মস্তিষ্ক

দেহের প্রধান নিয়ন্ত্রণকেন্দ্র

মস্তিষ্ক : মস্তিষ্ক হলো কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের একটি অপরিহার্য অংশ, যা করোটির অভ্যন্তরে অবস্থিত এবং দেহের প্রধান নিয়ন্ত্রণকেন্দ্র। ভ্রুণ অবস্থায় সুষুম্নাকান্ডের অগ্রবর্তী দন্ডাকার অংশ ভাঁজ হয়ে পর পর ৩টি বিষমাকৃতির স্ফীতি তৈরী করে৷ স্ফীতি ৩টি মিলেই গঠিত হয় মস্তিষ্ক৷ প্রাপ্তবয়স্ক লোকের মস্তিষ্কের আয়তন ১৫০০ ঘন সেন্টিমিটার, গড় ওজন ১.৩৬ কেজি এবং এতে প্রায় ১০ বিলিয়ন নিউরন থাকে মস্তিষ্ক মেনিনজেস নামক পর্দা দ্বারা আবৃত ।মানুষের মস্তিষ্কের প্রধান তিনটি অংশ ।যথা- (ক) গুরুমস্তিষ্ক (খ) মধ্যমস্তিষ্ক (গ) লঘুমস্তিষ্ক

থ্রিডি চিত্রে মস্তিষ্ক

(ক) গুরুমস্তিষ্ক : মস্তিষ্কের প্রধান অংশ হলো গুরুমস্তিষ্ক ।এটি ডান ও বাম খন্ডে বিভক্ত ।এদের ডান ও বাম সেরিব্রাল হেমিস্ফিয়ার বলে ।মানব মস্তিষ্কের সেরিব্রাল হেমিস্ফিয়ার অধিকতর উন্নত ও সুগঠিত ।

মধ্যমস্তিষ্ক : গুরুমস্তিষ্ক ও পনস এর মাঝখানে মধ্যমস্তিষ্ক অবস্থিত ।মধ্যমস্তিষ্ক দৃষ্টিশক্তি,শ্রবণশক্তির সাথে সম্পর্কযুক্ত ।

[বি.দ্র : মধ্যমস্তিষ্ক সম্পর্কে আরো জানতে এখানে 👉মধ্যমস্তিষ্কক্লিক করেন ।]

লঘুমস্তিষ্ক : লঘুমস্তিষ্ক গুরুমস্তিষ্কের নিচে ও পশ্চাতে অবস্থিত । এটা গুরু মস্তিষ্কের চেয়ে আকারে ছোট ।লঘুমস্তিষ্ক কথা বলা ও চলাফেরা নিয়ন্ত্রন করে ।এর তিনটি অংশ যথা- (ক)সেরিবেলাম(খ) পনস (গ) মেডুলা

স্নায়ুকোষ ও স্নায়ুসন্নিধিসম্পাদনা

 
Neurons generate electrical signals that travel along their axons. When a pulse of electricity reaches a junction called a synapse, it causes a neurotransmitter chemical to be released, which binds to receptors on other cells and thereby alters their electrical activity.

মানবমস্তিষ্কের মূল গঠন-উপাদান হল স্নায়ুকোষ। মস্তিষ্কে মোট ১০০০ কোটি স্নায়ুকোষ বা নিউরন থাকে। এই কোষগুলো বৈদ্যুতিক সংকেতের আকারে অনুভূতি পরিবহন করতে পারে। এদের দুই প্রান্তে যে শাখাপ্রশাখার মত প্রবর্ধক থাকে তারা হল ডেন্ড্রাইট, আর মূল তন্তুর মত অংশের নাম অ্যাক্সন। ডেন্ড্রাইট হল সংকেতগ্রাহক অ্যান্টেনার মত, যা অন্য নিউরন থেকে সংকেত গ্রহণ করে। অ্যাক্সন সেই সংকেত পরিবহন করে অপরপ্রান্তের ডেন্ড্রাইটে নিয়ে যায়। দুটি বা ততোধিক নিউরোনের সংযোগস্থলকে বলে সিন্যাপস, যেখানে এদের সংকেত বিনিময় হয়। মূলত একটি নিউরনের অ্যাক্সন এবং অপর একটি নিউরনের ডেনড্রাইটের মিলনস্থলকে স্নায়ুসন্নিধি (সিন্যাপস) বলে। মানুষের করটেক্সে মোটামুটি ১০,০০০ এর মত সিন্যাপস থাকে। মানুষের সেরিব্রামের বাম অংশ তুলনামূকভাবে বেশি উন্নত৷ সেরিব্রামকে গুরুমস্তিষ্কও বলা হয়৷ সেরিব্রামের ভিতরের অংশে স্নায়ুতন্ত থাকে৷ এই অংশটি শ্বেত বর্ণের এবং বাইরের অংশ ধূসর বর্ণের। সেরিব্রামের ডান খণ্ড শরিরের বাম অঞ্চল এবং সেরিব্রামের বাম খণ্ড শরিরের ডান অঞ্চল নিয়ন্ত্রণ করে।

মস্তিষ্কের বিভাগসম্পাদনা

 
মস্তিষ্কের বিভাগ

মানুষের মস্তিষ্ক ৩ভাগে বিভক্ত ৷

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা