মিরান্ডা রিচার্ডসন

ব্রিটিশ অভিনেত্রী

মিরান্ডা জেন রিচার্ডসন (ইংরেজি: Miranda Jane Richardson; জন্ম: ৩ মার্চ ১৯৫৮)[১] হলেন একজন ইংরেজ অভিনেত্রী। তিনি ড্যামেজ (১৯৯২) চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে এবং টম অ্যান্ড ভিভ (১৯৯৪) চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তিনি সাতটি বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন এবং ড্যামেজ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেত্রী বিভাগে বাফটা পুরস্কার অর্জন করেন। তার বাফটা মনোনীত অন্যান্য কর্মসমূহ হল স্ক্রিন টু (১৯৮৫), ক্রাইং গেম (১৯৯২), টম অ্যান্ড ভিভ (১৯৯৪), আ ড্যান্স টু দ্য মিউজিক অব টাইম (১৯৯৭), দ্য লস্ট প্রিন্স (২০০৩), এবং মেড ইন ড্যাগেনহাম (২০১০)। এছাড়া তিনি দুটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার অর্জন করেন, তন্মধ্যে একটি এনচেন্টেড এপ্রিল (১৯৯২) চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সেরা সঙ্গীতধর্মী বা হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র অভিনেত্রী বিভাগে এবং অপরটি ফাদারল্যান্ড টিভি চলচ্চিত্রে অভিনয় করে মিনিধারবাহিক বা টিভি চলচ্চিত্রে সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে।[২]

মিরান্ডা রিচার্ডসন
Miranda Richardson
Miranda Richardson Met Opera 2010 Shankbone.jpg
২০১০ সালে রিচার্ডসন
জন্ম
মিরান্ডা জেন রিচার্ডসন

(1958-03-03) ৩ মার্চ ১৯৫৮ (বয়স ৬১)
সাউথপোর্ট, ইংল্যান্ড
যেখানের শিক্ষার্থীব্রিস্টল ওল্ড ভিস থিয়েটার স্কুল
পেশাঅভিনেত্রী
কার্যকাল১৯৭৯-বর্তমান

রিচার্ডসন ১৯৭৯ সালে মঞ্চে অভিনয় দিয়ে তার কর্মজীবন শুরু করেন এবং ১৯৮১ সালে মুভিং নাটক দিয়ে তার ওয়েস্ট এন্ড মঞ্চে অভিষেক হয়। তিনি ১৯৮৭ সালে আ লাইফ অব দ্য মাইন্ড নাটকে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে অলিভিয়ে পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। টেলিভিশনে তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য কাজসমূহ হল ব্ল্যাক্যাডার (১৯৮৬-৮৯), মারলিন (১৯৯৮), গিডন্‌স ডটার (২০০৬), দ্য লাইফ অ্যান্ড টাইমস অব ভিভিয়েন ভাইল (২০০৭) ও রুবিকন (২০১০)। ২০১৫ সালে তিনি অপারেশন ওরাংউটান-এর জন্য সেরা বর্ণনাকারী বিভাগে প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Miranda Richardson Biography (1958-)"ফিল্ম রেফারেন্স। সংগ্রহের তারিখ ৩ মার্চ ২০১৯ 
  2. "Miranda Richardson"গোল্ডেন গ্লোব (ইংরেজি ভাষায়)। হলিউড ফরেন প্রেস অ্যাসোসিয়েশন। সংগ্রহের তারিখ ৩ মার্চ ২০১৯ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা