লিমর্তেল রিচার্ড ব্যারি পরিচালিত ফ্রান্সের একটি থ্রিলার চলচ্চিত্র।[১][২]

লিমর্তেল
২২ বুলেট চলচ্চিত্রের পোস্টার.jpg
L'Immortel
পরিচালকরিচার্ড ব্যারি
আলেকজান্দি ড্যা লা পেতেলিয়েরি
ম্যাথিও ডেলাপোর্টি
এরিক আসোস
প্রযোজকলাক বেসন
পিয়েরি-অ্যান্জি লি পোগাম
চিত্রনাট্যকারএরিক আসোস
রিচার্ড ব্যারি
উৎসলিমর্তেল (ফ্রেন্জ-ওলিভার গাইয়েসবার্গ)
শ্রেষ্ঠাংশেজিয়ান রেনু
কাদ মিরাদ
রিচার্ড ব্যারি
মারিনা ফিইস
জিয়ান-পেরিসি ডারোসিন
জয়স্টার
সুরকারক্লাউস বেডাট
চিত্রগ্রাহকথমাস হার্ডমিয়ার
মুক্তি২৪ মার্চ, ২০১০
দৈর্ঘ্য১১৫ মিনিট
দেশফ্রান্স
ভাষাফরাসি
নির্মাণব্যয়€ ১৮,০০০,০০০
আয়€ ১৯,১৮৯,৮৫৪

কাহিনীসম্পাদনা

মার্সেইয়ের সাবেক মাফিয়া গডফাদার চার্লি ম্যাতিইকে (৫৭) তার সাবেক বন্ধুরা গুলি করে হত্যার চেষ্টা করে কিন্তু অপারেশনের পর চার্লি বেচেঁ যায়। তার দেহ থেকে ২২টি বুলেট উদ্ধার করা হয়। হাসপাতালের ডাক্তাররা জানায় তার ডান হাত অবশ হয়ে গেছে। হাসপাতা্ল থেকে আসার পর তার শিষ্যদের বারবার অনুরোধ সত্তেও তার উপর হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেন না। তিনি আর একটি যুদ্ধ শুরু হয়ে যাবার আশঙায় তার শিষ্যদেরও কোন মানুষ মারা থেকে বিরত থাকতে বলেন। করিম নামে চার্লি ম্যাতিইর এক ভাইকে ম্যাতিইর সাবেক বন্ধুরা তুলে নিয়ে যায় এবং তাকে খুন করে। এরপর চার্লি তার স্ত্রী ও দুই সন্তান সহ তার পরিবারের সকল সদস্যদের নিরাপদ স্থানে রেখে মাফিয়াদের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে থাকে যারা করিমকে খুন করেছে। প্রথমে বাস্তেইন নামে একজনকে তার জন্মদিনের অনুষ্ঠানে গুলি করে হত্যা করে।বাস্তেইন চার্লিকে যে পাঁচজন লোক গুলি করেছিল তাদের মধ্যে একজন।

টনি জাক্কিয়া মাফিয়া প্রধান ও চার্লির সাবেক বন্ধু। তার নির্দেশে চার্লির ছেলেকে অপহরণ করা হয়। এরপর এক পুলিশ অফিসারের সাহায্যে চার্লি তার গ্রেফতারের নাটক সাজিয়ে তার ছেলেকে উদ্ধার করে। চার্লি টনি জাক্কিয়াকে খুন করতে জাক্কিয়ার বাসায় যায় ও হাতাহাতির একপর্যায়ে পুলিশ তাদের দুজনকে গ্রেফতার করে। জিঞ্গাসাবাদ শেষে পুলিশ চার্লিকে ছেড়ে দেয়। পরে চার্লি তার হত্যার ষরযন্ত্রের সাথে তারই সহচর একজনের কথা জানতে পারলেও তাকে ক্ষমা করে দেয়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Le mag VIP"। ৫ মে ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৩ 
  2. Une scène tournée à Avignon[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগসম্পাদনা