ম্যাডোনা

গায়িকা, গীতিকার, রেকর্ড প্রযোজক, নৃত্যশিল্পি, নটী, চলচ্চিত্র প্রযোজক, চলচ্চিত্র পরিচালক, ফ্যাশন

ম্যাডোনা লুইজ চিকোন (ইংরেজি: Madonna Louise Ciccone) আমেরিকার একজন খ্যাতনামা কণ্ঠশিল্পী,গীতিকার,নৃত্যশিল্পী, অভিনয়শিল্পী ও ব্যবসায়ী। তার জন্ম ১৯৫৮ সালের ১৬ই আগস্ট। অনেকগুলো হিট গানের জন্য ও নিজের গানের অনন্য কর্মক্ষমতা বা পরিবেশনার জন্য বিশ্ব বিখ্যাত হয়েছেন। ম্যাডোনাকে আমেরিকান পপ সংস্কৃতির সবচেয়ে প্রভাবশালী নারীদের মধ্যে একজন বলা হয়ে থাকে। ম্যাডোনার প্রভাব আমেরিকান পপ সংস্কৃতিতে প্রায় সব ক্ষেত্রে আজও প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে দেখা যায় বলে তাঁকে "পপ সম্রাজ্ঞী" বলা হয়। তিনি সর্বকালের সবচেয়ে বেশি বিক্রিত ও সফল নারী সঙ্গীত শিল্পী, তঁার সংগীত রেকর্ড সারা পৃথিবীজুড়ে আজ পর্যন্ত মোট ৩৫ কোটি বারেরও বেশি বিক্রি হয়েছে। ৮০ ও ৯০ এর দশকে আকাশছোঁয়া জনপ্রিয়তা থাকলেও তঁার সবচেয়ে সফল একক গান হলো ২০০৫ এ প্রকাশিত "হাং আপ" যা ৪১ টি দেশের সঙ্গীত চার্টে ১ নং হিট করে বিশ্ব রেকর্ড অর্জন করেছে। ম্যাডোনা ১৯৮২ সাল থেকে আজ পর্যন্ত ১৪টি স্টুডিও অ্যালবাম,৫টি লাইভ অ্যালবাম, ৬টি কম্পিলেশন অ্যালবাম,৩টি সাউন্ডট্র্যাক অ্যালবামসহ ৮৮টি একক গান প্রকাশ করেছেন। এছাড়াও তিনি ১১টি সফল বক্স অফিস হিট কনসার্ট ট্যুর করেছেন। যার মধ্যে ২০০৮-৯ সালের "স্টিকি এ্যান্ড সুইট ট্যুর" আজও একজন নারী সঙ্গীতশিল্পীর দ্বারা সর্বোচ্চ উপার্জনকারী কনসার্ট সফর, যার কনসার্টের টিকিট বিক্রির মাধ্যমে ম্যাডোনা $৪৯৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার উপার্জন করেছিলেন। তিনি কনসার্টের টিকিট বিক্রির মাধ্যমে মোট $১.৩১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার উপার্জন করেছেন। বর্তমানে তার নিট মূল্য $৫০০-$৮৯০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এছাড়াও তিনি একজন ফ্যাশন ডিজাইনারও। পপ সম্রাজ্ঞী ম্যাডোনা সুযোগ পেলেই কিছু করার চেষ্টা করেন। খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠান আইকনিক্স ব্র্যান্ড গ্রুপের সঙ্গে মিলে তিনি বিশ্বব্যাপী ফ্যাশন ব্র্যান্ড চালু করেছেন। তিনি একজন ছবির পরিচালকও। ম্যাডোনা তার দ্বিতীয় ছবি পরিচালনা করেছেন। ছবির নাম ডব্লিউই। ব্রিটেনের রাজা অষ্টম এডওয়ার্ডের বহুল আলোচিত প্রেমকাহিনি নিয়ে ছবিটি নির্মাণ করা হয়েছে। এর আগে ২০০৮ সালে ফিলদ অ্যান্ড উইসডম ছবি পরিচালনা করেছেন। তবে বর্তমানে নিজের জীবনী নিয়ে ছবি তৈরির জন্য কাজ করছেন।

ম্যাডোনা
জন্ম নামম্যাডোনা লুইজ চিকোন[১]
জন্ম (1958-08-16) আগস্ট ১৬, ১৯৫৮ (বয়স ৬৪)
Bay City, Michigan,
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

জীবন সঙ্গিসম্পাদনা

  • ড্যান গিলোরি (১৯৭৯-৮১)
  • জিন-মিশেল বাসকুয়েট (১৯৮২)
  • জন এফ কেনেডি জুনিয়র (১৯৮৭)
  • মাইকেল জ্যাকসন (কিন্তু মাইকেল জ্যাকসন তাকে শুধুই বান্ধবী ভাবতেন)
  • ভ্যানিলা আইস (১৯৯২)
  • জন বেনিটেজ (১৯৮৩-১৯৮৫)
  • শন পেন (১৯৮৫ - ১৯৮৯) [প্রাক্তন স্বামী]
  • ওয়ারেন বেটি (১৯৮৯-৯০)
  • টনি ওয়ার্ড (১৯৯১)
  • কারলোস লিওন (১৯৯৪-১৯৯৭)
  • অ্যান্ডি বার্ড (১৯৯৭)
  • গাই রিচি (১৯৯৮ - ২০০৮) [প্রাক্তন স্বামী]
  • জিসাস লুজ (২০০৯ - ২০১০)
  • ব্রাহিম জাইবাত (২০১০ - ২০১৩)
  • কেভিন স্যামপায়ো (২০১৩ - ২০১৮)
  • আহলামালিক উইলিয়ামস (২০১৮-বর্তমান)

[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. George J. Leonard; Pellegrino D'Acierno (১৯৯৮)। The Italian American Heritage: A Companion to Literature and Arts। Taylor & Francis। পৃষ্ঠা 492। আইএসবিএন 978-0-8153-0380-0 
  2. http://www.prothomalo.com/entertainment/article/1481966/%E0%A6%AE%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%A1%E0%A7%8B%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%AF%E0%A6%A4-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%AE

বহিঃসংযোগসম্পাদনা