প্রধান মেনু খুলুন

রঘুনাথ মুর্মূ

একজন আদিবাসী নাট্যকার, লেখক, ভাষাতত্ত্ববিদ ও কবি

পণ্ডিত রঘুনাথ মুর্মূ (৫ মে, ১৯০৫, ডহরাডিহি, ময়ূরভঞ্জ, ওড়িশা – ১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮১[১]) একজন ভাষাতত্ত্ববিদ, লেখক, নাট্যকার ও সাঁওতালি ভাষায় ব্যবহৃত "অলচিকি" লিপির উদ্ভাবক ছিলেন।[২][৩][৪]

রঘুনাথ মুর্মূ
মির্মূ'র প্রস্তর মূর্তি, উপজাতি উন্নয়ন সমাজের (OTDS) ভুবনেশ্বর দপ্তর, ওড়িশা
মির্মূ'র প্রস্তর মূর্তি, উপজাতি উন্নয়ন সমাজের (OTDS) ভুবনেশ্বর দপ্তর, ওড়িশা
জন্ম(১৯০৫-০৫-০৫)৫ মে ১৯০৫
ময়ুরভঞ্জ জেলা, ওড়িশা, ভারত
মৃত্যু১ ফেব্রুয়ারি ১৯৮১(1981-02-01) (বয়স ৭৫)
পেশাভাবাদর্শী, নাট্যকার, ও লেখক
জাতীয়তাভারতীয়
বিষয়লেখক ও ভাষাতত্ত্ববিদ

জীবন সংক্ষেপসম্পাদনা

মুর্মূ ১৯০৫ সালের ৫ মে এক পূর্ণিমা তিথিতে ওড়িশার ময়ুরভঞ্জ জেলার রায়রঙ্গপুর থানার অন্তর্গত ডহরাডিহি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯২৫ সালে অলচিকি লিপি উদ্ভবনের পর সেই লিপিতেই সাঁওতালি ভাষায় বিভিন্ন নাটক, কবিতা ও বই লেখেন। ১৯৭৭ সালে ঝাড়গ্রামের বেতাকুন্দরিডিহিতে তিনি একটি সাঁওতালি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা করেন।[৫][৬] রাঁচির ধুমকুরিয়া কর্তৃক তার আদিবাসী সাহিত্যে অবদানের জন্য তাকে ডি. লিট উপাধি প্রদান করা হয়। চারুলাল মুখোপাধ্যায় মুর্মূকে একজন ধার্মিক এবং আরেকজন আদিবাসী লেখক মার্টিন ওঁরাও তার দি সান্থাল - এ ট্রাইব ইন সার্চ অব দি গ্রেট ট্রাডিশন গ্রন্থে তাকে সাঁওতালদের মহান শিক্ষক হিসেবে উল্লেখ করেন। সেই থেকে তিনি আদিবাসীদের কাছে গুরু গোমকে[৭] (অর্থাৎ "মহান শিক্ষক") নামে খ্যাতি অর্জন করেন। রঘুনাথ মুর্মূ ১৯৮১ সালের ১লা ফেব্রুয়ারি পরলোক গমন করেন।[৮]

উল্লেখ্য রচনাসম্পাদনা

  • বিন্দু চন্দন (বিন্দু চা্ন্দা্না) (নাটক)
  • হাকেগে ধন (হাকেগে ধা্ন্) (নাটক)
  • খেরবান বির (খেরা্ভান বিরা্) (নাটক)
  • সিদ্দ কাহ্নু সাঁওতাল হুল (সিদ্দা কাহ্নু সান্থালা্ হুল্) (নাটক)
  • হাগ সেরেঞ্জা (কাব্য)
  • হিতল (হিতালা্) (কাব্য)
  • বাহা সেরেঞ্জা (কাব্য)
  • এলাখা পঠব (এলাখা পাঠবা্)

পুরস্কারসম্পাদনা

  • ওড়িশা সাহিত্য অ্যাকাডেমি সংবর্ধনা[৭] (১৯৭৮)

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Pandit Raghunath Murmu"anagrasarkalyan.gov.in (ইংরেজি ভাষায়)। ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ০১ অক্টোবর ২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. Published Book ALANG GAR
  3. http://orissa.gov.in/e-magazine/Orissareview/2010/August/engpdf/47-49.pdf
  4. http://orissa.gov.in/e-magazine/Orissareview/2011/aug/engpdf/51-52.pdf
  5. "সাঁওতালি বিশ্ববিদ্যালয়" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৬ 
  6. ସମ୍ବାଦ ୧୯/୦୪/୨୦୧୩ ପୃଷ୍ଠା ୪ରେ ପ୍ରକାଶିତ ଖବର, ଅଲଚିକି ସ୍ରଷ୍ଟାଙ୍କ ସ୍ମୃତିରକ୍ଷା : ଓଡ଼ିଶାଠାରୁ ପଶ୍ଚିମବଙ୍ଗ ଆଗରେ
  7. http://www.panditrmttc.com
  8. "ସାନ୍ତାଳୀ ଭାଷାର ପ୍ରଜ୍ଞାପୁରୁଷ"ସମ୍ବାଦ ୦୧/୦୨/୨୦୧୬ ଭୁବନେଶ୍ଵର ସଂସ୍କରଣ ପୃଷ୍ଠା ୪ (ওড়িয়া ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগসম্পাদনা