সম্ভাব্য বিপদ

জীবন, স্বাস্থ্য, সম্পত্তি বা পরিবেশের জন্য সম্ভাব্য হুমকি সৃষ্টি করে এমন পরিস্থিতি

সম্ভাব্য বিপদ হল এমন কোনও পদার্থ, ঘটনা বা পরিস্থিতি যা তাত্ত্বিকভাবে ভবিষ্যতে কোনও ঝুঁকিপ্রবণ বা আক্রান্তপ্রবণ ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা ব্যবস্থায় বিপর্যয় বা জরুরি অবস্থার সৃষ্টি করে স্বাস্থ্যহানি, প্রাণহানি, সম্পত্তির ক্ষতি বা অন্য যেকোনও ধরনের মূল্যবান স্বার্থের জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারে।[১] যখন সম্ভাব্য বিপদটি বাস্তবে রূপ নেয় ও ক্ষতি করে, তখন সেটিকে অঘটন বলে।

সম্ভাব্য বিপদ ও ঝুঁকির মধ্যে সূক্ষ্ম পার্থক্য আছে। সম্ভাব্য বিপদ এককভাবে কোনও ক্ষতির বা ক্ষতির ঝুঁকির কারণ হতে পারে না, ক্ষতির সম্ভাব্য শিকারকেও ঐ সম্ভাব্য বিপদের সংস্পর্শে বা আওতায় উপস্থিত থাকতে হয়। যখন সম্ভাব্য বিপদের দ্বারা আক্রান্তযোগ্য ব্যক্তি ঐ বিপদের আওতায় বা সংস্পর্শে আসে, কেবল তখনই ঐ ব্যক্তিটির জন্য ঝুঁকির সৃষ্টি হয়। যেমন সমুদ্রে হাঙরের আক্রমণ একটি সম্ভাব্য বিপদ, কিন্তু কোনও ব্যক্তি যদি কখনোই সমুদ্রে না নামে, তাহলে তার ঐ সম্ভাব্য বিপদ থেকে কোনও ঝুঁকি থাকে না। তবে যদি ব্যক্তিটি সমুদ্রে নেমে সাঁতার কাটতে শুরু করে, তাহলে ঐ সম্ভাব্য বিপদ থেকে ঝুঁকির সৃষ্টি হয়। সম্ভাব্য বিপদ থেকে অঘটন ঘটনার সম্ভাবনা ও আক্রান্তযোগ্য ব্যক্তি বা ব্যবস্থাতে সম্ভাব্য ক্ষতির মাত্রা -- এই দুইটি ব্যাপার মিলে ঐ সম্ভাব্য বিপদের ঝুঁকির পরিমাণ নির্ধারণ করে।

সম্ভাব্য বিপদগুলিকে বিভিন্ন উপায়ে শ্রেণীকরণ করা সম্ভব, যেমন প্রাকৃতিক, মানবঘটিত, প্রযুক্তিগত বা এগুলির যেকোনও যৌগিক সমবায়। পারমাণবিক চুল্লী ও রাসায়নিক পদার্থ কিছু মানবঘটিত সম্ভাব্য বিপদ। অন্যদিকে আগ্নেয়গিরির আগ্নেয় কর্মকাণ্ড এক ধরনের প্রাকৃতিক সম্ভাব্য বিপদ। সম্ভাব্য যৌগিক বিপদের মধ্যে আছে দাবানলের মতো প্রাকৃতিক ঘটনাটি মানবঘটিত জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে দিন দিন বেশি করে ঘটছে। সম্ভাব্য বিপদগুলির অনেকগুলির একটি সাধারণ বৈশিষ্ট্য হল এগুলিতে স্থিতিশক্তি বা সঞ্চিত শক্তির উপস্থিতি, যেটি মুক্তি পেলে ক্ষতির কারণ হতে পারে। সঞ্চিত শক্তিটি রাসায়নিক, যান্ত্রিক, তাপীয়, ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের হতে পারে, এবং সম্ভাব্য বিপদগুলিকে ঐভাবেও শ্রেণীবদ্ধ করা হতে পারে। আবার সম্ভাব্য বিপদকে ঐচ্ছিক বা অনৈচ্ছিক এই দুই ধরনেও ভাগ করা হতে পারে। সন্ত্রাসবাদ ও যুদ্ধকে ঐচ্ছিক মানবঘটিত সম্ভাব্য বিপদ বলা যায়। অন্যদিকে মানব ত্রুটির কারণে শিল্প দুর্ঘটনা ঘটলে সেই ত্রুটিটিকে অনৈচ্ছিক মানবঘটিত সম্ভাব্য বিপদ হিসেবে গণ্য করা যায়।[১]

সম্ভাব্য বিপদ চিহ্নিত করতে হলে প্রথমে সম্ভাব্য লক্ষ্যবস্তুগুলি সংজ্ঞায়িত করতে হয়। সম্ভাব্য বিপদ চিহ্নিতকরণ ঝুঁকি যাচাইয়ের প্রথম ধাপ।

বীমা প্রতিষ্ঠানে ক্ষতির কারণ (Peril) ও সম্ভাব্য বিপদের (Hazard) মধ্যে পার্থক্য করা হয়। যেমন আগুন হল ক্ষতির কারণ, অন্যদিকে গ্যাসের চুলা হল একটি সম্ভাব্য বিপদ, কেননা এটি আগুন লেগে ক্ষতির সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে। ধূমপান একই সাথে ক্ষতির কারণ ও সম্ভাব্য বিপদ, কেননা ধূমপান স্বাস্থ্যের ক্ষতির কারণ এবং একই সাথে ঐ ক্ষতির সম্ভাবনা বৃদ্ধিরও কারণ।

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. Olivier Rubin; Rasmus Dahlberg (২০১৭), A Dictionary of Disaster Management, Oxford University Press