লায়নেল বালাগাল্লে

জেনারেল লায়নেল পিয়নন্দ বালাগাল্লে শ্রীলঙ্কার সেনাবাহিনীর কমান্ডার ছিলেন যিনি ১৯৯৯ সাল থেকে ২০০৪ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।[১]

জেনারেল

লায়নেল পি বালাগাল্লে

রণবিক্রম পদক, রণসুর পদক, বিশিষ্ট সেবা বিভূষণ, উত্তম সেবা পদক, বিদেশ সেবা পদক
আনুগত্য শ্রীলঙ্কা
সার্ভিস/শাখা শ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনী
পদমর্যাদাজেনারেল
ইউনিটশ্রীলঙ্কা সেনাবাহিনী গোলন্দাজ শাখা
নেতৃত্বসমূহসেনা কমান্ডার

সামরিক জীবনসম্পাদনা

পূর্ব জীবনসম্পাদনা

১৯৬৫ সালের ৫ এপ্রিল বালাগাল্লে সিলন সেনাবাহিনীতে ক্যাডেট হিসেবে যোগ দেন। আর্মি ট্রেনিং সেন্টার, দিয়াতালাওয়াতে মৌলিক প্রশিক্ষণ শেষে তিনি সিলন আর্টিলারির ৪র্থ রেজিমেন্টে ১৯৬৭ সালের ৫ এপ্রিল সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট হিসেবে কমিশন প্রাপ্ত হন। একজন আর্টিলারি অফিসার হিসেবে ১৯৭১ সালের জেভিপির সশস্ত্র বিদ্রোহে তিনি মোতায়েনকৃত ছিলেন। ১৯৭১ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিনি ভারতের স্কুল অব আর্টিলারিতে ইয়াং অফিসার্স কোর্স করেন, একই প্রতিষ্ঠানে তিনি ১৯৭৭ সালের আগস্ট থেকে ১৯৭৮ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত লং গানারি স্টাফ অফিসার্স কোর্স করেন।[২]

সামরিক গোয়েন্দাসম্পাদনা

আশির দশকে কর্নেল পদবীতে বালাগাল্লে জয়েন্ট অপারেশন্স কমান্ড সদরে জেনারেল স্টাফ অফিসার গ্রেড ১ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন, এটা ছিলো সামরিক গোয়েন্দার দায়িত্ব। তিনি এখানে এলটিটিইর বিরুদ্ধে সেনাবাহিনীর সামরিক অভিযান 'ভাদামারাচ্চি অপারেশন'-এর পরিকল্পনা করেন এবং ১৯৮৭-'৮৯ এর জেভিপি সশস্ত্র বিদ্রোহ দমনেও পরিকল্পনা প্রণয়ন করেন। ১৯৯০ সাল থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত তিনি প্রথম ডাইরেক্টর অব মিলিটারি ইন্টেলিজেন্স এবং সামরিক গোয়েন্দা কোরের কমান্ডিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৭৫ সালের আগস্ট থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ভারতে গোয়েন্দা স্টাফ অফিসার্স কোর্স করেছিলেন এবং ১৯৮৯ সালে যুক্তরাজ্য থেকে গোয়েন্দা নিরাপত্তা প্রশাসনিক কোর্স করেন।

উচ্চতর কমান্ডসম্পাদনা

তিনি ৪র্থ পদাতিক ব্রিগেড এবং একটি গোলন্দাজ ব্রিগেডের অধিনায়কত্ব করেন ১৯৯৪ সালে, এর সঙ্গে সঙ্গে তিনি ওয়ান্নি সামরিক অঞ্চলের অধিনায়ক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৬ সালের জানুয়ারী থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনি ভারতের ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজে অধ্যায়নরত ছিলেন। মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতি পেয়ে বালাগাল্লে ৫১ ডিভিশনের অধিনায়কের দায়িত্ব পান। এরপর তিনি জাফনা এবং ওয়ান্নি সিকিউরিটি ফোর্সের অধিনায়ক হন। এরপর সেনাবাহিনী সদর দপ্তরে তিনি প্রথমে উপ চীফ অব স্টাফ এবং পরে চীফ অব স্টাফ হন।

সেনা কমান্ডার এবং চীফ অব ডিফেন্স স্টাফসম্পাদনা

২০০০ সালের ২৪ আগস্ট তিনি সেনা কমান্ডার হন, তাকে লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদবী দেওয়া হয়। সেনা কমান্ডারের দায়িত্ব পালনের সাথে সাথে তিনি ২০০৩ সালের ১০ অক্টোবর থেকে চীফ অব ডিফেন্স স্টাফের দায়িত্ব পান; ২০০৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর অবসর গ্রহণের দিন তাকে পূর্ণ জেনারেল পদবী দেওয়া হয়।[৩][৪][৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Archived copy"। ৩০ মার্চ ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৩ 
  2. "CDS &; ARMY CHIEF LT. GEN BALAGALLE BIDS AU REVOIR"army.lk। ২৮ জুন ২০০৪। 
  3. "Archived copy"। ৭ জুলাই ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৩ 
  4. http://news.bbc.co.uk/2/hi/south_asia/896107.stm
  5. "Past Army Commanders"। Sri Lanka Army। ৩০ আগস্ট ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪