মালদ্বীপের সংবিধান

মালদ্বীপের সংবিধান হলো মালদ্বীপের সর্বোচ্চ আইন।  এটি মালদ্বীপ প্রজাতন্ত্রের অস্তিত্বের আইনি ভিত্তি প্রদান করে, মালদ্বীপের নাগরিকদের অধিকার ও কর্তব্য নির্ধারণ করে এবং মালদ্বীপ সরকারের কাঠামো বর্ণনা করে। মালদ্বীপের বর্তমান সংবিধানটি রাষ্ট্রপতি মামুন আব্দুল গাইয়ুম কর্তৃক ২০০৮ সালের ৭ আগস্ট প্রণীত হয়, এবং ১৯৯৮ সালের সংবিধান বাতিল করে এটি দ্রুত কার্যকর হয়।

বর্তমান সংবিধানটির সংক্ষিপ্ত শিরোনাম মালদ্বীপ প্রজাতন্ত্রের সংবিধান, ২০০৮। 

ইতিহাসসম্পাদনা

সালতানাত এবং প্রথম প্রজাতন্ত্রসম্পাদনা

মালদ্বীপের প্রথম সংবিধান ১৯৩২ সালে[১] মালদ্বীপের সুলতান তৃতীয় মুহাম্মাদ শামসুদ্দীন কর্তৃক কার্যকর হয়। এই সংবিধান মুলত  প্রথা, আইন এবং অন্যান্য ঐতিহ্যগত প্রাশাসনিত পদ্ধতির উপর ভিত্তি করে প্রণীত হয়েছিল, যে গুলো শত শত বছর ধরে চলে আসছিল। এই সংবিধান ১৯৩০ সালে দেওয়া শ্রীলংকার ভারপ্রাপ্ত গভর্নর এইচ, বর্ডিলের পরামর্শের ভিত্তিতে লিখিত হয়।কিছুদিন পরেই ১৯৩৪ সালে আরেকটি সংবিধান প্রণয়ন এবং কার্যকর করা হয়। একই বছরে সুলতান তৃতীয় মুহাম্মাদ শামসুদ্দীনকে তার নিজের জারি করা সংবিধান লঙ্ঘনের দায়ে পদচ্যুত করা হয়। সুলতান দ্বিতীয় হাসসান নুরুদ্দীনের শাসনামলে তৃতীয় আরেকটি সংবিধান প্রণয়ন এবং কার্যকর করা হয়। ১৯৪০ সালের ৩০ জানুয়ারিতে সাংবিধানিক ব্যবস্থা অপ্রয়োজনীয় বলে গণ্য করা হয় এবং বিলুপ্ত করা হয়।  সালে নতুন আরেকটি সংবিধান কার্যকর হয়। ১৯৫১ সালে আরেকটি সাংবিধানিক পরিবর্তনের পর (৫ম সংবিধান) মালদ্বীপ একটি প্রজাতন্ত্র হিসাবে ঘোষিত হয়।[১]

রাষ্ট্রপতি মোহামেড আমিন দিদির শাসনামলে আরেকটি নতুন সংবিধান (৭ম) কার্যকর করা হয়। এই সংবিধানটি মাত্র ৮ মাস কার্যকর থাকে, এরপর প্রজাতন্ত্র বাতিল করা হয় এবং মালদ্বীপ আবার সুলতান মুহাম্মাদ ফারিদ দিদির অধীনে সালতানাতে পরিণত হয়। এই পরিবর্তনের ফলে আরেকটি সংবিধান রচিত হয় ৭ মার্চ ১৯৫৪ সালে। এর পর নবম সংবিধান ১৯৬৪ সালে এবং দশম সংবিধান ১৯৬৭ সালে প্রণীত হয়।[১]

দ্বিতীয় প্রজাতন্ত্রসম্পাদনা

দ্বিতীয় প্রজাতন্ত্র ঘোষণার পর রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম নাসির ১৯৬৮ সালের ১১ নভেম্বরে একটি নতুন সংবিধান অনুমোদন করেন। এই সংবিধান যথাক্রমে ১৯৭০, ১৯৭২ এবং ১৯৭৫ সালে তিনবার সংশোধিত হয়।[১]

রাষ্ট্রপতি মামুন আব্দুল গাইয়ুমের শাসনামলে ১৯৯৮ সালে মালদ্বীপের দ্বাদশ সংবিধান প্রণীত হয়। সরকার  ঘোষণা করে যে এই পরিবর্তন আনা হয়েছে দেশের জনগণকে বন্ধুত্বপূর্ণ এবং সৌহার্দ্যতা ও সহযোগিতাপূর্ণ পরিবেশে বসবাস করতে উৎসাহিত করার জন্য এবং ভালো কাজে ও পরস্পরের প্রতি সম্মান দেখানোর জন্য উৎসাহিত করার জন্য।[২]

২০০৮ সালের জুনে একটি পরিষদ, যেটি “বিশেষ মাজলিস” নামে পরিচিত, একটি নতুন সংবিধান উপস্থাপন করে।[৩] ২০০৮ সালের ৭ আগস্ট এই সংবিধান রাষ্ট্রপতি কর্তৃক অনুমোদিত হয়। এই সংবিধান প্রণয়ন কার্যক্রম শুরু হয় ২০০৩ সালে নাগরিক বিক্ষোভের কারণে রাষ্ট্রপতি গাইয়ুম আধুনিক বহুদলীয় গণতান্ত্রিক দেশের অঙ্গীকার করার পর।[৪] এই সংবিধানে বিচার বিভাগ একটি স্বাধীন কমিশনের আওতায় রাখা হয়েছে, এবং দুর্নীতি দমন ও নির্বাচন পরিচালনার জন্য আলাদা স্বাধীন কমিশনের বিধান রাখা হয়েছে। এই সংবিধান রাষ্ট্রপতির নির্বাহী ক্ষমতা হ্রাস করেছে এবং সংসদকে শক্তিশালী করেছে।  অন্যান্য পরিবর্তনসমূহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, এই সংবিধান অনুসারে “একজন অমুসলিম মালদ্বীপের নাগরিক হতে পারবে না।”[৫]

বৈশিষ্ট্যসমূহসম্পাদনা

সংবিধানটি একটি ঘোষণা, ১৪ টি অধ্যায় এবং তিনটি তফসিল নিয়ে গঠিত। প্রতিটি অধ্যায় এবং তফসিল একেকটি বিশেষ প্রসঙ্গের উপর আলোচনা করে। নিচে প্রতিটি অধ্যায় ও তফসিল এবং আলোচ্য বিষয়ের তালিকা দেওয়া হলো:

অধ্যায়সম্পাদনা

  • অধ্যায় ১ - রাজ্য,সার্বভৌমত্ব এবং নাগরিক।
  • অধ্যায় ২ -  মৌলিক অধিকার এবং স্বাধীনতা
  • অধ্যায় ৩ - দ্য পিপলস মাজলিস (সংসদ)
  • অধ্যায় ৪ - রাষ্ট্রপতি
  • অধ্যায় ৫ - মন্ত্রিসভা
  • অধ্যায় ৬ - বিচার বিভাগ
  • অধ্যায় ৭ - কমিশন এবং দপ্তরসমূহের স্বাধীনতা
  • অধ্যায় ৮ - বিকেন্দ্রিকরণ এবং প্রশাসন
  • অধ্যায় ৯ - নিরাপত্তা ব্যবস্থা
  • অধ্যায় ১০ - সম্পত্তি, দায় এবং রাষ্ট্রের আইনগত পদক্ষেপ
  • অধ্যায় ১১ - জরুরি অবস্থা
  • অধ্যায় ১২ - সংবিধান সংশোধন
  • অধ্যায় ১৪ - অন্তর্বর্তীকালীন ব্যবস্থা

তফসিল সমূহসম্পাদনা

  • তফসিল ১ - শপথ
  • তফসিল ২ - প্রাশাসনিক বিভাগ
  • তফসিল ৩ - জাতীয় পতাকা

সংশোধনসম্পাদনা

সংবিধানটি ২০০৮ সালে কার্যকর হওয়ার পর থেকে মাত্র একবার ২০১৫ সালের জুলাই মাসে সংশোধন করা হয়েছে।

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১২ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ নভেম্বর ২০১৬ 
  2. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১৯ জুলাই ২০২২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ নভেম্বর ২০১৬ 
  3. "CIA World Factbook - Maldives"। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ নভেম্বর ২০১৬ 
  4. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১৩ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ নভেম্বর ২০১৬ 
  5. Constitution of Maldives – Article 9 D