ক্রিকেট খেলায় ব্যাটসম্যান যদি তার ব্যাট দ্বারা বলে আঘাত না করে কিন্তু ব্যাটসম্যানের দেহ বা প্রতিরক্ষামূলক সাজসরঞ্জামে লাগার পর ব্যাটিং দল যদি রান সংগ্রহ করে তবে সেই রানকে লেগ বাই বলে। এটি ক্রিকেটের ২৩ নম্বর আইন এর অন্তর্ভুক্ত।[১]

লেগ বাই স্কোরিংসম্পাদনা

যদি বল ব্যাটসম্যানের দেহ স্পর্শ করে তবে তারা এমনভাবে রান সংগ্রহ করার চেষ্টা করতে পারে যেন তারা বলকে ব্যাট দ্বার আঘাত করেছে। রান সংখ্যাকে লেগ বাই হিসাবে স্কোর করা হয় - এটি দলের মোট রানের সাথে যোগ করা হয়, কিন্তু ব্যাটসম্যারে রান সংখ্যার সাথে বা বোলার দ্বারা দেওয়া রানসংখ্যার সাথে যোগ করা হয় না। যদি বলটি ব্যাটসম্যানের দেহ স্পর্শ করে সরে যায় এবং বাউন্ডারি অতিক্রম করে তাহলে ব্যাটিং দলের রানের সাথে চারটি লেগ বাই রান যোগ হয়, যেমন বলকে ব্যাট দ্বারা আঘাত করে বলটিকে চার রানের জন্য বাউন্ডারি পার করা হয়।

ব্যাটসম্যানের দেহের একমাত্র যে অংশটিতে এই নিয়ম প্রয়োগ হয় না তা হলো হাত বা ব্যাট ধরে হাত (অর্থাৎ ব্যাটসম্যানের গ্লাভস), যেগুলি ব্যাটের একটি অংশ হিসাবে বিবেচিত হয়। যদি বলকে কোন হাত দিয়ে আঘাত করে এবং কোন কারণে সেই হাতে ব্যাট ধরা না থাকে তবে সেগুলি লেগ বাই হিসাবে গণ্য হবে। তবে ব্যাটসম্যান যদি ইচ্ছাকৃতভাবে বলকে কোন হাত দিয়ে আঘাত করে এবং সে হাতে ব্যাট ধরা না থাকে তবে কোন লেগ বাই রান হবে না এবং ফিল্ডিং করা দল আবেদন করলে অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড আউট দেওয়া হতে পারে।

ব্যাটসম্যানের মধ্যে বলটি ব্যাটসম্যানকে আঘাত করে তবেই লেগ বাই রান যোগ করা যেতে পারে, যদি:

  • তার ব্যাট দিয়ে বলকে আঘাত করার চেষ্টা করে, বা
  • বল দ্বারা আঘাত এড়ানোর চেষ্টা।

ব্যাটসম্যান যদি এই দুটির একটিও চেষ্টা না করে এবং বলটি তার শরীরে আঘাত করে তবে এটি একটি ডেড বল এবং রান যোগ করা নাও হতে পারে। এই পরিস্থিতিতে ব্যাটসম্যানরা যদি রান সংগ্রহ করার চেষ্টা করে তবে ফিল্ডিং দল তাদের উভয়কেই রান আউট করার চেষ্টা করতে পারে। বল ডেড হওয়ার সময় ব্যাটিং জুটি যদি এমন একটি "রান" সম্পন্ন করে এবং আম্পায়ার ডেড বলের ইঙ্গিত দেয় তাহলে রান যোগ করা হয় না এবং ব্যাটসম্যানদের রান নেওয়ার আগের মতো অবস্থানে তাদের উইকেটে ফিরে যেতে হবে।

যদি মনে হয় যে ব্যাটসম্যানের পা না থাকলে বলটি স্ট্যাম্পে আঘাত করতে পারতো তবে ব্যাটসম্যান লেগ বিফোর উইকেট আউট হয়ে যেতে পারে।

টেস্ট ক্রিকেটে অতিরিক্ত রান করার ক্ষেত্রে লেগ বাই সর্বাধিক সাধারণ ধরন। একটি টেস্ট ম্যাচে গড়ে লেগ বাই রানের সংখ্যা প্রায় ২০; একটি ৫০ ওভারের ম্যাচে এটি প্রায় ১০।[২] এক টেস্ট ইনিংসে সর্বাধিক লেগ বাই হলো ৩৫, ইংল্যান্ডের প্রোটিয়াস সফরের সময় দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংল্যান্ড ২০০৮ সালের ১ আগস্ট এটি সংগ্রহ করেছিল।[৩]

স্কোরিং সংকেতসম্পাদনা

একক লেগ বাইয়ের জন্য প্রচলিত সংকেত হলো ভিত্তিতে এবং উপরে অনুভূমিক প্রান্তে বিন্দু সহ একটি ত্রিভুজ (বিপরীত বাই প্রতীক)। যদি একাধিক লেগ বাই নেওয়া হয় তবে রান সংখ্যা ত্রিভুজের মধ্যে লেখা হয় - অনুশীলনে সংখ্যাটি নিচে লিখে তার চারপাশে ত্রিভুজটি আঁকা আরও সহজ।

বৈধতাসম্পাদনা

টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার আগে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভ ওয়াহ লেগ বাইকে খেলা থেকে বাদ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মন্তব্য করেছিলেন: "আমি মনে করি না আপনি বলটি মিস করলে আপনার রান নেওয়া উচিত।"[৪]

আম্পায়ারের সংকেতসম্পাদনা

আম্পায়াররা একটি হাঁটু উচু করে হাত দিয়ে তা স্পর্শ করে লেগ বাই এর সংকেত দেন।[৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Law 23 – Bye and leg bye"। MCC। সংগ্রহের তারিখ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  2. "Aggregate extras in international cricket"। ESPN Cricinfo। 
  3. England v South Africa, 2008 Basil D'Oliveira Trophy – 3rd Test, Scorecard, Cricinfo, Retrieved on 5 August 2009
  4. Goodbye to leg-byes?, BBC Sports, Retrieved on 5 August 2009
  5. Umpire's signal, BBC Sport, Retrieved on 5 August 2009