asim-ray-signature-2.png

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

অসীম রায়ের জন্ম ভোলা, বরিশাল জেলায়। পিতার নাম ছিল ভবেশচন্দ্র রায়। মাতা জ্যোৎস্না দেবী । ১৯৩৮ সালে জলপাইগুড়ি থেকে কলকাতায় এসে ভবানীপুর মিত্র ইনস্টিটিউশনে সপ্তম শ্রেণীতে ভর্তি হন। ১৯৪৬ সালে কলকাতার প্রেসিডেন্সী কলেজ থেকে ইংরিজি অনার্স সহ স্নাতক । ছাত্রাবস্থায় ১৯৪৬ সালের ২৯ জুলাই ডাক ও তার বিভাগের ধর্মঘটের সমর্থনে মিছিলে যোগ দেন। ১৯৪৮ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরিজি সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ, স্বর্ণপদক সহ।

সাংবাদিকতাসম্পাদনা

দ্য স্টেটসম্যান ইংরাজী দৈনিকের সম্পাদনার মাধ্যমে তার সাংবাদিক জীবন শুরু হয়। প্রকাশকালের শুরু থেকে তিনি এখানে সাংবাদিকতা করেছেন।।

সাহিত্যসম্পাদনা

অসীম রায়ের রচনা মননশীল পাঠকদের কাছে অত্যন্ত সমাদরপ্রাপ্ত ও অগ্রগণ্য। তার উপন্যাস ও ছোটগল্প ছাড়াও রিপোর্টাজগুলি উন্নতমানের সাহিত্য হিসেবে বিবেচিত পাঠকমহলে। তার প্রথম উপন্যাস 'আগামী (মাঝি)' প্রকাশিত হয় ১৯৫১ খ্রীষ্টাব্দে (১৩৫৮ বঙ্গাব্দের ১৫ কার্তিক)। অন্যান্য উপন্যাসগুলির মধ্যে 'একালের কথা (অক্টোবর ১৯৫৭)', 'দেশদ্রোহী (চৈত্র ১৩৬৮)' এবং 'আবহমানকাল (অক্টোবর ১৯৭৭)' পাঠকমহলে সাড়া ফেলে। গল্পগুলোর মধ্যে 'অনি(১৯৫২)', না (১৯৫২),ধোয়া-ধুলো-নক্ষত্র (১৯৫৬), সলবেলো বাড়ীওয়ালা বাংলাদেশ (১৯৫৮), । নকশাল বিদ্রোহ ও ভারতের কমিউনিস্ট পার্টিগুলির আভ্যন্তরীণ ভাঙ্গন বিষয়ে তার গল্প 'অসংলগ্ন কাব্য (১৯৭৩)' এক মর্মস্পর্শী আখ্যান পেশ করে সেই সময়ের দলিল হিসেবে।

মৃত্যুসম্পাদনা

সাহিত্যিক অসীম রায় ৩ এপ্রিল ১৯৮৬ খ্রিষ্টাব্দে মারা যান।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

http://www.livemint.com/Leisure/vkDcqx0dMd93NdIwpgAMQI/Unspoken-words-ticking-clocks.html

  1. "সৃজন কথা"। আনন্দবাজার পত্রিকা। ১৩ জানুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৩.০২.১৭  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)