সাইয়িদ আতীকুল্লাহ

সাইয়িদ আতীকুল্লাহ (১৯৩৩-১৯৯৮) ছিলেন একজন বাংলাদেশী লেখক, কবি, এবং সাংবাদিক।[১][২] ১৯৭৪ সালে তিনি তার ছোটগল্পের জন্য বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার লাভ করেন।

সাইয়িদ আতীকুল্লাহ
জন্ম১৯৩৩
ঘাটাইল, টাঙ্গাইল
মৃত্যু১৪ নভেম্বর ১৯৯৮
জাতীয়তাবাংলাদেশী
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
পেশাব্যাংক কর্মকর্তা
পরিচিতির কারণকবি, লেখক
পুরস্কারবাংলা একাডেমি পুরস্কার (১৯৭৪)
সুফী মোতাহার হোসেন পুরস্কার
হাসান হাফিজুর রহমান স্বর্ণপদক

জীবনীসম্পাদনা

আঠারদানা, ঘাটাইল উপজেলায় ১৯৩৩ সালে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তার বড় পরিচয় ছিলো সমসায়কি সময়ের একজন কবি ও গল্পকার। তিনি ১৪ নভেম্বর ১৯৯৮ সালে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন।

কর্মজীবনসম্পাদনা

১৯৫২-র  ভাষা আন্দোলনএ অংশগ্রহণ করে কারারুদ্ধ হন। তিনি জনতা ব্যাংকের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার ছিলেন। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ ও আশির দশকে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনেও তিনি সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। তার প্রধান অবদান সাহিত্যে। কবিতা তার আত্মপ্রকাশের প্রধান মাধ্যম, তবে তিনি অনেক গল্পও রচনা করেছেন। তার ছিল একটি প্রতিবাদী কণ্ঠ; সাংবাদিকতা ও সাহিত্যকর্ম উভয় ক্ষেত্রেই তার প্রতিবাদী ও সংগ্রামী চেতনার প্রকাশ ঘটেছে। তিনি সাংবাদিকতায় যেমন নিপুণ পর্যবেক্ষণ ক্ষমতার স্বাক্ষর রেখেছেন, সাহিত্যেও তেমনি তীক্ষ্ণ জীবনবোধ ও সমাজবাস্তবতার পরিচয় দিয়েছেন। মননশীলতা ও মহত্ত্বচেতনা তাকে সাহিত্যাঙ্গনে স্বতন্ত্র মর্যাদা দিয়েছে। তার কবিতার ভাষা অকপট এবং বর্ণনাভঙ্গিও আবেগমুক্ত। তার কণ্ঠে শ্লেষ ছিল, কিন্তু তা ছিল শিল্পময়।[৩]

উল্লেখযোগ্য গ্রন্থসম্পাদনা

  • কাব্য,
  • আমাকে ছাড়া অনেক কিছু,
  • আঁধির যতো শত্রু-মিত্র,
  • অদম্য পথিকের গান,
  • এই যে তুমুল বৃষ্টি
  • বুধবার রাতে (গল্প গ্রন্থ),
  • সেগডেন হ্রদ (অনুবাদ)।

মৃত্যুসম্পাদনা

আতিকুল্লাহ ১৯৯৮ সালে মারা যান। [৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখক তালিকা – বাংলা একাডেমি" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৭ 
  2. "আতীকুল্লাহ, সাইয়িদ - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৭ 
  3. জালাল ফিরোজ (ফেব্রু ১, ২০১৯)। "অমর একুশে বইমেলা অতীত বর্তমান ও ভবিষ্যৎ"bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ মে ১১, ২০২০ 
  4. "Atiqullah, Sayeed"en.banglapedia.org (ইংরেজি ভাষায়)। Banglapedia। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৮