প্রধান মেনু খুলুন

মতিলাল শীল (জন্ম: ১৭৯২ - মৃত্যু: ২৯ মে ১৮৫৪) একজন বিখ্যাত ব্যবসায়ী, সমাজসেবী এবং দানবীর। মতিলাল শীল কলকাতার কলুটোলার বাসিন্দা ছিলেন। তাঁর বাবার নাম চৈতন্যচরণ।[১]

ব্যবসায়ী জীবনসম্পাদনা

ফোর্ট উইলিয়ামে সামরিক কর্মচারীদের প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহের মধ্যে দিয়ে তাঁর অর্থোপার্জনের শুরু । এর পর তিনি শিশি বোতল এবং ছিপির ব্যবসা শুরু করেন । কিছুদিন তিনি বালিখালের কাস্টমস দারোগা ছিলেন। ১৮২০ থেকে ১৮৩৪ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত তিনি বিভিন্ন ইউরোপীয় প্রতিষ্ঠানের মুৎসুদ্দীর কাজ করেন। এই সময়ে আমদানী রপ্তানী ব্যবসায়ে লিপ্ত হয়ে রুস্তমজী কাওয়াসজী এবং দ্বারকানাথ ঠাকুরের মত প্রতিপত্তিশালী এবং বিখ্যাত ব্যবসায়ী হন। তিনি জাহাজ শিল্পে যোগ দিয়ে বিদেশীদের সাথে প্রতিযোগিতা করেন । আন্তর্দেশীয় জাহাজ ব্যবসায়ে তিনিই প্রথম বাষ্পীয় পোত ব্যবহার করেন।[১]

সমাজসেবাসম্পাদনা

১৮৪৩ খ্রিস্টাব্দে তিনি শীলস্ ফ্রী কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন এবং ইহুদী শিক্ষকদের দ্বারা ধর্মনিরপেক্ষ শিক্ষার ব্যবস্থা করেন। তিনি বিভিন্ন জনহিতকর কাজে বহু অর্থ ব্যয় করেছেন। তিনি ১৮৪৬ খ্রিস্টাব্দে হিন্দু চ্যারিটেবল ইনস্টিটিউশন এবং ১৮৫৩ খ্রিস্টাব্দে হিন্দু মেট্রোপলিটান কলেজ স্থাপনে সহযোগিতা এবং অর্থসাহায্য করেন। তিনি ১৮৪৬ খ্রিস্টাব্দে বেলঘরিয়া অতিথিশালা এবং স্নানার্থীদের জন্য গঙ্গাতীরে মতিলাল ঘাট স্থাপন করেন। তিনি কলকাতা মেডিকেল কলেজের জন্য অনেক জমি দান করেছিলেন। তিনি ধর্মসভার একজন নেতৃস্থানীয় হলেও ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর প্রবর্তিত বিধবা বিবাহ আন্দোলনের সমর্থক ছিলেন।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. সুবোধ সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, দ্বিতীয় মুদ্রণঃ নভেম্বর ২০১৩, পৃষ্ঠা ৫৩৭, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬