শেষ যুগ বা শেষ সময় হলো বিভিন্ন ধর্ম অনুযায়ী পৃথিবী ধ্বংসের আগের সময়। বিশেষ করে ইব্রাহিমীয় ধর্মে এই সময়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই মতবাদ অনুযায়ী পৃথিবী তার ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে চলে এসেছে।

প্রায় সকল ধর্মমতানুসারে (বিশেষত ইব্রাহিমীয় ধর্মে), আমরা বর্তমানে শেষ যুগে বসবাস করছি।

ইহুদী ধর্মেসম্পাদনা

ইহুদী ধর্মমতানুসারে শেষ সময়ে একজন মসিহ এর আগমন ঘটবে। যার মাধ্যমে তারা সলোমন এর সময়ের মত পুনরায় পৃথিবীতে রাজত্ব করবে। তাদের মতে,মসিহকে ফোরাত ও নীল নদের মধ্যকার ভুমি পুনরায় তাদেরকে পুনরায় ফিরিয়ে দিতে হবে।

খ্রিস্টধর্মেসম্পাদনা

খ্রিষ্টধর্মমতানুসারে শেষ সময়ে খ্রিস্টারীর আবির্ভাব ঘটবে। যে নিজেকে মসিহ দাবি করবে। যদিও আদতে সে প্রকৃত মসিহ নয়। এমতাবস্থায় যিশুখ্রিস্ট পুনরায় পৃথিবীতে আগমন করবেন এবং খ্রিস্টারিকে হত্যা করবেন। এবং এর কিছুকাল পর মহাপ্রলয় ঘটবে।

ইসলাম ধর্মেসম্পাদনা

ইসলাম অনুযায়ী শেষ সময়ে যখন মুসলিমদের পরিস্থিতি অতিশয় শোচনীয় হবে,তখন মুসলিমদের নেতা হিসেবে ইমাম মাহদির আগমন ঘটবে। তিনি পুরো পৃথিবীতে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করবেন। তবে এরপরের ঘটনা নিয়ে কিছুটা মতবিরোধ রয়েছে। যেমন অনেক হাদিস মতে শুধু ইমাম মাহদি নয় বরং আরও কয়েকজন ইমাম পৃথিবীতে আগমন করবেন। এবং মাহদির পূর্বে ও পরে কিছু ইমাম আসবেন। ওপর একটি হাদিস মতে সর্বশেষ ইমাম হচ্ছেন ইমাম জাহজাহ। এছাড়াও ইমাম মনসুর ইয়েমেনী, ইমাম মুহাম্মাদ সহ কিছু ইমামের নাম উল্লেখ রয়েছে।


সর্বশেষ ইমামের শাসনামলে দাজ্জালের আবির্ভাব ঘটবে বলে হাদিসে উল্লেখ পাওয়া যায়। দাজ্জালের ধারনা অনেকটা খ্রিষ্টধর্মে খ্রিস্টারীর ধারণার অনুরূপ।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা