রজনীপাম দত্ত

ভারতীয় সাংবাদিক

রজনীপাম দ্ত্ত (ইংরেজি: Rajani Palme Dutt) (জন্ম;- ১৯ জুন ১৮৯৬ - মৃত্যু;- ২০ ডিসেম্বর ১৯৭৪) গ্রেট বূটেনের এক শীর্ষস্থানীয় সাংবাদিক ও বৃটিশ কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিষ্ঠাতা- সদস্য ।[১]

রজনীপাম দত্ত
রজনীপাম দত্ত.jpg
রজনীপাম দত্ত
জন্ম(১৮৯৬-০৬-১৯)১৯ জুন ১৮৯৬
কেমব্রিজ , ইংল্যান্ড
মৃত্যু২০ ডিসেম্বর ১৯৭৪(1974-12-20) (বয়স ৭৮)
যেখানের শিক্ষার্থীBalliol College, Oxford
পেশাসাংবাদিক ও বৃটিশ কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য
দাম্পত্য সঙ্গীSalme Murrik
পিতা-মাতাউপেন্দ্রকৃষ্ণ দত্ত (পিতা) Anna Palme (মাতা)

জন্ম ও শিক্ষা জীবনসম্পাদনা

রজনীপাম দত্তের জন্ম ইংল্যান্ডের কেমব্রিজে। পিতার নাম উপেন্দ্রকৃষ্ণ দত্ত । ১৮৭৮ খ্রিস্টাব্দে উপেন্দ্রকৃষ্ণ ডাক্তারি পড়ার জন্য কলকাতা হতে লন্ডনে যান এবং কেমব্রিজে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন । সেখানে তিনি ছয় পেনির ডাক্তার অর্থাৎ গরিবের ডাক্তার হিসাবে পরিচিত ছিলেন।রজনীর মা ছিলেন সুইডিশ, আন্না পাম (Anna Palme) । ১৯০৭ খ্রিস্টাব্দে কেমব্রিজের পারসে স্কুল থেকে বৃত্তি সহ সসম্মানে পাশ করেন । এরপর অক্সফোর্ডের ব্যাল্লিওল কলেজ । কিন্তু ১৯১৫ খ্রিস্টাব্দের প্রথম বিশ্বযুদ্ধকালে সেনাবিভাগে যোগ দিতে বাধ্য হন। এই সময় যুদ্ধ বিরোধী মতামত ঘোষণা করায়, ১৯১৬ খ্রিস্টাব্দে কিছুদিন তিনি কারারুদ্ধ থাকেন । অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়ই তিনি সোশ্যালিস্ট সোসাইটি নামে এক সংস্থা গঠন করেন। ১৯১৭ খ্রিস্টাব্দে এই সংস্থা রুশ বিপ্লবকে সমর্থন জানানোর চেষ্টা করলে তিনি অক্সফোর্ড থেকে বিতাড়িত হন। পরের বছর কেবলমাত্র পরীক্ষার সময়টুকু অক্সফোর্ডে অবস্থানের অনুমতি লাভ করেন। এই পরীক্ষায় তিনি আটটি বিষয়েই প্রথম শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হন। ১৯২০ খ্রিস্টাব্দে ফিনল্যান্ডের পার্টির সভ্যা Salme Murrik কমিউনিস্ট ইন্টারন্যাশনালের প্রতিনিধি হয়ে বৃটেনে আসেন। ১৯২২ খ্রিস্টাব্দে তার সাথে রজনীপামের বিবাহ হয়।[২]

রাজনৈতিক ক্রিয়াকলাপসম্পাদনা

১৯২০ খ্রিস্টাব্দের ৩১ শে জুলাই অনুষ্ঠিত কমিউনিস্ট ইউনিটি কনভেনশন এর তিনি প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং ১৯২২ খ্রিস্টাব্দে পার্টি পুনর্গঠন কমিশনের সভাপতি ছিলেন । ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে 'লেবার মান্থলি' নামে এক পত্রিকা প্রকাশ করেন এবং আমৃত্যু এটির প্রকাশনা চালিয়ে যান। ১৯২৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১৯৩৬ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত বেলজিয়াম ও পশ্চিম ইউরোপের বহু দেশের বিভিন্ন স্থানে কখনো প্রকাশ্যে কখনো বা আত্মগোপনে বাস করতে থাকেন । কমিউনিস্ট ইন্টারন্যাশনাল পশ্চিম ইউরোপীয় শাখার অন্যতম নেতার কাজে লিপ্ত ছিলেন এই সময় । ১৯৩৬ খ্রিস্টাব্দে ব্রাসেলসে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির জন্য লেখেন ' দত্ত ব্রাডলে থিসিস' এবং কমিন্টার্নের সপ্তম কংগ্রেসে অংশগ্রহণের পর ১৯৩৭ খ্রিস্টাব্দে লন্ডনে ফেরেন। গ্রেট ব্রিটেনে কমিউনিস্ট পার্টির পলিটব্যুরোর সভ্য পার্টির মুখপত্র ' ডেইলি ওয়ার্কার' এবং 'লেবার মান্থলি' পত্রিকার সম্পাদক ও সিস্কম্যান পপুলার ফ্রন্ট কমিটির সদস্য ছিলেন । ১৯৩৯ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১৯৪১ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত তিনি পার্টির সাধারণ সম্পাদক হিসাবে কাজ করেন। রজনীপাম সোভিয়েত ইউনিয়ন ও লেনিনের আদর্শের প্রতি বিশ্বস্ত ছিলেন । ১৯৪৬ খ্রিস্টাব্দে 'ডেইলি ওয়ার্কার' পক্ষ থেকে কমিউনিস্ট ইন্টারন্যাশনালের 'ক্যাবিনেট মিশনে' ভারতে আসেন ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির তত্ত্বাবধানের জন্য । অসুস্থতার কারণে ১৯৬৭ খ্রিস্টাব্দে পার্টির নেতৃস্থান থেকে অবসর নেন।

গ্রন্থাবলীসম্পাদনা

  • Socialism and the Living wage
  • Two Internationals
  • Life of Lelin
  • World Politics
  • Fascism and the Social Revolution
  • India Today
  • Britain in the World front
  • Crisis of Britain and the British Empire
  • The Internationale

মৃত্যুসম্পাদনা

রজনীপাম দত্ত ১৯৭৪ খ্রিস্টাব্দের ২০ শে ডিসেম্বর প্রয়াত হন ।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. সুবোধচন্দ্র সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, আগস্ট ২০১৬, পৃষ্ঠা ৬২০, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬
  2. Colin Holmes "Rajani Palme Dutt", in A. Thomas Lane (ed.), Biographical Dictionary of European Labor Leaders, Westport, CT: Greenwood Press, 1995; vol. 2, p.284