সুফি (কার্টুনিস্ট)

কার্টুন শিল্পী

সুফি (১৯৪০ - ২৪ জুলাই,২০০৩) ছিলেন খ্যাতনামা বাঙালি কার্টুনিস্ট।[১] তার প্রকৃত নাম নরেন রায়[২]

সুফি (কার্টুনিস্ট)

জন্ম ও ব্যক্তিজীবনসম্পাদনা

সুফি ১৯৪০ সালে বৃটিশ ভারতের অধুনা বাংলাদেশের কুমিল্লায় জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা যোগেশচন্দ্র রায় এবং মাতা প্রমিলাসুন্দরী। দেশভাগের পর তার পরিবার ভারতে চলে আসেন ও পশ্চিমবঙ্গের হাওড়ার শিবপুরে বসবাস করতে থাকেন।[১][২]

শিক্ষাজীবন ও কর্মজীবনসম্পাদনা

১৯৫৬ সালে দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করে স্কুল-ফাইনাল পাস করেন। কলেজে ভর্তি হবার সময় থেকে তিনি কার্টুন আঁকা শুরু করেন (কলেজে ভর্তি হলেও তিনি আর্থিক কারণে কিছুদিনের মধ্যেই পড়াশুনো ছেড়ে দিতে বাধ্য হন)। তার প্রথম কার্টুন প্রকাশিত হয় ‘গড়ের মাঠ’ নামের এক খেলার কাগজে, সেটা ছিল ইস্টবেঙ্গল - মোহনবাগান নিয়ে মজার কার্টুন। এরপর, ‘স্বাধীনতা’ পত্রিকায় তার আঁকা ছবি প্রকাশিত হয়; প্রথমে কেবল ছোটদের জন্য আঁকতেন তিনি, পরে রবিবাসরীয় পাতার দায়িত্বে থাকা অরুন রায় শিল্পীকে নিয়ে আসেন রবিবারের পাতায়। ‘সুফি’ নামটি অরুন রায়েরই দেওয়া। ‘স্বাধীনতা’ কাগজেই তার প্রথম রাজনৈতিক কার্টুন প্রকাশিত হয়।

এছাড়া, আরো অনেক কাগজে কার্টুন এঁকেছেন তিনি। ‘যষ্টিমধু’, ‘প্রহরা’, ‘সচিত্র তোমার জীবন’, ‘মঞ্চকথা’, ‘সংগীতিকা’, ‘ব্যঙ্গজগৎ’, ‘সচিত্র ভারত’, ‘যুগান্তর’, ‘বসুমতী’তে এঁকেছেন। পরবর্তীকালে এঁকেছেন ছোটদের জন্য ‘শুকতারা’র পাতায়। ‘সুফি’ ছাড়াও বেশকিছু ছদ্মনাম ছিলো তার, যেমন- সঞ্জয়, বিনি, বিরিঞ্চি, প্রমীলা রায়

বিখ্যাত কার্টুনিস্ট কে. এস. পিল্লাই, ওরফে শঙ্কর দিল্লী থেকে ‘শঙ্কর’স উইকলী’ নামক কার্টুন পত্রিকা বের করতেন; এই কাগজেও সুফির আঁকা ছবি স্থান পেয়েছে।

হাওড়া জেলা স্কুল বোর্ডে চাকরি নিয়েছিলেন, কিন্তু তার কার্টুন উপর-ওয়ালার চোখে পড়ে যাওয়ায় কর্মচ্যুত হন। এরপরে আর কোনো চাকরি নেননি তিনি।

সুফি ছিলেন বামপন্থী মতাবলম্বী, ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী)র মুখপত্র ‘গণশক্তি’ পত্রিকাতে কার্টুন আঁকতেন তিনি। যদিও সক্রিয় রাজনীতি করেননি। একজন শিল্পী হিসেবে সমাজের নানা দিক ফুটিয়ে তুলতেন তার ব্যাঙ্গচিত্রে।

কার্টুনে নিছক রঙ্গ তিনি পছন্দ করতেন না, তিনি চাইতেন সমাজ সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে আঁকতে। এজন্য তাকে সমসাময়িক বিশ্বের ঘটনাপ্রবাহ নিয়ে সচেতন থাকতে হত। দেশ-বিদেশের কার্টুনিস্টদের কাজ নিয়ে ওয়াকিবহাল ছিলেন তিনি। দারিদ্র্য-অভাব ছিল তার নিত্যসঙ্গী, কিন্তু শিল্পীমানসকে তা ক্ষুণ্ণ করতে পারেনি।

মৃত্যুসম্পাদনা

সুফি ২০০৩ সালে মৃত্যুবরণ করেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, দ্বিতীয় খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, জানুয়ারি ২০১৯ পৃষ্ঠা ১৮৬, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-২৯২-৬ উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "সংসদ" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  2. "নরেন রায়"টুনস ম্যাগ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-১৪ 
  1. ‘পলিমাটি’ (পশ্চিমবঙ্গ গণতান্ত্রিক লেখক শিল্পী সংঘ, উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলা কমিটি ) শারদ সংখ্যা- ১৪১০
  2. ‘রোববার’ (‘সংবাদ প্রতিদিন’)- ১১ জুলাই, ২০১০

বহিঃসংযোগসম্পাদনা