যৌনভীতি বা সেক্সোফোবিয়া হ'ল যৌন অঙ্গ বা যৌন ক্রিয়াকলাপগুলির ভয় [১] এবং বৃহত্তর অর্থে যৌনতার ভয়। এমন হতে পারে, তার শিক্ষাগত পটভূমি, ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা এবং মানসিকতার উপর ভিত্তি করে বা ধর্মীয় গোষ্ঠী, প্রতিষ্ঠান বা রাজ্যের সমষ্টিগত সত্তার অবস্থানের ভিত্তিতে ব্যক্তির মনোভাবের ক্ষেত্রে এরুপ বিরুপ একটা প্রভাব পরতে পারে। [২]

স্বাস্থ্যসম্পাদনা

ক্লিনিকাল আলাপে যৌনভীতির প্রভাব রোগীদের চিকিৎসকদের সাথে কথা বলার ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলে, কারণ এটি ব্যক্তিগত যোগাযোগের সমস্যাগুলির বিষয়ে কথা বলার জন্য বিভিন্ন কৌশলে নিজেকে প্রকাশ করতে বলে। [৩] সেই অর্থে, চিকিত্সকরা নিরপেক্ষ এবং পর্দাযুক্ত শব্দভাণ্ডার ব্যবহার করে রোগীদের তাদের যৌন সমস্যা সম্পর্কে খোলামেলা কথা বলতে নিরুৎসাহিত করতে পারে।

অন্যথায়, ইতিহাসবিদ এবং সমাজবিজ্ঞানী সিন্ডি প্যাটন যৌনভীতিকে অন্যতম প্রধান ট্রেন্ড হিসাবে চিহ্নিত করেছেন যা গ্রেট ব্রিটেনের এইচআইভি মহামারীর দ্বিতীয় ধাপের বিকাশের বৈশিষ্ট্যকে সংজ্ঞায়িত করে এবং হোমোফোবিয়া এবং জীবাণুফোবিয়ার সাথে চিহ্নিত করে। [৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Definition by The Free Dictionary, based on the Segen's Medical Dictionary
  2. Jackson, Richard (২০০৪)। (Re)constructing Cultures of Violence and Peace। Rodopi। পৃষ্ঠা 96। আইএসবিএন 9789042011496 
  3. Minichiello, V; Browne, J (১৯৯৮)। "Issues in clinical care of people being tested/treated for sexually transmissible infections" (English ভাষায়): 27। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  4. Aggleton, Peter; Parker, Richard (২০০২)। Culture, Society And Sexuality: A Reader (English ভাষায়)। Routledge। পৃষ্ঠা 337। সংগ্রহের তারিখ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭