মোহাম্মদ হোসেন জেমী

মোহাম্মদ হোসেন জেমী একজন বাংলাদেশি চলচ্চিত্র পরিচালক ও চিত্রগ্রাহক। ২০০৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত রাজধানী চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তিনি চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। ২০১৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বৈষম্য চলচ্চিত্রের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।[১][২]

মোহাম্মদ হোসেন জেমী
জাতীয়তাবাংলাদেশি
পেশাচলচ্চিত্র পরিচালক ও চিত্রগ্রাহক
পুরস্কারজাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (২০১৪)

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

জেমী ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করে যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া কলেজ থেকে চলচ্চিত্রের উপর স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।[৩] তার পিতার নাম মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন ও মাতা হোসনে আরা।[৪]

কর্মজীবনসম্পাদনা

জেমীর পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘রাজধানী’ যা ২০০৪ সালে মুক্তি পায়।[৩] পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ছাড়াও তিনি প্রামাণ্যচিত্র ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। তিনি ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগে শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন।[৩]

জেমী ২০১২ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দিগন্ত টেলিভিশনে চলচ্চিত্র বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘আলোছায়া আয়না’ উপস্থাপনায় যুক্ত ছিলেন।[৫] তিনি ঢালিউডের চলচ্চিত্রে প্রথম থ্রিডি অ্যানিমেশন প্রযুক্তি ব্যবহার করার জন্য পরিচিত।[৫] কিং খান চলচ্চিত্রের কয়েকটি দৃশ্য ত্রিমাত্রিক অ্যানিমেশনে চিত্রায়ণ করা হয়েছিল।[৫] তিনি ‘ডিজিটাল সিনেমা নির্মাণ থেকে প্রক্ষেপণ’ নামে একটি গ্রন্থও প্রকাশ করেন।[৪]

উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রসম্পাদনা

জেমী পরিচালিত ‍উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে:[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৪"বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০২০ 
  2. "সেরা অভিনেতা ফেরদৌস, সেরা অভিনেত্রী মৌসুমী ও মিম"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০২০ 
  3. "চলচ্চিত্র পরিচালক মোহাম্মদ হোসেন জেমী"মাছরাঙ্গা টেলিভিশন। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০২০ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "ডিজিটাল সিনেমা নিয়ে জেমীর বই"মানবজমিন। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০২০ 
  5. "মোহাম্মদ হোসেন জেমী"প্রিয়.কম। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০২০