স্বরমাধুর্য (গ্রীক μελῳδία, melōidía, "গাওয়া, জপ করা") [১] বা 'টিউন (সুর), ভয়েস বা লাইন নামেও পরিচিত হ'ল সাংঙ্গীতিক সুরের একটি রৈখিক উত্তরসূরি যা শ্রোতা একক সত্তা হিসাবে উপলব্ধি করে। আক্ষরিক অর্থে স্বরমাধুর্য হ'ল পিচ এবং ছন্দ এর সংমিশ্রণ। যদিও আরও গঠনগতভাবে শব্দটিতে আরও টোনাল রঙ এর মতো অন্যান্য পরম্পরার সাঙ্গীতিক উপাদান অন্তর্ভূক্ত থাকতে পারে। একে পটভূমির অনুসঙ্গে অগ্রভাগ হিসাবে বিবেচনা করা যেতে পারে। একটি লাইন বা অংশ এর পক্ষে অগ্রভাগের স্বরমাধুর্য হওয়ার দরকার পড়ে না।

একটি বার (কাউন্টারপয়েন্ট এর উদাহরণ সহ): জে. এস. বাখ এর এ-ফ্ল্যাট এর ফিউগু নং ১৭ থেকে,ওয়েল-টেম্পার্ড ক্ল্যভিয়ার (প্রথম খন্ড) থেকে বিডব্লিউভি ৮৬২। প্রতিটি স্টাফ এর দুটি ভয়েস বা স্বর (সুর) স্টেম এবং বীম এর অভিমুখ দ্বারা আলাদা করা যায়।
ভয়েস ১
ভয়েস ২
ভয়েস ৩
ভয়েস ৪

স্বরমাধুর্যগুলিতে এক বা একাধিক ফ্রেজ বা মোটিফ (কারুকার্য) থাকতে পারে এবং সেগুলি সাধারণত বিভিন্ন আকারে একটি রচনা জুড়ে পুনরাবৃত্ত হয়। স্বরমাধুর্য বর্ণিত হতে পারে তাদের সুরেলা গতি বা পিচ অথবা পিচের মধ্যবর্তী অন্তরায় (প্রধানত সংযুক্ত বা বিচ্ছিন্ন বা আরও বিধিনিষেধ সহ), পিচ ব্যাপ্তি, উত্তেজনা এবং মোক্ষণ, ধারাবাহিকতা এবং একাত্মতা, ক্যাডেন্স এবং আকার দ্বারা।

সংগীতের প্রকৃত লক্ষ্য - এর যথাযথ উদ্যোগপূর্ণ স্বরমাধুর্য। সমস্ত অংশের ঐক্যতানের (হারমোনি) চূড়ান্ত উদ্দেশ্য হচ্ছে কেবল সুন্দর স্বরমাধুর্য সৃষ্টি। সুতরাং যে ব্যাপারটি আরও গুরুত্বপূর্ণ তা হল (তা না হলে) স্বরমাধুর্য বা হারমোনি বা ঐক্যতান নিরর্থক (হয়ে পড়বে)। সন্দেহের অবকাশ নেই যে সমস্ত উপায়গুলিই অন্তিমের অধীনস্থ।

উপাদানসমূহসম্পাদনা

বিভিন্ন ও বৈচিত্র্যময় উপাদান এবং স্বরমাধুর্যের প্রদত্ত শৈলীর "অনেক বিদ্যমান ব্যাখ্যা (স্বরমাধুর্য সম্পর্কিত) নির্দিষ্ট শৈলীর মডেলে আমাদের সীমাবদ্ধ রাখে এবং সেগুলি খুবই একচেটিয়াভাবে করে।"[৩] পল নার্ভসন ১৯৮৪ সালে দাবি করেছিলেন যে তিন চতুর্থাংশেরও বেশি স্বরমাধুর্য সম্পর্কিত বিষয়বস্তু পুরোপুরি অনুসন্ধান করা হয়নি।[৪]

বিংশ শতাব্দীর আগে রচিত বেশিরভাগ ইউরোপীয় সংগীত এবং ২০ম শতাব্দীর জনপ্রিয় সংগীতে বিদ্যমান সুরগুলি "স্থির এবং ফ্রিকোয়েন্সির ধরণ-এ সহজেই বিবেচনাযোগ্য", " সমস্ত কাঠামোগত স্তরে পুনরাবৃত্ত ঘটনাগুলি প্রায়ই পর্যায়ক্রমিক" এবং "সময়কালের পুনরাবৃত্ত এবং ব্যাপ্তির ধরণে (সদৃশ)"।[৩]

২০ শতক এর স্বরমাধুর্যে যে কোনও পাশ্চাত্য সঙ্গীত-এ ঐতিহাসিক পর্বের পিচ সম্পদের "ব্যাপক বৈচিত্রের সদ্ব্যবহার" দেখা যায়। "ডায়োটোনিক স্কেল এখনও ব্যবহার করা হলেও ক্রোম্যাটিক স্কেল "ব্যাপকভাবে প্রযুক্ত" হচ্ছে।[৩] সুরকাররা "গুণগত মাত্রা" এর জন্য একটি কাঠামোগত ভূমিকাও বরাদ্দ করেছিলেন যা আগে "প্রায় একচেটিয়াভাবে পিচ এবং তালের জন্য সংরক্ষিত ছিল"। ক্লিউয়ার বলেছেন "যে কোনও স্বরমাধুর্যের প্রয়োজনীয় উপাদানগুলি হ'ল সময়কাল, পিচ এবং গুণমান (টিম্বব্রে), টেক্সচার এবং উচ্চগ্রাম।[৩] যখন বিভিন্ন পরিসরে টিম্ব্রেস এবং ডায়নামিক্সের সাথে বাজানো হয় তখনও একই স্বরমাধুর্য চিনতে পারা যায়। শেষোক্ত ক্ষেত্রে তা "রৈখিক ক্রমের উপাদান"ও হতে পারে। [৩]

উদাহরণসম্পাদনা

 
"পপ গোজ ওয়েসেল" স্বরমাধুর্য

বিভিন্ন সাঙ্গীতিক শৈলী বিভিন্নভাবে স্বরমাধুর্য ব্যবহার করে। কিছু উদাহরণ:

আরো দেখুনসম্পাদনা

আরও পাঠসম্পাদনা

বাহ্যিক সংযোগসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. μελῳδία. Liddell, Henry George; Scott, Robert; পারসিয়াস প্রজেক্টে এ গ্রিক–ইংলিশ লেক্সিকন.
  2. Forte, Allen (1979). Tonal Harmony in Concept & Practice, p. 203. আইএসবিএন ০-০৩-০২০৭৫৬-৮.
  3. Kliewer, Vernon (1975). "Melody: Linear Aspects of Twentieth-Century Music", Aspects of Twentieth-Century Music, pp. 270–301. Wittlich, Gary (ed.). Englewood Cliffs, New Jersey: Prentice-Hall. আইএসবিএন ০-১৩-০৪৯৩৪৬-৫.
  4. Narveson, Paul (1984). Theory of Melody. আইএসবিএন ০-৮১৯১-৩৮৩৪-৭.