প্রধান মেনু খুলুন

ম্যাড ম্যাক্স জর্জ মিলার পরিচালিত ১৯৭৯ সালের অস্ট্রেলীয় বিজ্ঞান কল্পকাহিনিমূলক মারপিটধর্মী চলচ্চিত্র। ছবিটিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন মেল গিবসন। ছবিটির কাহিনি লিখেছেন মিলার, জেমস ম্যাকুসল্যান্ড, ও বায়রন কেনেডি। মাত্র ৩০০,০০০ অস্ট্রেলীয় ডলারে নির্মিত এই ছবিটি সারা বিশ্বে ১০০ মিলিয়ন অস্ট্রেলীয় ডলারের ব্যবসা করে। ১৯৯৯ এর দি ব্লেয়ার উইচ প্রজেক্ট নির্মিত হওয়ার পূর্বে ম্যাড ম্যাক্সই ছিল আয়-ব্যয় এর আনুপাতিক হিসাবে সবচেয়ে ব্যবসা সফল ছবি।

ম্যাড ম্যাক্স
চিত্র:MadMazAus.jpg
Australian theatrical release poster
পরিচালকজর্জ মিলার
প্রযোজকবায়রন কেনেডি
চিত্রনাট্যকার
  • জেমস ম্যাকসল্যান্ড
  • জর্জ মিলার
কাহিনীকার
  • জর্জ মিলার
  • বায়রন কেনেডি
শ্রেষ্ঠাংশে
  • মেল গিবসন
  • জোঅ্যান স্যামুয়েল
  • হিউ কেইস-বায়ার্ন
  • জিওফ প্যারি
  • স্টিভ বিসলি
  • টিম বার্নস
  • রজার ওয়ার্ড
সুরকারব্রায়ান মে
চিত্রগ্রাহকডেভিড ইগবি
সম্পাদক
  • টনি প্যাটারসন
  • ক্লিফ হেইস
প্রযোজনা
কোম্পানি
  • কেনেডি মিলার মিচেল
  • ক্রসরোডস
  • ম্যাড ম্যাক্স ফিল্মস
পরিবেশকরোডশো ফিল্ম ডিস্ট্রিবিউটর্স
মুক্তি
  • ১২ এপ্রিল ১৯৭৯ (1979-04-12)
দৈর্ঘ্য৯৩ মিনিট[১]
দেশঅস্ট্রেলিয়া
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়A$৩৫০,০০০–৪০০,০০০[২]
আয়US$১০০ মিলিয়ন

ছবিটির কাহিনী মূলতঃ প্রলয় পরবর্তী (post-apocalyptic) অরাজক পরিস্থিতি নিয়ে। উত্তর আমেরিকাতে এটি ১৯৮০ সালে মুক্তি পায়। ম্যাড ম্যাক্স ধারাবাহিকের আরো তিনটি ছবি নির্মিত হয় - ম্যাড ম্যাক্স টু (১৯৮২), বিয়ন্ড থান্ডারডোম (১৯৮৫) ও ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড (২০১৫)।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "MAD MAX (15)"British Board of Film Classification। ২১ এপ্রিল ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মে ২০১৯ 
  2. রবিনসন, জোঅ্যানা (১৫ মে ২০১৫)। "8 Reasons Why Mad Max Is the Most Improbable Franchise of All Time"ভ্যানিটি ফেয়ার। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মে ২০১৯ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা