অপরাধ তদন্ত বিভাগ (পশ্চিমবঙ্গ)

পশ্চিমবঙ্গের প্রিমিয়ার ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি

ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট (সিআইডি) হলো ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের প্রধান তদন্ত সংস্থা।[৩] বাংলায়, অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) ১ এপ্রিল ১৯০৬ সালে জনাব সিডব্লিউসি প্লোডেনের অধীনে অস্তিত্ব লাভ করে। স্বাধীনতার পর সিআইডির প্রথম প্রধান ছিলেন এইচএন সরকার, আইপিজেপি। সিআইডি-এর সদর দফতর ভবানী ভবন, ৩১ বেলভেডের রোড, আলিপুর, কলকাতায় অবস্থিত[৪] বর্তমানে সিআইডি পশ্চিমবঙ্গের প্রধান পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিচালক, জ্ঞানবন্ত সিং, আইপিএস।[৫][৬]

অপরাধ তদন্ত বিভাগ পশ্চিমবঙ্গ
সংস্থার রূপরেখা
গঠিত১ এপ্রিল ১৯০৬
(১১৮ বছর আগে)
 (1906-04-01)
যার এখতিয়ারভুক্তপশ্চিমবঙ্গ সরকার
সদর দপ্তরভবানী ভবন, আলিপুর, কলকাতা −৭০০০২৭
২২°৩১′৪২.২৩″ উত্তর ৮৬°৫′৪৪.৬৬″ পূর্ব / ২২.৫২৮৩৯৭২° উত্তর ৮৬.০৯৫৭৩৮৯° পূর্ব / 22.5283972; 86.0957389
নীতিবাক্যঅপরাধের সাথে লড়াই করুন এবং জয় করুন
কর্মীআইপিএস: ১০
অতিরিক্ত এস.এস: ২
ডিএসপি: ২১
ইন্সপেক্টর: ৬১
বার্ষিক বাজেট ১৮৮.৫৭৭৩ কোটি (US$ ২৩.০৫ মিলিয়ন) (2021–22 est.)[১]
সংস্থা নির্বাহী
মূল বিভাগস্বরাষ্ট্র ও পার্বত্য বিষয়ক বিভাগ
ওয়েবসাইটcidwestbengal.gov.in উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

ইতিহাস

সম্পাদনা

ভারতীয় পুলিশ কমিশন ১৯০২-০৩ সালে প্রতিটি প্রদেশে অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) গঠনের সুপারিশ করেছিল এবং ২১ মার্চ ১৯০৫ সালে ভারত সরকার কমিশনের প্রস্তাব গ্রহণ করে। সরকার ১৯০৭ সালের মধ্যে প্রতিটি প্রদেশে বিভাগ চালু করার নির্দেশ জারি করে। বাংলায়, ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট (সিআইডি) ১ এপ্রিল ১৯০৬ সালে জনাব সিডব্লিউসি প্লোডেনের অধীনে অস্তিত্ব লাভ করে।[৪]

বিভাগ এবং ইউনিট

সম্পাদনা

সিআইডি, পশ্চিমবঙ্গের সদর দফতরে বিশেষ মামলার তদন্তের জন্য বেশ কয়েকটি বিশেষায়িত ইউনিট রয়েছে এবং সারা বাংলায় ২২টি ডিডি ইউনিট রয়েছে[৭] -

  1. তদন্ত ইউনিট/বিভাগ
  2. ডিডি ইউনিট
  3. বিশেষায়িত ইউনিট
  4. ফরেনসিক ইউনিট
  5. প্রশাসনিক অফিস

তদন্ত ইউনিট/বিভাগ

সম্পাদনা
ক্রমিকনং ডিডি নাম
হোমিসাইড স্কোয়াড
ডিআরবিটি বিভাগ
মোটর চুরি স্কোয়াড
স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ (এসওজি)
রেলওয়ে ও হাইওয়ে ক্রাইম সেল
বিশেষ অপরাধ ইউনিট
সাইবার ক্রাইম সেল (এছাড়াও সাইবার ফরেনসিক কভার করে)
নারকোটিক সেল
অর্থনৈতিক অপরাধ শাখা (ইওডব্লিউ)
১০ প্রতারণা ও জালিয়াতি বিভাগ
১১ প্রটেকশন অফ উইমেন অ্যান্ড চিলড্রেন সেল (পিওডব্লিউসি)
১২ অ্যান্টি হিউম্যান ট্রাফিকিং ইউনিট (এএইচটিইউ)

বিশেষায়িত ইউনিট

সম্পাদনা
ক্রমিকনং ডিডি নাম
বিশেষ কন্ট্রোল রুম
বোমা ডিটেকশন অ্যান্ড ডিসপোজাল স্কোয়াড (বিভিন্ন জেলায় এর বিস্তৃতি রয়েছে)
নিখোঁজ ব্যক্তি ব্যুরো
আইন বিভাগ
কম্পিউটার সেকশন
অ্যান্টি টেররিজম স্কোয়াড (ATS)
ফটোগ্রাফি ব্যুরো
সিআই সেকশন
সিআইডব্লিউ সেকশন

ফরেনসিক ইউনিট

সম্পাদনা
ক্রমিকনং ডিডি নাম
ফিঙ্গার প্রিন্ট ব্যুরো
প্রশ্নবিদ্ধ নথি পরীক্ষা ব্যুরো
সিএফডিইএল

উল্লেখযোগ্য মামলা

সম্পাদনা

সিআইডি পশ্চিমবঙ্গ সাধারণ ঘটনাগুলি ছাড়াও অনেক উল্লেখযোগ্য এবং অনন্য মামলায় জড়িত।[৮]

ভুয়া ডাক্তারের মামলা

সম্পাদনা

এপ্রিল ২০১৭-এ পশ্চিমবঙ্গ মেডিকেল কাউন্সিল পশ্চিমবঙ্গ সিআইডিকে জানিয়েছিল যে বেশ কিছু ভুয়া ডাক্তার বাংলায় কাজ করছে এবং তাদের তদন্ত করার অনুরোধ করেছে। তদন্তে জানা গেছে যে গ্রেফতারকৃত ভুয়ো ডাক্তারদের বেশিরভাগই কোঠারি মেডিক্যাল, বেলে ভিউ ক্লিনিক সহ রাজ্যের কয়েকটি নামী হাসপাতালের সাথে যুক্ত ছিলেন।[৯][১০][১১] ২০১৭ সালের জুনের মধ্যে ৫০০ জনের বেশি ভুয়া ডাক্তার শনাক্ত হয়েছে।[১২][১৩][১৪] এর পরে বেশ কয়েকটি গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং পশ্চিমবঙ্গ সিআইডি সহ রাজ্য স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে জাল ডাক্তারদের খুঁজে বের করার জন্য একটি অ্যাপ চালু করার পরিকল্পনা করছে।[১৫][১৬] ভুয়া মেডিকেল ইনস্টিটিউট ও মেডিকেল কলেজও সিলগালা করা হয়েছে।[১৭]

শিশু পাচারের মামলা

সম্পাদনা

ঘটনাটি নভেম্বর ২০১৬-এ প্রকাশ পায় যখন প্রমাণ পাওয়া যায় যে কীভাবে একটি হাসপাতাল এক মাসে ৬৫ টিরও বেশি শিশু বিক্রি করছে যেখানে ডাক্তাররা স্বীকার করেছেন যে তারা কয়েক দশক ধরে এই বাণিজ্যের সাথে জড়িত। মামলাটি ধরা পড়ার আট মাস পরে, পুলিশ এখন দাবি করছে প্রায় ১৫০ টি হাসপাতাল এই র‌্যাকেটের সাথে জড়িত। তদন্তের ফলে প্রায় ১০,০০০ শিশুর অবৈধভাবে হাত বদলানো সম্পর্কিত তথ্য পাওয়া গেছে।[১৮][১৯][২০] প্রমাণের ফলে আমেরিকায় এতিমখানা বেআইনিভাবে বাচ্চা বিক্রি করছে।[২১]

ব্লু হোয়েল গেম কেস

সম্পাদনা

ভারতে ব্লু হোয়েল গেমের প্রাদুর্ভাবের সময়, পশ্চিমবঙ্গ সিআইডি সচেতনতা প্রচারের পাশাপাশি একজন ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্রকে আত্মহত্যায় তার জীবনের ঝুঁকি নেওয়া থেকে বাঁচিয়েছিল।[২২][২৩][২৪]

আরো দেখুন

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "Detailed Demands For Grants For 2022–23" (পিডিএফ)। মার্চ ১১, ২০২২। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১১, ২০২২ 
  2. "IPS officer R Rajasekaran appointed chief of West Bengal CID"ThePrint 11:30 pm IST। মে ৫, ২০২২। সংগ্রহের তারিখ মে ৫, ২০২২ 
  3. Verfasser, Corneille, Pierre (২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০)। Le Cidআইএসবিএন 978-3-7502-8681-8ওসিএলসি 1156883690 
  4. "Criminal Investigation Department West Bengal" 
  5. "Shuffle in CID ranks, new chief appointed"The Telegraph (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২৮ 
  6. "Sanjoy Mukherjee is new CID chief"Asian Age। ২০১৭-১১-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  7. "CID West Bengal – About Us"cidwestbengal.gov.in/ 
  8. "West Bengal CID arrests man for 'cheating' people of Rs 100 crore"The Indian Express (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-১০-২৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  9. "West Bengal: CID launches statewide hunt to nab more 'fake' doctors after arrest of three"Hindustan Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৫-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  10. "'Fake doctors' racket: CID team visits Ruby Hospital in Kolkata"The Indian Express (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৫-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  11. "Bengal CID Busts Racket Selling Fake MBBS Degree Certificates"News18। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  12. "Over 500 fake doctors identified by CID in Bengal"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। PTI। ২০১৭-০৬-০৭। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  13. "Fake Doctors' Arrests: 500 more Fraudsters Feared in West Bengal"News18। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  14. "Fake doctors have spread to different corners of Bengal : CID"Outlook India। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  15. "CID app to spot fake doctors"The Telegraph (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  16. "Fake Doctors' Racket Uncovered in Bengal With Several Arrests"The Quint (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  17. "More fake doctors arrested, CID seals three institutes – Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  18. "West Bengal: CID uncovers newborn trafficking racket"The Indian Express (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-১১-২৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  19. "Firstpost Investigation: Bengal's 'baby sale' racket saw 10,000 newborns sold in 20 years – Firstpost"www.firstpost.com। ১৭ এপ্রিল ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  20. "Babies for sale"Frontline (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০১-১৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  21. "Bengal orphanage babies sold in America"The Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  22. "Blue whale challenge: CID saves a student in West Bengal from risking his life"The Indian Express (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৮-২৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  23. "West Bengal CID initiates a Facebook awareness campaign on the Blue Whale game- Technology News, Firstpost"Tech2 (ইংরেজি ভাষায়)। ২৮ আগস্ট ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫ 
  24. "Bengal CID saves engineering student from jaws of Blue Whale"Hindustan Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৮-২৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০২-০৫