সামাজিক সুরক্ষা

সমাজের দরিদ্র, অসহায় ও আক্রান্তপ্রবণ ব্যক্তিদের সহায়তাদান

জাতিসংঘের সামাজিক উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সংজ্ঞানুযায়ী সামাজিক সুরক্ষা বলতে সমাজের জনগণের কল্যাণের উপর বিরূপ প্রতিক্রিয়া ফেলে এমন সব পরিস্থিতি প্রতিরোধ, ব্যবস্থাপনা ও সেগুলি থেকে উত্তরণ করার সাথে সংশ্লিষ্ট সব কর্মকাণ্ড ও পদক্ষেপকে বোঝায়।[১] সামাজিক সুরক্ষা বলতে এমন সব নীতি ও কর্মসূচির সমবায়কে বোঝায়, যেগুলিকে দক্ষ শ্রমবাজার সৃষ্টি, মানুষের ঝুঁকির সংস্পর্শে আসা হ্রাসকরণ ও মানুষদের অর্থনৈতিক ও সামাজিক ঝুঁকি (যেমন বেকারত্ব, সমাজ থেকে বিচ্ছিন্নতা, অসুস্থতা, পঙ্গুত্ব ও বার্ধক্য) ব্যবস্থাপনা করার সামর্থ্য বৃদ্ধি করার মাধ্যমে সমাজে দারিদ্র্য ও আক্রান্তপ্রবণতা হ্রাস করার নিমিত্তে নকশা করা হয়।[২] সামাজিক সুরক্ষা জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য নং ১০-এ বিবৃত লক্ষ্যগুলির একটি, যার উদ্দেশ্য অধিকতর সমতা উৎসাহিত করা।[৩]

সামাজিক সুরক্ষা সোপান

সবচেয়ে প্রচলিত কিছু সামাজিক সুরক্ষামূলক কার্যক্রম হল শ্রমবাজার হস্তক্ষেপ, সামাজিক বীমাসামাজিক নিরাপত্তা জাল (বা সামাজিক সাহায্য)। শ্রমবাজার হস্তক্ষেপ হল কর্মসংস্থানকে উৎসাহিত করা, শ্রমবাজারের দক্ষ ক্রিয়া ও শ্রমিকদের সুরক্ষার জন্য গৃহীত নীতি ও কর্মসূচিসমূহ। সামাজিক বীমা হল বেকারত্ব, অসুস্থতা, পঙ্গুত্ব, পেশাজনিত আঘাত ও বার্ধক্যের সাথে সংশ্লিষ্ট ঝুঁকিগুলি হ্রাসকরণ, যেমন স্বাস্থ্য বীমা বা বেকার ভাতা। সামাজিক নিরাপত্তা জাল হল অসহায় আক্রান্তপ্রবণ ব্যক্তি বা পরিবারদেরকে (যেমন একক পিতা বা মাতা, গৃহহীন, শারীরিক বা মানসিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তি) অর্থ বা অন্য কোনও সহায়ক সম্পদ হস্তান্তর করা।

আরও দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. United Nations Research Institute for Social Development (UNRISD). 2010. Combating Poverty and Inequality: Structural Change, Social Policy and Politics.
  2. World Bank. 2001. Social Protection Sector Strategy Paper: From Safety Net to Springboard. Washington DC, USA.
  3. "Goal 10 targets"UNDP (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-১১-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৩ 

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা