সন্ত্রাস বিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্য

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টি এস সি সড়কদ্বীপে অবস্থিত ভাস্কর্য নিদর্শন

সন্ত্রাস বিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টি এস সি প্রাঙ্গনে অবস্থিত ঢাকার একটি অন্যতম প্রধান ভাস্কর্য নিদর্শন। এটি ১৯৯৭ এর শেষভাগে তৈরি হয়।[১][২]

সন্ত্রাস বিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্য
শিল্পীশ্যামল চৌধুরী
বছর১৭ সেপ্টেম্বর ১৯৯৭ (1997-09-17)
ধরনভাস্কর্য
বিষয়সন্ত্রাস বিরোধী
অবস্থানঢাকা, বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২৩°৪৩′৫৭.১″ উত্তর ৯০°২৩′৪৪.৪″ পূর্ব / ২৩.৭৩২৫২৮° উত্তর ৯০.৩৯৫৬৬৭° পূর্ব / 23.732528; 90.395667
রাজু ভাস্কর্য টি এস সি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ইতিহাস

সম্পাদনা

১৯৯২ সালের ১৩ই মার্চ গণতান্ত্রিক ছাত্র ঐক্যের সন্ত্রাস বিরোধী মিছিল চলাকালে সন্ত্রাসীরা গুলি করলে মিছিলের নেতৃত্বদানকারী বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় নেতা মঈন হোসেন রাজু নিহত হন। রাজুসহ সন্ত্রাস বিরোধী আন্দোলনের সকল শহীদের স্মরণে নির্মিত এই ভাস্কর্য ১৭ই সেপ্টেম্বর, ১৯৯৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন উপাচার্য এ. কে. আজাদ চৌধুরী উদ্বোধন করেন। এই ভাস্কর্য নিমার্ণে জড়িত শিল্পীরা ছিলেন ভাস্কর শ্যামল চৌধুরী ও সহযোগী গোপাল পাল। নির্মাণ ও স্থাপনের অর্থায়নে ছিলেন - ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক আতাউদ্দিন খান (আতা খান)মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুর সমিতির সভাপতি, লায়ন নজরুল ইসলাম খান বাদল। ভাস্কর্যটির সার্বিক তত্ত্বাবধানে রয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন

বর্ণনা

সম্পাদনা

এই ভাস্কর্যে ৮ জনের অবয়ব ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। যাদের প্রতিকৃতি ব্যবহার করা হয়েছে তারা হলেন মুনীম হোসেন রানা, শাহানা আক্তার শিলু, সাঈদ হাসান তুহিন, আবদুল্লাহ মাহমুদ খান, তাসফির সিদ্দিক, হাসান হাফিজুর রহমান সোহেল, উৎপল চন্দ্র রায় ও গোলাম কিবরিয়া রনি।[৩]

চিত্রশালা

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. Wadud, Mushfique (২৮ নভেম্বর ২০০৮)। "Sculpting Bangladesh"New Age Xtra। ৭ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০১৫ 
  2. "LifeStyle"archive.thedailystar.net। ২০১৬-১১-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৫-০৭ 
  3. "যেভাবে শহীদ হলেন রাজু"। ২০১৯-০৩-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৩-১৬