সিম কার্ড

মোবাইলের জন্য সমন্বিত বর্তনী

সিম (SIM) একটি স্মার্ট পরিচয় ব্যবস্থা।[১] এর পূর্ণরুপ - 'সাবসক্রাইবার আইডেনটিটি মডিউল' (subscriber identification module) যার বাংলা অর্থ 'গ্রাহক পরিচিতি মডিউল'। এটি একটি সমন্বিত বর্তনী (integrated circuit) যা মোবাইল ফোনের জন্য প্রয়োজনীয় 'সার্ভিস সাবসক্রাইবার কী' (service-subscriber key (IMSI)) এর সাথে সংযুক্ত।

একটি সাধারণ সিম কার্ড (মাইক্রো-সিম কাটআউটের সাথে মিনি-সিম)
বাংলাদেশের বৃহৎ চারটি সিম পরিষেবাদানকারী

নকশাসম্পাদনা

 
সিম চিপের গঠন এবং প্যাকেজিং

সিম কার্ডগুলির জন্য তিন ধরনের অপারেটিং ভোল্টেজ রয়েছে: ৫ ভোল্ট, ৩ ভোল্ট এবং ১.৮ ভোল্ট (আইএসও/আইইসি ৭৮১৬- ৩ শ্রেণীর এ, বি ও সি)। ১৯৯৮ সালের আগে চালু হওয়া সিম কার্ডের অধিকাংশের অপারেটিং ভোল্টেজ ৫ ভোল্ট[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

 
৪ বাই ৪ মিলিমিটার (০.১৬ ইঞ্চি × ০.১৬ ইঞ্চি) সিলিকন চিপের একটি সিম কার্ড যা খোলা হয়েছে। পাতলা স্বর্ণের তারের বন্ধন এবং নিয়মিত, আয়তক্ষেত্রাকার ডিজিটাল মেমরি অংশ

আধুনিক সিম কার্ডগুলি গ্রাহক দ্বারা ব্যবহার করার সময় অ্যাপ্লিকেশন লোড করার অনুমতি দেয়।

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

  1. Tait, Don (২৫ আগস্ট ২০১৬)। "Smart card IC shipments to reach 12.8 billion units in 2021"IHS Technology। IHS Markit। সংগ্রহের তারিখ ২৪ অক্টোবর ২০১৯