সালমা খাতুন (ট্রেন চালক)

বাংলাদেশের প্রথম নারী ট্রেন চালক

সালমা খাতুন (জন্ম: ১ জুন, ১৯৮৩) বাংলাদেশের প্রথম নারী ট্রেন চালক।[১] ২০০৪ সালে বাংলাদেশ রেলওয়েতে সহকারী চালক হিসেবে যোগদানের মাধ্যমে তিনি দেশের প্রথম নারী হিসেবে ট্রেন চালনা পেশায় আসেন ।[২]

সালমা খাতুন
বাংলাদেশের প্রথম নারী ট্রেন চালক সালমা খাতুন.jpg
জন্ম (1983-06-01) ১ জুন ১৯৮৩ (বয়স ৩৭)
জাতীয়তাবাংলাদেশী
শিক্ষামাস্টার্স
মাতৃশিক্ষায়তন
পেশাট্রেন চালক
কর্মজীবন২০০৪
প্রতিষ্ঠানবাংলাদেশ রেলওয়ে
পরিচিতির কারণবাংলাদেশের প্রথম নারী ট্রেন চালক
পিতা-মাতা
  • বেলায়েত হোসেন (পিতা)
  • তাহেরা খাতুন (মাতা)

জন্মসম্পাদনা

টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুরের অর্জুনা গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন (১৯৮৩)।

শিক্ষা ও কর্মজীবনসম্পাদনা

অর্জুনা মুহসীন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি (২০০০) এবং কুমুদিনী সরকারি কলেজ থেকে প্রথম বিভাগে এইচএসসি পাস করেন (২০০২)। তৎকালীন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে(বর্তমান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়)প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হন।কবি নজরুল সরকারি কলেজ থেকে ২০১৫ সালে মাস্টার্স করেছেন সালমা। এর আগে বিএসএস ডিগ্রি ও বিএড কোর্স সম্পন্ন করেছেন। প্রচলিত পেশার বাইরে সালমা খাতুন নিজের ইচ্ছাতেই ট্রেন চালক হিসেবে কাজ শুরু করেন। ২০০৪ সালে তার কর্মজীবনের সূচনা হয় সহকারী লোকোমাস্টার হিসেবে। বাংলাদেশে রেলওয়েতে এখন আরও অন্তত ১৫ জন নারী ট্রেন চালক থাকলেও এর সূচনা হয়েছিলো সালমা খাতুনের মাধ্যমেই। এখন মূল চালকের সহকারী হিসেবে থাকলেও আর কিছুদিন পরেই পূর্ণাঙ্গ চালক হিসেবে তিনি একাই চালাবেন আন্ত:নগর ট্রেন। একজন সহকারী চালককে পূর্ণাঙ্গ চালক হতে দশ বছরেরও বেশি সময় লাগে। কারণ শুধু ট্রেন চালানোই নয় তাদের শিখতে হয় যান্ত্রিক ও কারিগরি অনেক বিষয়ও।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

কৃষক বাবা বেলায়েত হোসেন ও গৃহিনী মা তাহেরা খাতুনের ৫ সন্তানের মধ্যে চতুর্থ সালমা খাতুনের জন্ম টাঙ্গাইলে ১৯৮৩ সালের ১লা জুন।তার আরও তিন ভাই ও এক বোন রয়েছে। ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত সালমা খাতুনের স্বামী জজকোর্টে কাজ করেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা