সামিরা খলিল ( আরবি: سميرة الخليل‎‎ ) একজন সিরিয়ান ভিন্নমতাবলন্বী, সাবেক রাজনৈতিক বন্দী এবং সিরিয়ার হোমস অঞ্চলের একজন বিপ্লবী কর্মী।সিরিয়ার আল-আসাদ সরকারের বিরোধিতার জন্য তাকে ১৯৮৭-১৯৯১ পর্যন্ত চার বছর ধরে গ্রেপ্তার এবং আটক করে রাখা হয়েছিল। দৌমায় ৯ ডিসেম্বর ২০১৩ সালের অপহরণের পর খলিল সহকর্মী রাজন জাইতৌনেহ, ওয়ায়েল হামাদা এবং নাজেম হাম্মাদি সাথে নিখোঁজ হন।

আটকসম্পাদনা

সিরিয়াতে হাফেজ আল-আসাদ সরকারের বিরোধিতার জন্য সামিরা খলিলকে ১৯৮৭ থেকে ১৯৯১ পর্যন্ত চার বছর ধরে গ্রেপ্তার এবং আটক করা হয়েছিল।

মানবাধিকার কার্যক্রমসম্পাদনা

আশির দশকে কারাবাসের পর, খলিল বন্দিদের পরিবারের সাথে কাজ করার এবং সিরিয়ায় আটকে রাখার বিষয়ে লেখালেখির প্রচেষ্টা চালান, যদিও তার আগে একটি প্রকাশনা সংস্থা পরিচালনা করেছিলেন। অপহরণের আগে, তিনি দৌমায় নারীদের সাহায্য করার জন্য কাজ করছিলেন যাতে তারা ছোট আয় সৃষ্টিকারী কর্মসংস্থান শুরু করে। পাশাপাশি তিনি দৌমায় অবস্থান করে দু'টি নারী কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার জন্য চেষ্টা চালান।

অপহরণের পূর্বে ২০১৩ সালে খলিল এবং তার স্বামী ইয়াসিন আল-হাজ সালেহ তাদের জীবনের সময়কালকে বালাদনা আলরাহিব (আমাদের ভয়ঙ্কর দেশ) নামক প্রামাণ্যচিত্র বিষয়ে নথিভুক্ত করেছিল ।

সিরিয়ায় সেন্টার ফর ডকুমেন্টেশন অব ভায়োলেশনের কাজ করার জন্য খলিলকে ২০১৪ সালে হেনরিচ বুল ফাউন্ডেশন পেট্রা কেলি পুরস্কারে ভূষিত করে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা