হালুহেমালেতে মসজিদ

সুন্নি ইসলাম মালদ্বীপের রাষ্ট্রীয় ধর্ম এবং ২০০৮ সালের সংবিধানের ৯ ধারার ডি অনুচ্ছেদের একটি সংশোধনীতে বলা হয় কোন অমুসলিম মালদ্বীপের নাগরিকত্ব পাবে না।। ১২তম শতাব্দীতে এই দ্বীপটি বৌদ্ধ ধর্ম থেকে ধর্মান্তরিত হয়ে ইসলাম ধর্মে প্রবেশ করে এবং স্থানীয় জনগোষ্ঠী কার্যকরভাবে সবাই মুসলমান। মরক্কোর পরিব্রাজক ইবনে বতুতার মতে, মালদ্বীপে ইসলাম্ এসেছে এজিনসিুন্নি মুসলিম পরিব্রাজকের দ্বারা যার নাম আবু আল বারাকাত ডিনি মরক্কো থেকে এসেছিলেন।

ইসলাম ধর্মের গুরুত্বসম্পাদনা

মালদ্বীপের আইনে ইসলামের সুস্পষ্ট প্রভাব রয়েছে। ইসলামের প্রথাগত শরীয়াহ আইন অনুযায়ী মালদ্বীপের মৌলিক আইন প্রণীত হয় যা রাষ্ট্রপতি, অ্যাটর্নি জেনারেল, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, এবং মজলিস কর্তৃক স্থানীয়দের কাছে ব্যাখ্যা করা হয়। ইসলাম অধ্যুষিত এই দ্বীপে, মিস্কি বা মসজিদ হচ্ছে ইসলাম চর্চার প্রধানতম স্থান।

ইসমাইল খিলাত রশীদ বিতর্কসম্পাদনা

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা